করোনা প্যান্ডেমিকের পর প্রথম টুর্নামেন্ট খেলার জন্য প্রস্তুত ভারতীয় মহিলা ফুটবল দল

Mysepik Webdesk: ভারতের সিনিয়র মহিলা ফুটবল দল কোভিড-১৯ মহামারির পর প্রথম টুর্নামেন্টের জন্য প্রস্তুত। তারা ১৭ ফেব্রুয়ারি থেকে তুরস্কের অ্যালানায় তিনটি আন্তর্জাতিক প্রীতি ম্যাচ খেলবে। ১৭ ফেব্রুয়ারি সার্বিয়ার বিপক্ষে প্রথম ম্যাচের পরে ভারতীয় দল ১৯ ফেব্রুয়ারি রাশিয়ার সঙ্গে এবং ২৩ ফেব্রুয়ারি ইউক্রেনের মুখোমুখি হবে। দলটি গত দুই মাস ধরে গোয়ায় প্রস্তুতি নিচ্ছে। জাতীয় প্রমীলা ব্রিগেডের কাছে এই আন্তর্জাতিক ম্যাচগুলি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ, কারণ ভারতকে পরের বছর ২০ জানুয়ারি থেকে ৬ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত মহিলা এশিয়ান কাপের আয়োজক হিসাবে দায়িত্ব সামলাতে হবে।

আরও পড়ুন: কাল শুরু দ্বিতীয় টেস্ট, সমর্থকদের উন্মাদনা তুঙ্গে, সোশ্যাল ডিস্ট্যান্সিং শিকেয়

প্রমীলা বাহিনীর প্রধান কোচ মেমুল রকি জানিয়েছেন, তুরস্কের ম্যাচগুলি থেকে তারা মহামারির কারণে দীর্ঘ বিরতির পর ম্যাচ ফিটনেসের জন্য তাদের খেলোয়াড়রা কী অবস্থায় আছেন, তা দেখতে সক্ষম হবেন। তিনি বলেন, “আমাদের দলটি তরুণ এবং প্রতিভাশালী। এটি একটি দীর্ঘ সময় পর আমাদের প্রথম টুর্নামেন্ট হবে। তবে মেয়েরা নিজেদের প্রমাণ করতে মরিয়া। আমরা ইউরোপীয় দলের বিপক্ষে খেলব। এটি সহজ হবে না। তবে আমরা চ্যালেঞ্জের জন্য প্রস্তুত আছি।”

মেমুল আরও বলেন, “ইউরোপের শক্তিশালী দলগুলির বিরুদ্ধে খেলা আমাদের এশিয়ান কাপের জন্য তৈরি করতে সাহায্য করবে। এখানকার অভিজ্ঞতা মেয়েদের জন্য গুরুত্বপূর্ণ হবে।” অনেক খেলোয়াড় ভারতীয় দলে জায়গা পেয়েছেন, যাঁরা ফিফার অনূর্ধ্ব-১৭ মহিলা বিশ্বকাপে ভারতীয় দলের অংশ ছিলেন। প্রসঙ্গত উল্লেখযোগ্য যে, করোনা প্যান্ডেমিকের কারণে তা বাতিল হয়ে যায়। এর বদলে ভারতকে ২০২২ টুর্নামেন্টের হোস্টিংয়ের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।

আরও পড়ুন: এক বছরে ষষ্ঠ শিরোপা হিসাবে ক্লাব বিশ্বকাপ জিতল বায়ার্ন মিউনিখ

দলটি নিম্নরূপ:

গোলরক্ষক: মাইবাম লিন্থোইম্বম্বি দেবী, সৌম্য নারায়ণস্বামী।

ডিফেন্ডার: লোয়েটংবাউম আশালতা দেবী, এনাঙ্গাংবাউম সুইটি দেবী, ঋতু রানি, সোরোখাইবাউম রঞ্জনা চানু, ওয়াংখেম লিনথোয়ানগাম্বি দেবী, কৃতিনা দেবী থোনোজম।

মিডফিল্ডার: মণীশ, সংগীতা বাসফরফ, সুমিত্রা কামরাজ, প্যারি শশা।

ফরোয়ার্ড: অঞ্জু তামাং, ইন্দুমথি কাঠিরসন, সৌম্য গুগুলোথ, দেংমেই গ্রেস, কারিশমা পুরুষোত্তম শিরভাইকার, সন্ধ্যা রাঙ্গনাথন, হিগরুজাম দয়া দেবী এবং সুমতি কুমারী।

Facebook Twitter Email Whatsapp

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *