‘সানফ্লাওয়ার’: অঙ্কুরেই বিনাশ হল ভালো সিরিজ হয়ে ওঠার সম্ভাবনা

Sunflower

অরিন্দম পাত্র

ডার্ক কমেডি ক্রাইম থ্রিলার জঁর ব্যাপারটা এক্সপ্লোর করা কিন্তু খুব সহজ বিষয় না! শুধু ভালো অভিনেতা বা অভিনেত্রী নয়, সাফল্যের সঙ্গে এরকম একটা জঁর এক্সপ্লোর করার জন্য চাই খুব জোরদার আর ভালো একটা গল্প আর ভাল চিত্রনাট্য। কিন্তু সেদিক থেকে ‘সানফ্লাওয়ার’ বেশ হতাশ করল। ছোট্ট একটা গল্পকে চুইংগামের মতো টেনে লম্বা করে বাড়িয়ে তার সঙ্গে একগাদা অনাবশ্যক সাব প্লট যোগ করে কাজের কাজ কিছু হল না! তাই মুখ্য চরিত্রে প্রতিভাবান অভিনেতা সুনীল গ্রোভারের পরিশ্রম মাঠে মারা গেল। ভুল বোঝাবুঝির এলিমেন্টসগুলোর উপর ফোকাস খুব কম পড়ল চিত্রনাট্যে। পাশাপাশি অত্যধিক লম্বা আর প্রলম্বিত চিত্রনাট্য একটা ভালো সিরিজের সম্ভাবনাকে অঙ্কুরেই বিনাশ করল। এত কিছুর পরেও আপনি যখন দেখবেন যে, গল্প শেষ হয় না ৮ এপিসোডের পরেও তখন স্বাভাবিকভাবেই বিরক্তির পারদ ঊর্ধ্বগামী হয়! সেক্ষেত্রে দ্বিতীয় সিজনের জন্য আগ্রহ প্রথম সিজন দেখার পরেই নষ্ট হয়ে যায়!

আরও পড়ুন: উত্তরা থেকে উত্তরণ: একটি সমষ্টিগত যাত্রা

অথচ উপাদান নেহাত কম কিছু ছিল না! একটি হাউসিং সোসাইটিতে একটি অস্বাভাবিক মৃত্যু বা হত্যার তদন্ত নিয়ে শুরু হয় গল্প। তার সঙ্গে সঙ্গে সামাজিক রক্ষণশীলতা বা পিতৃতান্ত্রিক সমাজব্যাবস্থাকে নিয়ে প্রতি পদে ব্যঙ্গ করার মাধ্যমে হাস্যরসাত্মক ভঙ্গিমায় গল্প এগোতে থাকে। কিন্তু প্রয়োজনের অতিরিক্ত চরিত্রের আমদানি, একাধিক অনাবশ্যক সাবপ্লট, মূল গল্প থেকে দূরে সরিয়ে দেয় চিত্রনাট্যের রেলগাড়িকে। ফলত, ৭/৮ এপিসোডে সেই রেলগাড়ি ফের ট্র‍্যাকে ফিরে এলেও ততক্ষণে অনেক দেরি হয়ে যায়! পুরো সিরিজে থ্রিলের ‘থ’ বা কমেডির ‘ক’ খুব কম খুঁজে পাওয়া যায়। স্যাটায়ার বা সার্কাজমের উপাদানগুলি যথেষ্ট শক্তিশালী ছিল না। পাঞ্চলাইন ও ডায়লগও যথেষ্ট দুর্বল ছিল দু’একটা ব্যতিক্রম বাদ দিলে।

আরও পড়ুন: চলে গেলেন স্বাতী নক্ষত্রের নারী

অভিনয়ে ১০০% চেষ্টা করে গেছেন সোনু সিংয়ের ভূমিকায় মুখ্য চরিত্রে সুনীল গ্রোভার। ‘তান্ডব’-এর অসাধারণ পারফরম্যান্সের পরে আরেকবার তিনি হাজির আমাদের সামনে নতুন চরিত্র নিয়ে, নতুন রূপে। কিন্তু তাঁর চরিত্রটি দুর্বল চিত্রনাট্যের শিকার।সিরিয়াস ভঙ্গিমায় তাই যথেষ্ট ভালো কমেডি করলেও শেষমেশ অতটা জমে ওঠেনি সুনীলের প্রচেষ্টা। বাকি চরিত্রগুলিতে বহু ভালো অভিনেতা থাকা সত্ত্বেও কারোর নাম আলাদাভাবে উল্লেখ করতে ইচ্ছে করে না! পুলিশ অফিসার দিগেন্দ্রর রোলে রণবীর শোরের সেভাবে কিছু করার ছিল না, বরং ইন্সপেক্টর তাম্বের চরিত্রে গিরিশ কুলকার্নি নজর কাড়েন। আশিস বিদ্যার্থীর মাপের অভিনেতা ঠিক কী জন্য উপস্থিত ছিলেন, বোঝা গেল না। তবে আহুজার চরিত্রে মুকুল চাড্ডার কাজ খুব ভালো।সিরিজের শুরু আর শেষের টাইটেল মিউজিক খুব ভালো লেগেছে।

দ্বিতীয় সিজন কবে আসবে জানি না, কারণ আমি দেখতে আর আগ্রহী নই অতটা! একই জঁরের আরেকটি ওয়েব সিরিজ গতবছর এসেছিল সোনি লিভ অ্যাপে, ‘এ সিম্পল মার্ডার’। খুব ভালো লেগেছিল। ‘সানফ্লাওয়ার’ ওই মাপের ভালো সিরিজ হবার সম্ভাবনা জাগিয়েও ব্যর্থ হল।

Facebook Twitter Email Whatsapp

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *