বম্বে হাই কোর্টের সিদ্ধান্তকে খারিজ করে সেক্সুয়াল ইন্টেন্টই গুরুত্বপূর্ণ পকসো আইনে জানাল সুপ্রিম কোর্ট

supreme court

Mysepik Webdesk: পকসো আইনের ব্যাখ্যা নিয়ে বম্বে হাই কোর্টের নির্দেশ খারিজ করল সুপ্রিম কোর্ট। ত্বক স্পর্শ না করে নাবালিকার বুকে চাপ দেওয়াকে পকসো আইনের আওতায় আনা যাবে না। যার অর্থ, ত্বকে-ত্বকে সংস্পর্শ না হলে সেই ঘটনাকে পকসো আইন অর্থাৎ, দ্য প্রোটেকশন অব চিলড্রেন ফ্রম সেক্সুয়াল অফেন্সেস আইনে ফেলা যাবে না। গত জানুয়ারি মাসে বম্বে হাইকোর্টের এমনই এক পর্যবেক্ষণে তীব্র বিতর্কের সৃষ্টি হয়েছিল। বম্বে হাইকোর্টের সেই রায় বাতিল করল দেশের সর্বোচ্চ আদালত।

আরও পড়ুন: বিদায় নিতে চলেছে ‘জেনারেল’ কামরা, সম্পূর্ণ সংরক্ষিত বাতানুকূল কোচের ভাবনায় রেল!

এক নাবালিকাকে জামার উপর দিয়ে অশালীনভাবে স্পর্শ করার ঘটনায় বম্বে হাই কোর্টের নাগপুর বেঞ্চ এক ব্যক্তিকে ছাড় দেয়। বলা হয় ত্বকের স্পর্শ না হলে তা পকসো আইনের অন্তর্ভুক্ত হতে পারে না। এই রায় কে ঘিরে দেশে সমালচনার ঝড় ওঠে। মহারাষ্ট্র সরকারও এই রায়ের বিরোধিতা করে এবং সুপ্রিম কোর্টে ভারত সরকারের অবস্থানকে সমর্থন করে। অ্যাটর্নি জেনারেল অফ ইন্ডিয়া, জাতীয় মহিলা কমিশন এবং মহারাষ্ট্র সরকার একসঙ্গে সুপ্রিম কোর্টে এই রায়ের বিরুদ্ধে আবেদন করে। অ্যাটর্নি জেনারেল কেকে বেণুগোপাল বম্বে হাইকোর্টের রায়ের তীব্র বিরোধিতা করে যুক্তি দেন, সংশ্লিষ্ট রায়ের অর্থ হবে “যে কেউ সার্জিক্যাল গ্লাভস পরেও একটি শিশুকে শারীরিক ভাবে নিগ্রহ করতে পারে এবং অনায়াসে ছাড় পেতে পারে!” তিনি আরও যোগ করেন, ‘বম্বে হাইকোর্টের ওই রায় অভূতপূর্ব এবং ভয়ঙ্কর।’

আরও পড়ুন: মাঝ আকাশে অসুস্থ যাত্রীর চিকিৎসা করলেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী, টুইটে শুভেচ্ছা মোদির

বৃহস্পতিবার সুপ্রিম কোর্টে দীর্ঘ শুনানির পরে জাস্টিস উদয় উমেশ ললিত, জাস্টিস এস রবিন্দ্র ভাট এবং জাস্টিস বেলা এম ত্রিবেদির বেঞ্চ রায় দিয়েছে ত্বকের স্পর্শের উপরে লক্ষ রাখলে চলবে না। সবথেকে বেশি গুরুত্বপূর্ণ হল সেক্সুয়াল ইন্টেন্ট। অর্থাৎ কোথায় স্পর্শ করা হচ্ছে, কিভাবে স্পর্শ করা হচ্ছে তা বড় বিষয় নয় আসলে সেক্সুয়াল ইন্টেন্ট বেশি গুরুত্বপূর্ণ।

Facebook Twitter Email Whatsapp

এই সংক্রান্ত আরও খবর:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *