কেন্দ্রীয় সরকারকে দেখতে হবেনা বাংলার কৃষকরা কেমন আছেন: ফিরহাদ হাকিম

Firhad

Mysepik Webdesk: এদিন হাজরায় প্রাথমিক স্বাস্থ্য কেন্দ্র উদ্বোধন করলেন কলকাতা পুরসভার প্রশাসক ফিরহাদ হাকিম। পাশাপাশি সেখানে উপস্থিত ছিলেন দক্ষিণ কলকাতার তৃণমূল নেত্রী মালা রায়ও। এদিন ফিরহাদ হাকিমকে তাঁর মেয়ের প্রসঙ্গে প্রশ্ন করা হলে তিনি এদিন সরাসরি দোষী সাব্যস্ত করলেন মিডিয়া ও সাংবাদিকদের। তিনি জানিয়েছেন কিছু নিচুতলার ও নিম্নমানের সাংবাদিক নেতাদের বাড়ির লোককে কলঙ্কিত করার জন্য এমন চটপটে নিউজ বানিয়ে থাকেন। যার কোনো ভিত্তি নেই। তিনি খোঁজ খবর নিয়ে দেখেছেন এমন কোন কিছুই নেই এবং কোনো নোটিশ পাঠানো হয়নি। যদি এমন কিছু হয়ে থাকে তাহলে ইনকাম ট্যাক্স অফিসাররা এসে সব বিষয়ে তদন্ত করুক। এমনটাও তিনি জানিয়েছেন।

আরও পড়ুন: খাদ্য ভবনের সামনে স্যালাইনের বোতল নিয়ে কেরোসিন ডিলারদের বিক্ষোভ

পাশাপাশি তিনি জানিয়েছেন আসলে কিছু সাংবাদিক বন্ধু তারা চটপটে নিউজ বানাতে চান এবং নেতাদের বাড়ির লোক সম্পর্কে নিম্নমানের কথা বলতে চান সমাজে। তিনি জানিয়েছেন যে সমস্ত নেতারা রাজনীতিবিদ আছেন তাঁরা রাজনীতি করেন তাঁদের বাড়ির লোক তারা মোটেও রাজনীতি করেন না। তাই তাঁদেরকে এই সবের মধ্যে টেনে নিয়ে আসা একেবারেই উচিত নয়। তাই পুরো বিষয়টি জেনে তারপরই মন্তব্য করা উচিত বলে তিনি জানিয়েছেন।

আরও পড়ুন: নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসের দাম বাড়ার প্রতিবাদে ইন্ডিয়ান সেকুলার ফ্রন্টের প্রতিবাদ মিছিল

সেইসঙ্গে এদিন তিনি কেন্দ্রীয় সরকারকে একহাত নিয়েছেন। তিনি জানিয়েছেন কেন্দ্রীয় সরকারকে দেখতে হবেনা বাংলার কৃষকরা কেমন আছেন বা পরিযায়ী শ্রমিকরা কেমন আছে। কারণ বাংলার কৃষকরা ভালই আছে বলে তিনি জানিয়েছেন এবং করোনার সময় যে সমস্ত পরিযায়ী শ্রমিকরা এসেছিলেন তারাও ভালো আছেন। তাদের দায়িত্ব রাজ্য সরকার নিয়েছে। কেন্দ্র সরকারের উচিত দিল্লি হরিয়ানাতে যে সমস্ত কৃষকরা আন্দোলন চালিয়ে যাচ্ছেন তাঁদের সম্পর্কে আলোকপাত করা। তাঁরা দীর্ঘদিন ধরে তাঁদের পরিবার নিয়ে অনশন চালিয়ে যাচ্ছেন কেন্দ্রীয় সরকারে সেই দিকে নজর দেওয়া উচিত বলে তিনি জানিয়েছেন। বাংলার দিকে নজর না দিলেও চলবে। কারণ বাংলার মানুষজন ভালই আছেন কারণ বাংলায় মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তাদের দায়িত্বভার গ্রহণ এবং তাদেরকে কাজের বন্দোবস্ত করে দিয়েছেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

Facebook Twitter Email Whatsapp

এই সংক্রান্ত আরও খবর:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *