তৃণমূল সরকারকে ফাঁসাতে বাংলায় ছড়াতে হবে করোনা, ফাঁস হয়ে গেল BJP নেতাদের গোপন চ্যাট

bjp road show

Mysepik Webdesk: সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি চ্যাটের তথ্য ফাঁস হয়েছে, যেখানে দেখা গিয়েছে রাজ্য সরকারকে ফাঁসাতে পশ্চিমবঙ্গে আরও বেশি বেশি করে করোনা ছড়িয়ে দেওয়ার ছক করেছে BJP নেতারা। ওই চ্যাটে বলা হয়েছে, “যত বেশি লোক একসঙ্গে থাকবে, তত বেশি করোনা ছড়াবে।” যদিও ওই চ্যাটের তথ্যের সত্যতা যাচাই করেনি mysepik.com

আরও পড়ুন: অগাস্টের দ্বিতীয় সপ্তাহে মাধ্যমিক, জুলাইয়ের শেষে উচ্চমাধ্যমিক, ঘোষণা মুখ্যমন্ত্রীর

ওই গ্রুপ চ্যাটের একটি স্ক্রিনশটে দেখা যাচ্ছে, বিজেপির পুরুলিয়া জেলা সভাপতি বিদ্যাসাগর চক্রবর্তী লিখেছেন, সবথেকে ভালো হবে, বেশি করে লোক স্কুলগুলিতে ঢুকিয়ে দাও আর সবাইকে বলে দাও যে সবাই ঘর পাবে। যত বেশি লোক একসঙ্গে থাকবে, (তত) করোনা হবে, আর সরকার ফাঁসবে। প্রতিটি অঞ্চলে খবর দিয়ে দাও।” ওই মেসেজের উত্তরে পুরুলিয়ার সাংসদ জ্যোতির্ময় সিং মাহাতো লেখেন, “আপনি বলে দিন। সেন্ট্রালকে বলে আমি মিডিয়াতে দিয়ে দেব। আমাদের কর্মীদেরকে বলতে হবে বেশি করে ফটো ভিডিয়ো করে।” কাল্টু দা বলে ওই গ্রুপের কেউ একজন এই প্রস্তাবের বিরোধিতা করে লেখেন, “এইটা করা মনে হয় ঠিক হবে না। আমার বিধানসভার tmc জেনে যাবে।” তারপরেই জয়পুরের বিধায়ক নরহরি মাহাতো লেখেন, “ওরা politics করে, আমরাও করব। ভালো সিদ্ধান্ত বিবেক এবং বিদ্যাসাগর।”

আরও পড়ুন: হালিশহরের পর এবার টর্নেডোর তান্ডব অশোকনগরে, এক মিনিটেই তছনছ এলাকা

এই চ্যাটের স্ক্রিনশট প্রথম ফেসবুকে পোস্ট করেন তৃণমূলের মুূখপাত্র দেবাংশু ভট্টাচার্য। তিনি লেখেন, “জনতার আদালতে নির্মমভাবে হেরে গিয়েও যাদের লজ্জা নেই;
এটা বিজেপির পুরুলিয়া জেলার কোর কমিটির হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ। পুরুলিয়া জেলায় যারা থাকেন এই গ্রুপে উপস্থিত প্রত্যেকটি মেম্বারকে আশা করি তারা চেনেন।
মহামারী ও দুর্যোগের এই কঠিন পরিস্থিতিতে রাজ্য সরকারকে বিপদে ফেলার জন্য ঠিক কী প্রকারের নোংরা চক্রান্ত ও ষড়যন্ত্র রচিত হচ্ছে দেখুন! এবং এই রকম একটি ষড়যন্ত্রে লিপ্ত রয়েছেন স্বয়ং নির্বাচিত একজন সাংসদ! স্বয়ং সাংসদ প্ল্যানিং করছেন, কিভাবে Yaas মোকাবিলায় সরকারের তৈরি শেল্টার (স্কুল) গুলিতে বেশি করে লোক ঢুকিয়ে তার এলাকার মানুষকে আরো বেশি করে করোনা রোগে আক্রান্ত করিয়ে রাজ্য সরকারকে বিপদে ফেলা যায়! তাতে তাকে যারা ভোট দিয়ে জিতিয়েছিল, সেই হতভাগ্য মানুষগুলো মরলেও তার কিছু যায় আসে না..
এটা সামনে এসেছে। আরো কত কিছু সামনে আসে না। ঘটনা ঘটে আর আমরা রাজ্য সরকারকে গালাগালি দিতে উঠে পড়ে লেগে যাই! কেউ কল্পনাও করতে পারি না, পেছনে কত বড় বড় নোংরা ষড়যন্ত্র রচিত হয় রোজ!
১৮ টা জল্লাদকে দিল্লি পাঠিয়েছ বাঙালি! বোঝো এবার! ছিঃ;”

Facebook Twitter Email Whatsapp

এই সংক্রান্ত আরও খবর:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *