প্রথম সিজনের চেয়ে পিছিয়েই থাকবে ‘স্পেশাল অপ্স ১.৫’

অরিন্দম পাত্র

২০২০-র মার্চের মাঝামাঝি যখন গোটা দেশ করোনা অতিমারির কারণে ঘরবন্দি, ঠিক তখনই ডিজনি হটস্টার প্ল্যাটফর্মের ‘স্পেশাল অপ্স’ থ্রিলার সিরিজটি binge watcher-দের কাছে ওই দুঃসময়ে একেবারে যেন আশীর্বাদের মতো নেমে এসেছিল। আটটি এপিসোড জুড়ে আকলাখ খানকে ধরার টানটান উত্তেজনাময় কাহিনি ও তার সঙ্গে কে কে মেননের অসাধারণ অভিনয় এক দুর্দান্ত কম্বোপ্যাক হিসাবে আমরা পেয়েছিলাম। দেড় বছরেরও বেশি সময় পরে সেই সিরিজের প্রিকুয়েল ‘স্পেশাল অপ্স ১.৫’ রিলিজ হয়েছে, হিম্মত সিং-রূপী কে কে মেননের হিম্মত হয়ে ওঠার কাহিনি নিয়ে। কতটা ভালো হল সেই প্রিকুয়েল? আসুন কিছুটা পর্যালোচনা করা যাক…

আরও পড়ুন: দীর্ঘ ২২ মাস পর ফের দুবাইয়ে শো করলেন অরিজিৎ সিং

Aftab Shivdasani Joins Neeraj Pandey's 'Special Ops 1.5'

প্রথমেই বলে রাখা যাক ‘স্পেশাল অপ্স ১.৫’-এর কাহিনিকাল যুবক হিম্মতকে নিয়ে। তাই আকলাখ খান পরবর্তী গল্পের উত্তর এই সিরিজে পাবেন না। কাহিনি নিয়ে বিশেষ কিছু বলব না। তবে একটা কথাই বলতে চাই সেটা হল, মাত্র চারটি এপিসোড জুড়ে এই সিরিজের কাহিনি বর্ণিত হলেও প্রথম দুই এপিসোডের টানটান রুদ্ধশ্বাস ভাবটা শেষের দুই এপিসোডে অতটা অনুভূত হয়নি। তৃতীয় এপিসোডের শুরুর চমকটা বাদ দিলে অনেক কিছুই আগেভাগে আঁচ করা যাচ্ছিল। আর গল্পকার agent, rogue agent, honey trap, RAW, KGB, CIA, MI6, ISI সবকিছু একসঙ্গে মিশিয়ে আমাদের দেশীয় জেমস বন্ডের ফ্লেভার উপহার দিতে চাইলেও পুরোপুরিভাবে সফল হতে পারেননি! শেষ দুই এপিসোডের বিশেষ করে চতুর্থ এপিসোডের ক্লাইম্যাক্সের দিকে গল্প বেশ খানিকটা ঝুলে গিয়ে রিয়ালিজমের ধার দিয়ে না গিয়ে বলিউড স্পাই থ্রিলারের মতো লাগে, যেটা একেবারেই প্রত্যাশিত ছিল না। এছাড়া থ্রিল ফ্যাক্টর বিবেচনা করলেও সিজন দুই অর্থাৎ ১.৫ প্রথম সিজনের চেয়ে পিছিয়েই থাকবে।

আরও পড়ুন: ‘ভারতও জেহাদি দেশ হয়ে গেল’, কৃষি আইন প্রত্যাহারের কঙ্গনার গলায় হতাশার সুর

Special Ops 1.5 review: Death by background music | Entertainment News,The  Indian Express

এই সিরিজটা দেখতে বসার এক ও একমাত্র কারণ অবশ্যই কে কে মেনন সাহেব। ঠিক যেরকম পর্দার হিম্মত সিংয়ের উপর আপনি চোখ বন্ধ করে ভরসা করতে পারেন, ঠিক সেইরকম একমেবাদ্বিতীয়মকে কে মেননের অভিনয় গুণেই উপভোগ্য হয়ে ওঠে গোটা সিরিজটি। সিজন ১-এ মেননকে আমরা শুধুমাত্র বুদ্ধির গোড়ায় ধোঁয়া দিতেই দেখেছিলাম। কিন্তু এই সিজনে মেনন তার সঙ্গে সঙ্গে দুর্ধর্ষ অ্যাকশন অবতারেও অবতীর্ণ হয়েছেন। পাশাপাশি হিম্মতের প্রেম, ভালোবাসা, দুঃখ, হতাশা, ব্যর্থতা ও সর্বোপরি নাছোড়বান্দা হার না মানা মনোভাবের অসাধারণ চলচ্চিত্রায়ণ করেছেন মেনন সাহেব। পার্শ্বচরিত্রে সবচেয়ে ভালো লেগেছে স্বল্প উপস্থিতিতে বিনয় পাঠকের আব্বাস শেখকে। বিজয়ের ছোট চরিত্রে আফতাব শিবদাসানিকে একেবারেই মানানসই লাগেনি, সে যতই তিনি সিংহম মার্কা পুরুষালি চওড়া গোঁফ রাখুন না কেন! সবসময় ওই গোঁফের আড়াল দিয়ে যেন আফতাবের শিশুসুলভ ও পর্দার ‘মস্তি’-খোর চেহারাটা বেরিয়ে আসছিল! তবে আদিল খান ও ঐশ্বর্য সুস্মিতার স্ক্রিন প্রেজেন্স বেশ ভালো লাগল। ছোট পার্শ্ব
চরিত্রে গৌতমী কাপুর যথাযথ।

আরও পড়ুন: বিয়ের পর পদবি পরিবর্তন করবেন ক্যাটরিনা!

Special Ops 1.5 teaser: Kay Kay Menon back in action as Himmat Singh-  Cinema express

তবে প্রথম সিজনের মতোই এই সিজনেও ঝকঝকে ক্যামেরার কাজ, দুর্ধর্ষ লোকেশন ও দারুণ অ্যাকশন কোরিওগ্রাফি বজায় রেখেছেন পরিচালক জুটি। দু’টি সিজন দেখার পরে এখন বলাই যায় যে, ঘরে বসে বিশ্বদর্শন করতে গেলে ‘স্পেশাল অপ্স’-এর জুড়ি মেলা ভার। প্রথম সিজনের মতো এই সিজনেও গল্প ভারত, শ্রীলঙ্কা, বাংলাদেশ, রাশিয়া পেরিয়ে ইউক্রেন ও সংযুক্ত আরব আমিরশাহীর সীমানা ছুঁয়েছে। সিনেমাটোগ্রাফি দুর্দান্ত বললেও কম বলা হবে, তার সঙ্গে মানানসই ঝকঝকে কালার গ্রেডিং! ইউক্রেনে নেওয়া ড্রোন শটসগুলি সত্যিই লা-জবাব ছিল!

আরও পড়ুন: আম আদমি পার্টিতে যোগ দিচ্ছেন সোনু সুদ!

Disney+ Hotstar's Special Ops 1.5 Review: Kay Kay Menon Starrer Gets  Personal

সবমিলিয়ে স্বল্প পরিসরে চার এপিসোড জুড়ে ‘স্পেশাল অপ্স ১.৫’ সিজন ১-এর মতো না হলেও যথেষ্ট এন্টারটেইনিং ও মনোগ্রাহী যদি ছোট ছোট কিছু ত্রুটিবিচ্যুতি নজর আন্দাজ করা যায়! শেষ দৃশ্যে ফারুক আলি-রূপী করণ ট্যাকারের ক্যামিও অ্যাপিয়ারেন্স এই বার্তাই দিয়ে যায় যে ‘পিকচার আভি বাকি হ্যায় মেরে দোস্ত’, আবার ফিরে আসবেন হিম্মত সিং সিজন ২.০ নিয়ে।

আরও পড়ুন: পর্ন সিনেমার পর শিল্পা ও রাজ কুন্দ্রার নাম জড়াল আর্থিক জালিয়াতিতে

Special Ops 1.5: The Himmat Story review: Solid performances and an intense  Kay Kay Menon

বিঃদ্রঃ যদি মনে পড়ে তাহলে দেখবেন প্রথম সিজনের আটটি এপিসোড জনপ্রিয় আটটি বলিউড ফিল্মের নামে নামাঙ্কিত ছিল। সেই সিলসিলা সিজন ১.৫-এও বজায় রেখেছেন নীরজ পান্ডে। এবারের চারটি এপিসোডের সবগুলিরই নাম গুলজার সাব পরিচালিত চারটি ছবির নাম য়ে রাখা― আঁধি, মেরে আপনে, লেকিন, ইজাজত। ব্যাপারটি বেশ সুন্দর ও ইউনিক লাগল, তাই আলাদাভাবে উল্লেখ করলাম।

Facebook Twitter Email Whatsapp

এই সংক্রান্ত আরও খবর:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *