একনজরে বাংলার বাজেট

Mamata

Mysepik Webdesk: শুক্রবার ভোট অন অ্যাকাউন্ট পেশ করে ‘কৃষকবন্ধু’ প্রকল্পে বরাদ্দ আরও বাড়ালেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ৫০০ কোটি টাকা বরাদ্দ ঘোষণা করার পাশাপাশি তিনি জানালেন, ”কৃষকবন্ধু প্রকল্পের সুবিধা পাবেন চাষিরাও। ৫ হাজার টাকা থেকে বাড়িয়ে ৬ হাজার টাকা করা হল।” এই সুবিধা চলতি বছর জুন মাস থেকে লাগু হবে বলে জানিয়েছেন তিনি। পাশাপাশি, রাজ্যে যাতে কেন্দ্রীয় প্রকল্প ‘কিষাণ সম্মান নিধি’ প্রকল্পের টাকা দেওয়া হয়, তার জন্যকে কেন্দ্রকে অনুরোধ জানানো হয়েছে বলেও দাবি করেন মুখ্যমন্ত্রী। বাংলার কৃষকদের মন পেতে এবং সামগ্রিকভাবে কৃষিক্ষেত্রে সরকারবান্ধব ইমেজ বজায় রাখতে বাজেটে বরাদ্দ বৃদ্ধি করা হল বলে মনে করছেন রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের একাংশ। ‘আপনারা আমাকে বিশ্বাস দিন, আমি আপনাদের সেবা দেব।’ এটাই আমার বক্তব্য রাজ্যের মানুষের কাছে।

আরও পড়ুন: ৬০ বছরের ঊর্ধ্বেদের জন্য পেনশন দেবে রাজ্য সরকার, রাজ্য বাজেটে জানালেন মুখ্যমন্ত্রী

ক নজরে দেখে নেওয়া যাক নির্বাচনের আগে বাজেটে কি বললেন মুখ্যমন্ত্রী

১) ২০২১-২২ অর্থবর্ষে মোট বাজেট প্রায় ৩ লক্ষ কোটি টাকার, পেশ করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

২) দমদমের পর অন্ডাল হবে রাজ্যের দ্বিতীয় আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর, আগামী ২ বছরের মধ্যেই এই বিমানবন্দর আন্তর্জাতিক মানের তৈরি হয়ে যাবে।

৩) গত ১০ বছরে রাজ্যে ১.১৩ কোটি চাকরি হয়েছে। আগামী ৫ বছরে দেড় কোটি লোকের কর্মসংস্থান হবে বলেই ঘোষণা মুখ্যমন্ত্রীর।

৪) পরিবহণ ক্ষেত্রে রোড ট্যাক্স মকুব করা হয়েছে। এই সময়সীমা বাড়িয়ে ৩০ জুন ২০২১ পর্যন্ত মকুব করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হল।

৫) পর্যটন ক্ষেত্রে সুবিধার জন্য ঋণের ক্ষেত্রে সুদের ক্ষেত্রে ছাড় দেবে রাজ্য সরকার।

৬) রাজ্যের সব কাঠের সেতুর পরিবর্তে কংক্রিটের করা হবে।

আরও পড়ুন: বাইপাস থেকে নিউটাউন পর্যন্ত উড়ালপুল তৈরি হবে, রাজ্য বাজেটে জানালেন মুখ্যমন্ত্রী

৭) পশ্চিমবঙ্গ হাইওয়ে ও ব্রিজ কর্পোরেশন তৈরি করা হবে। তারা রাস্তা ও সেতুর রক্ষণাবেক্ষণ করবে।

৮) কলকাতা-সহ সারা রাজ্যের জন্য বহু রাস্তা ও উড়ালপুল তৈরির সিদ্ধান্ত রাজ্যের।

৯) ৬০ বছরের উপরের সকলকে পেনশন ও ১৮ বছরের বেশি বয়সের সব বিধবাদের পেনশন দেওয়া হবে। এর জন্য এক হাজার কোটি টাকা খরচ করা হবে।

১০) ১০ হাজার ছাত্র-ছাত্রীকে বিভিন্ন দফতরে প্রতি তিন বছর অন্তর নেওয়া হবে শিক্ষানবীশ হিসেবে। তার নাম দেওয়া হয়েছে যুবশক্তি প্রকল্প।

১১) ‘দুয়ারে সরকার’ ও ‘পাড়ায় সমাধান’ এবছর থেকে প্রতিবছর দুবার করে হবে।

১২) আইএএস ও আইপিএস পরীক্ষার জন্য বিশেষ প্রশিক্ষণ কেন্দ্র তৈরি করা হবে, এর জন্য ১০ কোটি টাকা খরচ করা হবে।

১৩) ‘স্বাস্থ্য সাথী’ প্রকল্প সারা বছর ধরেই চলবে। এই কার্ড প্রতি তিন বছর অন্তর পুর্ননবীকরণ করা হবে।

আরও পড়ুন: পার্শ্ব শিক্ষকদের নবান্ন অভিযান নিয়ে ধুন্ধুমার কান্ড সুবোধ মল্লিক স্কয়ারে

১৪) ‘মা’ প্রকল্পের জন্য সারা রাজ্যে স্বল্প মূল্যে খাবার পাওয়া যাবে, ১০০ কোটি টাকা বরাদ্দ করা হল।

১৫) কলকাতা পুলিশে একটি নতুন ‘নেতাজি ব্যাটেলিয়ন’ প্রকাশ করা হল, ১০ কোটি টাকা করা হল।
নেতাজি যোজনা কমিশন’ গঠন করা হল, ৫০০ কোটি টাকা খরচ করা হবে। 

১৬) প্রতি জেলায় ‘জয়হিন্দ ভবন’ তৈরি। এর জন্য ১০০ কোটি টাকা খরচ করা হবে।

১৭) নেতাজির জন্মজয়ন্তীতে ‘আজাদ হিন্দ স্মারক’ তৈরি করা হবে, ১০০ কোটি টাকা বরাদ্দ করা হল।

১৮) উদ্বাস্তু পুর্নবাসন এলাকার জন্য সার্ভে করা হচ্ছে, ৩০ হাজারের বেশি দলিল দেওয়া হয়েছে।

১৯) ১০ লক্ষ স্বনির্ভর গোষ্ঠীর জন্য ২৫ হাজার কোটি টাকার ঋণের ব্যবস্থা করা হল। এই প্রকল্পের নাম ‘মাতৃ বন্দনা’। ঘোষণা করলেন মুখ্যমন্ত্রী। 

২০) কৃষকবন্ধুদের বার্ষিক অনুদান ৫ হাজার টাকাকে বাড়িয়ে ৬ হাজার টাকা করা হল। আর এক একরের কম জমি হলে ২ হাজার টাকা থেকে বাড়িয়ে ৩ হাজার টাকা করা হল।

২১) তফশিলি ও আদিবাসীদের জন্য ২০ লক্ষ পাকা বাড়ি তৈরি করে দেওয়া হবে।

২২) ২০০ টি রাজবংশী ভাষার স্কুল করা হবে। তার জন্য ১,৫০০ কোটি টাকা খরচ করা হবে।

২৩) চা বাগান এলাকায় ১০০টি সার্থি ভাষার জন্য নতুন স্কুল করা হবে।

২৪) নেপালি-উর্দু- কুরমালি ভাষার জন্য ৫০ টি নতুন স্কুল করা হবে।

২৫) অলচিকি ভাষার ১৫০ নতুন স্কুল ও দেড় হাজার পাশ্বশিক্ষক করা হবে।

২৬) তফশিলি-আদিবাসীদের জন্য ১০০টি ইংরেজি মাধ্যম স্কুল সারা রাজ্যে।

Facebook Twitter Email Whatsapp

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *