পৃথক রাজ্য গঠনে বিজেপির সায় নেই, উত্তরবঙ্গে গিয়ে বললেন দিলীপ

Mysepik Webdesk: দীর্ঘদিন ধরেই বঞ্চনার অভিযোগে উত্তরবঙ্গকে পৃথক রাজ্য ঘোষণা করার দাবি জানিয়ে এসেছেন সেখানকার বাসিন্দারা। কখনও দাবি উঠেছে আলাদা কামতাপুর রাজ্য বানানোর, আবার কখনও দাবি উঠেছে গোর্খাল্যান্ড বানানোর। কয়েকদিন আগেই উত্তরবঙ্গকে কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল গড়ার দাবি জানিয়েছিলেন বিজেপি সাংসদ জন বার্লা। তিনি জানিয়েছিলেন, “উত্তরবঙ্গকে আমরা আলাদা রাজ্য হিসেবে দেখতে চাই। সেই উদ্দেশ্যেই আমরা দিল্লিতে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি এবং কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের কাছে আবেদন জানাব।” এবার এই বিতর্কে নিজের প্রতিক্রিয়া দিলেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ।

আরও পড়ুন: বাংলায় লোকাল ট্রেন চালু হওয়ার বিষয়ে কী জানালেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

শনিবার তিনদিনের জন্য উত্তরবঙ্গ সফরে গিয়েছেন দিলীপ ঘোষ। তাঁকে এই প্রসঙ্গে জিজ্ঞেস করা হলে তিনি সরাসরি এই বিষয়ে বিজেপির পরিকল্পনার কথা জানান। তিনি বলেন, “পৃথক রাজ্য গঠনে বিজেপির সায় নেই। এই বিষয় নিয়ে রাজ্য বা কেন্দ্রীয় বিজেপি নেতৃত্ব কিছুই ভাবেনি।” তিনি আরও বলেন, “এটা ঠিক যে অনেক রাজ্য ভেঙে আলাদা রাজ্য হয়েছে। তবে পশ্চিমবঙ্গের বিষয়ে এই নিয়ে এখনও পর্যন্ত কোনও সিদ্ধান্ত হয়নি।” কিন্তু, আগামী দিনে কী এই বিষয়ে কেন্দ্রের কোনও চিন্তাভাবনা রয়েছে? জিজ্ঞেস করা হলে তিনি জন বার্লার প্রসঙ্গ তুলে বলেন, “পৃথক উত্তরবঙ্গ রাজ্য বা কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল নিয়ে আলিপুরদুয়ারের সাংসদ জন বার্লা নিজের দাবিতে এখনও অটুট। এই দাবিতে দিল্লির কাছেও তিনি সরব হবেন বলে জানিয়েছেন।”

আরও পড়ুন: পড়ুয়াদের জন্য বিশেষ ক্রেডিট কার্ডে ১০ লক্ষ টাকার ঋণের ঘোষণা মমতার

শনিবার থেকে শুরু করে আগামী তিনদিন দিলীপ ঘোষের উত্তরবঙ্গ সফর রাজনৈতিকভাবে খুবই গুরুত্বপূর্ণ বলেই মনে করছেন রাজনৈতিকমহল। কারণ, শুক্রবারই দার্জিলিংয়ের রাজভবনে রাজ্যপালের কাছে বিজেপির জোটসঙ্গী সিপিআরএম, এবিজিএল-সহ গোর্খা রাষ্ট্রীয় কংগ্রেসের প্রতিনিধিরা পৃথক গোর্খাল্যান্ডের দাবি জানিয়েছেন। পাশাপাশি ২০১৯ -এর লোকসভা নির্বাচনে তৃণমূলের চেয়ে বিজেপি অনেকটাই ভালো ফল করেছে উত্তরবঙ্গে। সেখানকার মোট ৮টি আসনের মধ্যে ৭টি আসন দখল করেছে বিজেপি। এছাড়াও একুশে নির্বাচনের ফলাফলে ৫৪টি মধ্যে ৩০টি আসন জিতেছে বিজেপি। তবে বিজেপির কাছে এখন একটাই চ্যালেঞ্জ একজন বিধায়কও যেন দল না ছাড়েন, সেটা নিশ্চিত করা।

Facebook Twitter Email Whatsapp

এই সংক্রান্ত আরও খবর:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *