গুগলসের পাতায় উঠে এলেন সাঁতারু আরতি সাহা

Mysepik Webdesk: ১৯৪০ সালের ২৪ সেপ্টেম্বর কলকাতায় জন্মগ্রহণ করেন এক বিস্ময় বালিকা। মাত্র পাঁচ বছর বয়সে সাঁতার কেটে জীবনের প্রথম স্বর্ণপদক পেয়েছিল এই মেয়ে। সেই সময় তাকে প্রশিক্ষণ দিতেন আরও এক কিংবদন্তি সাঁতারু শচীন নাগ। এই বঙ্গ তনয়ার নাম আরতি সাহা। গুগল বৃহস্পতিবার ভারতীয় এই দূরপাল্লার সাঁতারু এবং অলিম্পিয়ান আরতি সাহাকে ডুডুলসের মাধ্যমে সম্মানিত করেছে। এমন দিনে গুগলসের পাতায় উঠে এলেন তিনি। গতকাল ছিল অলিম্পিয়ান আরতি সাহার ৮০তম জন্মবার্ষিকী। উল্লেখ্য যে, ইংলিশ চ্যানেল অতিক্রম প্রথম এশিয়ান মহিলা হলেন এই বঙ্গ তনয়া।

আরও পড়ুন: চলে গেলেন অক্সিজেন সিলিন্ডার ছাড়া ১০ বার এভারেস্ট জয় করা পর্বতারোহী অ্যাং রিতা শেরপা

১৯৫৯ সালের ২৯ সেপ্টেম্বর আরতি সাহা প্রথম মহিলা হিসেবে ইংলিশ চ্যানেলে সাঁতার কাটার কৃতিত্ব অর্জন করেছিলেন। তিনি ১৬ ঘণ্টা ২০ মিনিটের মধ্যে ৬৭.৫ কিলোমিটার দীর্ঘ জলপথ পাড়ি দিয়েছিলেন। ১৯৬০ সালে আরতি সাহা পদ্মশ্রী পুরস্কারে ভূষিত হয়েছিলেন। এই পুরস্কার পাওয়ার পর ভারতের চতুর্থ সর্বোচ্চ বেসামরিক সম্মান অর্জনকারী প্রথম মহিলাও তিনি। ১৯৫২ গ্রীষ্মকালীন অলিম্পিকে উপমহাদেশের প্রতিনিধিত্ব করেছিলেন। তবে আরতি সাহা কেবল দীর্ঘ দূরত্বের ইংলিশ চ্যানেল পেরিয়ে প্রথম এশিয়ান মহিলা হয়ে তাঁর দেশকে গর্বিত করেই থেমে থাকেননি। কিংবদন্তি এই সাঁতারু ফ্রান্সের কেপ গ্রিস নেজ থেকে ইংল্যান্ডের স্যান্ডগেটে ৪২ মাইল সাঁতার কেটেছিলেন। সেখানে ভারতের জাতীয় পতাকা উত্তোলন করেন।

১৯৪৬ থেকে ১৯৫৬ সালের মধ্যে আরতিদেবী বহু সাঁতার প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়েছিলেন। ১৯৪৫ থেকে ১৯৫১ সালের মধ্যে ২২টি রাজ্যস্তরের প্রতিযোগিতায় জয়ী হয়েছিলেন। ১৯৪৮ সালে তিনি মুম্বইতে অনুষ্ঠিত ন্যাশনাল চ্যাম্পিয়নশিপ প্রতিযোগিতায় রুপো ও ব্রোঞ্জ জিতেছিলেন। ১৯৫১ সালে রাজ্যস্তরের প্রতিযোগিতায় ১ মিনিট ৩৭.৬ সেকেন্ডে ১০০ মিটার অতিক্রম করে ডলি নাজিরের রেকর্ড ভেঙে দেন। মাত্র ১১ বছর বয়সে ১৯৫২ খ্রিস্টাব্দে ফিনল্যান্ডের হেলসিঙ্কি অলিম্পিকে তিনি সাঁতারু ডলি নাজিরের সঙ্গে ভারতের প্রতিনিধিত্ব করেছিলেন।

ভারত সরকারের ডাক বিভাগ ১৯৯৯ খ্রিস্টাব্দে তিন টাকা মূল্যের ডাক টিকিট প্রকাশ করে। ২০২০-র ২৪ সেপ্টেম্বর তাঁর ৮০তম জন্মদিন গুগুল এক ডুডল প্রকাশ করে আরতি সাহাকে শ্রদ্ধা জানায়। ডুডলের ছবিটি আঁকেন কলকাতার এক শিল্পী লাবণ্য নাইডু।

Facebook Twitter Email Whatsapp

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *