পাঁচ লক্ষ টাকা মুক্তিপণ দিতে না পারায় শিশুকে খুন করে বাড়ির পাশেই পুঁতে রেখে দিল অভিযুক্ত

Mysepik Webdesk: শিশুকে অপহরণ করে ৫ লক্ষ টাকা মুক্তিপণ দাবি করে অভিযুক্ত ব্যক্তি। কিন্তু সেই টাকা জোগাড় করার আগেই ১২ বছরের শিশুটিকে খুন করে তার বাড়ির পাশেই একটি ঝোপের মধ্যে পুঁতে দেয় অভিযুক্ত প্রতিবেশী যুবক। চমকে যাওয়ার মতো এই নৃশংস ঘটনাটি ঘটেছে দক্ষিণ ২৪ পরগনার জয়নগরের উত্তরপাড়া এলাকায়। এই ঘটনায় তীব্র চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়েছে এলাকায়। পুলিশ ঘটনার তদন্তে নেমে গ্রেফতার করেছে অভিযুক্তকে। পুলিশের জেরার মুখে অভিযুক্ত তার অপরাধ স্বীকার করেছে।

আরও পড়ুন: NEET পরীক্ষার্থীদের জন্য আজ থেকে শুরু হল কলকাতা মেট্রোরেল পরিষেবা

আসল ঘটনার সূত্রপাত গত শুক্রবার থেকে। দুপুর থেকে হটাৎ করে ১২ বছরের শিশু তুষার চক্রবর্তীর (গদাই) কোনও খোঁজ পাওয়া যাচ্ছিল না। এদিকে পরিবারের লোকজন সেদিন রাতভর খুঁজেও ছেলেটির কোনও সন্ধান পায়নি। শনিবার সকালে ওই শিশুটির বাবা ভাস্কর চক্রবর্তীর কাছে একটি অচেনা নম্বর থেকে ফোন আসে। ফোন জানানো হয়, ছেলেকে ফিরে পেতে গেলে ৫ লক্ষ টাকা মুক্তিপণ দিতে হবে। ফোন পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই ভাস্করবাবু থানায় গিয়ে পুলিশকে গোটা ঘটনাটি খুলে বলেন।

আরও পড়ুন: পিছিয়ে গেল ফুলবাগান মেট্রো স্টেশন চালু হওয়ার দিন

পুলিশ তদন্তে নেমে ফোন নম্বরের লোকেশন ট্র্যাক করেও কিছুই জানতে পারে না। তবে সন্দেহ হওয়ায় ভাস্করবাবুর এক প্রতিবেশী মণিরুল শেখকে পুলিশ জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নিয়ে যায়। কলেজে পড়ুয়া মনিরুলকে জেরা করলে সে জেরার মুখে তার অপরাধের কথা স্বীকার করে। মনিরুল পুলিশকে জানিয়েছে, টাকার লোভেই সে একাজ করেছে। শুধু তাই নয়, ভয় পেয়ে গিয়ে সে ইতিমধ্যেই শিশুটিকে খুন করে তার দেহ বাড়ির পাশে ঝোপের মধ্যে পুঁতে দিয়েছে। মনিরুলের কথা অনুযায়ী পুলিশ শিশুটির দেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তে পাঠিয়েছে।

Facebook Twitter Email Whatsapp

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *