Latest News

Popular Posts

সমুদ্রগর্ভে তলিয়ে গিয়েছে পৃথিবীর অষ্টম মহাদেশ!

সমুদ্রগর্ভে তলিয়ে গিয়েছে পৃথিবীর অষ্টম মহাদেশ!

Mysepik Webdesk: আমরা জানি পৃথিবীতে মোট সাতটি মহাদেশ রয়েছে। কিন্তু, এই সাতটি মহাদেশ ছাড়াও পৃথিবীতে আরও একটি মহাদেশের অস্তিত্ব আছে। ষাটের দশকে বিজ্ঞানীরা পৃথিবীর বুকে আরও একটি মহাদেশের সন্ধান পেয়েছেন। এর নাম জিল্যান্ডিয়া (Zealandia)। বিজ্ঞানীরা আরও জানাচ্ছেন, জিল্যান্ডিয়া পৃথিবীর অষ্টম মহাদেশ হিসেবে স্বীকৃতি পাওয়ার যোগ্য। তাঁদের মতে, জিল্যান্ডিয়া বর্তমানে দক্ষিণ-পশ্চিম প্রশান্ত মহাসাগরের জলের নিচে তলিয়ে গিয়েছে। এই মহাদেশের নাম দেওয়া হয়েছে নিউজিল্যান্ড ও ইন্ডিয়া, এই দুই দেশের নামানুসারে। ষাটের দশকে সমুদ্রগর্ভে তেলের সন্ধান করতে গিয়ে এই অঞ্চলটি আবিষ্কৃত হয়।

আরও পড়ুন: রকেটের দিন ফুরোলো! মহাকাশে যেতে ব্যবহার করা হবে ‘স্পেস এলিভেটর’

বিজ্ঞানীদের ধারণে, প্রায় সাত থেকে আট কোটি বছর আগে জিল্যান্ডিয়া অস্ট্রেলিয়ার মূল ভূখণ্ড থেকে আলাদা হয়ে যায়। এরপর এটি ক্রমশও আরও জলের গভীরে নিমজ্জিত হতে থাকে। বর্তমানে জিল্যান্ডিয়ার একটি অংশই শুধু স্থলভাগে রয়েছে, যেখানে বর্তমানে নিউজিলান্ডের অবস্থান। বাকি অংশটা পুরোটাই জলের নিচে ডুবে আছে। অর্থাৎ নিউজিল্যান্ডই হল আসলে জলের নিচে তলিয়ে যাওয়া অষ্টম মহাদেশের একটি ছোট অংশ। এছাড়াও নিউজিল্যান্ড জলের ওপরে থাকা অংশগুলির মধ্যে রয়েছে নিউ ক্যালিডোর্নিয়া, নরফক আইল্যান্ড, লর্ড গোয়ে আইল্যান্ড এবং এলিজাবেথ-মিডলটন প্রবাল প্রাচীর।

আরও পড়ুন: বড়দিনে লঞ্চ হল দুনিয়ার সবচেয়ে শক্তিশালী টেলিস্কোপ

পৃথিবীর এই অষ্টম মহাদেশ নিয়ে বহু-বিজ্ঞানীরা বেশ কয়েক বছর ধরেই গবেষণা করে আসছেন। অবশেষে ২০১৭ সালে এই চাঞ্চল্যকর বিষয়গুলি সামনে আসে। ২০১৭ সালে জিওলজিক্যাল সোসাইটি অফ আমেরিকার একটি প্রবন্ধে বলা হয়েছে, জিল্যান্ডিয়ার আয়তন ৫০ লক্ষ বর্গ কিলোমিটাররের কাছাকাছি, যা পাশে থাকা অস্ট্রেলিয়ার প্রায় দুই তৃতীয়াংশের সমান। তাছাড়া এটি ভারতীয় উপমহাদেশের প্রায় সমান। অতর্থাৎ এই বিশ্বের একটি মহাদেশের অর্ধেকেও বেশি একটি অংশ সমুদ্রগর্ভেই লুকিয়ে আছে। তবে, জিল্যান্ডিয়াকে মহাদেশ হিসেবে ঘোষণা করা নিয়ে রয়েছে নানা বিতর্ক। বহু-বিজ্ঞানীদের একাংশের মতে, জলের নিচে ডুবে থাকা জায়গাকে কীভাবে মহাদেশ হিসেবে গণ্য করা যায়। কারণ, মহাদেশ হিসেবে গণ্য করার জন্য কোনও জায়গাকে স্থলভাগে অবস্থান করা জরুরি।

আরও পড়ুন: এলন মাস্কের রকেটে চড়ে মহাকাশে যাবেন প্রথম রাশিয়ান মহিলা

তবে, বহু-বিজ্ঞানীদের অন্য এক দল দাবি করেন, কোনও এলাকায় মহাদেশ হিসেবে স্বীকৃতি দেওয়ার জন্য মূলত চারটি কারণেই যথেষ্ট। প্রথমত, ওই অঞ্চলকে আশেপাশের অঞ্চল থেকে উঁচু হতে হবে। দ্বিতীয়ত, সুস্পষ্ট কিছু বহু-প্রাকৃতিক বৈশিষ্ট থাকতে হবে। তৃতীয়ত, এলাকার একটি সুনির্দিষ্ট সীমারেখা থাকতে হবে এবং সবশেষে সমুদ্র তলদেশের চেয়েও মোটা ভূ-স্তর থাকতে হবে। ভূ-বিজ্ঞানীরা প্রমান পেয়েছেন যে, জিল্যান্ডিয়ার মধ্যে এই চারটি গুনই বিদ্যমান। তবে, এখনও পর্যন্ত জিল্যান্ডিয়াকে মহাদেশ হিসেবে গণ্য করা না হলেও আগামী দিনে এই অঞ্চলকে মহাদেশ হিসেবে গণ্য করা হবে কিনা, সেটাই এখন দেখার বিষয়।

Related Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *