লখনউয়ে ২৪ ঘন্টা জ্বলছে শ্মশান, আড়াল করতে ঢেকে দেওয়া হল টিন দিয়ে

Mysepik Webdesk: মাত্রা ছাড়িয়ে যাচ্ছে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ। বিশেষজ্ঞদের মতে ভারতে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ আমেরিকার চেয়ে দ্রুত গতিতে ছড়িয়ে পড়ছে। আক্রান্ত হওয়ার পাশাপাশি মৃত্যু ঘটছে বহু মানুষের। এই পরিস্থিতিতে হাসপাতালে দেখা গিয়েছে বেডের অভাব। ধীরে ধীরে ভেঙে পড়ছে চিকিৎসা পরিষেবা। চারিদিকে মৃত্যু হচ্ছে বহু মানুষের। ভারতের স্বাস্থ্য দপ্তরের রিপোর্ট অনুযায়ী, গত ২৪ ঘন্টায় দেশজুড়ে নতুন করোনা সংক্রমিত হয়েছেন ২,১৭,৩৫৩ জন। মৃত্যু হয়েছে ১,১৮৫ জনের। এই পরিস্থিতিতে দিশেহারা মানুষ।

আরও পড়ুন: একদিনেই ভারতে করোনা আক্রান্ত ২ লক্ষ ১৭ হাজারেরও বেশি

উত্তরপ্রদেশের রাজধানী লখনউয়ে সম্প্রতি দেখা গেল এমনি একটি দৃশ্য যা দেখে আটকে উঠছেন মানুষ। উত্তরপ্রদের সরকারের বিরুদ্ধে অভিযোগ, ওই রাজ্যে বেশ কিছুদিন ধরেই সরকার চেপে যাচ্ছে করোনায় মৃত্যুর সংখ্যা। সরকারি রিপোর্টে যতগুলি মৃত্যুর কেস দেখানো হয়েছে, বাস্তবে মৃত্যু হচ্ছে আরও অনেক বেশি মানুষের। সম্প্রতি লখনউয়ের বেশ কয়েকটি শ্মশানে দেখা গিয়েছে, সেখানে ২৪ ঘন্টা ধরে দাহ করা হচ্ছে মৃতদেহ। এরকমই বেশ কিছু ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে, যা দেখে কার্যত আঁতকে উঠছেন সাধারণ মানুষ।

আরও পড়ুন: করোনার বাড়বাড়ন্ত, রাজস্থানে সন্ধে ৬টা থেকে সকাল ৫টা পর্যন্ত কার্ফু

সোশ্যাল মিডিয়ায় ওই ছবিগুলি ভাইরাল হতেই নড়েচড়ে বসেছে প্রশাসন। সাধারণ মানুষের চোখের আড়াল করার জন্য ওই শ্মশানগুলিকে ঢেকে দেওয়া হচ্ছে নীল রঙের টিন দিয়ে। পাশাপাশি শ্মশানের বাইরে নোটিশ টাঙিয়ে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, বিনা অনুমতিতে শ্মশান চত্বরে কারোর প্রবেশ নিষেধ, কারণ এটি করোনা আক্রান্ত এলাকা। এই ঘটনা সামনে আসতেই যোগী সরকারের নিন্দা করে সরব হয়েছেন কংগ্রেস নেত্রী প্রিয়াঙ্কা গান্ধি বঢ়ড়া। টুইট করে তিনি লিখেছেন, “উত্তরপ্রদেশ সরকারের কাছে অনুরোধ, এই পরিস্থিতিকে গোপন করতে সময়, সম্পদ এবং শক্তি ব্যয় করা বৃথা। মহামারী রোধ করতে, জীবন বাঁচাতে এবং সংক্রমণ রুখতে যথাযথ পদক্ষেপ গ্রহণ করুন।”

আরও পড়ুন: কাশ্মীরে খাদ্য সংস্কৃতি বিকাশের লক্ষ্যে এবার দায়িত্বে মাস্টার শেফ ইন্ডিয়ার বিজয়ী পঙ্কজ ভাদোরিয়া

Facebook Twitter Email Whatsapp

এই সংক্রান্ত আরও খবর:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *