ভবানীপুর উপনির্বাচন নিয়ে কলকাতা হাইকোর্টের চরম ভর্ৎসনার মুখে নির্বাচন কমিশন

high court

Mysepik Webdesk: ভবানীপুর উপনির্বাচন নিয়ে কলকাতা হাইকোর্টের চরম ভর্ৎসনার মুখে নির্বাচন কমিশন।  নির্বাচন কমিশনের উদ্দেশ্যে হাইকোর্ট বলেছিল, সাংবিধানিক বাধ্যবাধকতা একটি উপনির্বাচনে কীভাবে তৈরি হল, তা জানিয়ে হলফনামা জমা দিক নির্বাচন কমিশন। হাইকোর্টের ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি রাজেশ বিন্দাল মন্তব্য করেন, ‘মামলা দায়েরের এতদিন পরেও প্রশ্নের কেন উত্তর নেই কমিশনের কাছে? নির্বাচন কমিশনের হলফনামা ত্রুটিপূর্ণ ও ভুলে ভরা’।

আরও পড়ুন: কড়েয়া এলাকার বিস্ফোরণের তদন্তভার দেওয়া হোক NIA -কে, দাবি তথাগতর

কেন ভবানীপুরেই শুধু উপনির্বাচন-সহ বিভিন্ন প্রশ্ন তুলেছেন ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি। সূত্রের খবর, সেসব প্রশ্নের উত্তর দিতে পারেননি নির্বাচন কমিশনের আইনজীবী। এই মামলার শুনানি আজ শেষ হয়ে গেল। তবে রায়দান স্থগিত রেখেছে ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতির ডিভিশন বেঞ্চ। ভবানীপুর উপনির্বাচন নিয়ে দায়ের হওয়া জনস্বার্থ মামলার প্রেক্ষিতে আদালত এদিন প্রশ্ন করে, ‘একটি আসনের জন্যই সংবিধান আর আইনের বাধ্যবাধকতা? মুখ্যসচিব কীভাবে লেখেন সাংবিধানিক সংকটের কথা? মুখ্যসচিবের চিঠির ভিত্তিতে কীভাবে পদক্ষেপ নিতে পারে নির্বাচন কমিশন?’

আরও পড়ুন: তীব্র বিস্ফোরণে কেঁপে উঠল কড়েয়া থানার আহিরিপুকুর এলাকা

শুধু তাই নয়, নির্দিষ্টভাবে ভবানীপুরের প্রসঙ্গ উত্থাপন করে কলকাতা হাইকোর্টের ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি রাজেশ বিন্দালের ডিভিশন বেঞ্চ ক্ষোভের সঙ্গে বলে, ‘একটি আসনের জন্যই সংবিধান আর আইনের বাধ্যবাধকতা? একজন নির্বাচনে জিতে পদত্যাগ করবেন, তাঁর জায়গায় আরেকজন ভোটে দাঁড়াবেন!’ শুধু তাই নয়, এদিন নির্বাচন কমিশনের কাছে হাইকোর্ট প্রশ্ন করে, ‘একটি উপনির্বাচন করতে কত টাকা খরচ হয়?’ সেই প্রশ্নের উত্তর দিতে প্রস্তুত ছিলেন না কমিশনের আইনজীবী।এরপর মামলার প্রথম অংশের শুনানি শেষ করে দেন বিচারপতিরা। রায়দান স্থগিত রাখেন।

Facebook Twitter Email Whatsapp

এই সংক্রান্ত আরও খবর:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *