রাজ্য নিয়ে রাজ্যপালের ইঙ্গিতপূর্ণ টুইট

Mysepik Webdesk: নারদ মামলায় তৃণমূল কংগ্রেসের চার নেতা-মন্ত্রীকে গ্রেফতারের ঘটনার পর দক্ষযজ্ঞ বেঁধে গিয়েছে কলকাতা। কেন্দ্রীয় বাহিনীর সঙ্গে তৃণমূল কংগ্রেসের কর্মীদের মধ্যে হাতাহাতি রীতিমতো খণ্ডযুদ্ধের চেহারা নেয়। নিজাম প্যালেসের সিবিআই দপ্তরের সামনে পরিস্থিতি কার্যত রণক্ষেত্রের আকার ধারণ করে। এমন পরিস্থিতিতে পশ্চিমবঙ্গের রাজ্যপাল জগদীপ ধনকর টুইট করেন, “এই নৈরাজ্যের পরিণতি কী হতে পারে, তা আশা করি বুঝতে পারছেন আপনারা।”

আরও পড়ুন: ‘আইন ভাঙছেন মুখ্যমন্ত্রীই’, FIR দায়ের দিলীপ ঘোষের

তিনি আরো লেখেন, “উদ্বেগজনক পরিস্থিতিতে উদ্বিগ্ন।” সংবিধানিক নিয়মাবলি এবং আইনের শাসন অনুসরণ করার কথা তিনি বলেন। আইন-শৃঙ্খলা বজায় রাখতে অবশ্যই সমস্ত পদক্ষেপ গ্রহণ করতে হবে বলে জানিয়েছেন রাজ্যপাল। তিনি লেখেন, “নৈরাজ্য চলছে রাজ্যে। নীরব পুলিশ প্রশাসন। পরিস্থিতি অগ্নিগর্ভ। হাতের বাইরে চলে যাচ্ছে তা। টিভিতে দেখছি, সিবিআই অফিস লক্ষ্য করে ইট-পাথর ছোড়া হচ্ছে। বিক্ষোভ দেখানো হচ্ছে আগুন জ্বালিয়ে। দর্শকের ভূমিকায় থাকা পুলিশকে দেখে করুণা হচ্ছে।”

আরও পড়ুন: ভার্চুয়াল শুনানি হবে গ্রেপ্তার চার নেতার

এদিকে তৃণমূল কংগ্রেসের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, “প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি এবং কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ এই গোটা ঘটনার নেপথ্যে রয়েছেন বলে আমাদের ধারণা। বিধানসভা নির্বাচনে ব্যর্থ হয়েছেন তাঁরা। তাই আমাদের নেতাদের ভাবমূর্তি নষ্ট করবার জন্য এই পন্থা অবলম্বন করেছেন তাঁরা।” রাজ্যপালের বিরুদ্ধে সরব হয়ে তৃণমূল এক চিঠিতে প্রশ্ন তুলেছেন, “রাজ্যপাল কাউকে গ্রেপ্তারের জন্য সিবিআইকে কিভাবে নির্দেশ দিতে পারেন?” তাছাড়াও শুভেন্দু অধিকারী এবং মুকুল রায় কীভাবে বহাল তবিয়তে ঘুরে বেড়াচ্ছেন, তাদেরকে গ্রেফতারই বা করা হয়নি কেন, সেই প্রশ্নও তুলেছেন তৃণমূল নেতৃত্ব। তবে রাজ্যপালের এহেন টুইট যথেষ্ট ইঙ্গিতপূর্ণ বলে মনে করছেন ওয়াকিবহাল মহল।

Facebook Twitter Email Whatsapp

এই সংক্রান্ত আরও খবর:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *