Latest News

Popular Posts

ভ্যাকসিন বিতর্কে জোকার: বিতর্ক এখন টেনিস কোর্ট ছাপিয়ে রাজনীতির আঙিনায়

ভ্যাকসিন বিতর্কে জোকার: বিতর্ক এখন টেনিস কোর্ট ছাপিয়ে রাজনীতির আঙিনায়

Mysepik Webdesk: অস্ট্রেলিয়ান ওপেন শুরু হচ্ছে আগামী ১৭ জানুয়ারি। তার আগে বিশ্বের এক নম্বর টেনিস খেলোয়াড় নোভাক জোকোভিচ ও অস্ট্রেলিয়া সরকারের ভ্যাকসিনের নিয়ম নিয়ে রীতিমতো ধুন্ধুমার কিছুতেই থামছে না। করোনার টিকা না নিয়ে অস্ট্রেলিয়ান ওপেন খেলতে মেলবোর্নে পৌঁছেছেন ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন জোকোভিচ। এদিকে অস্ট্রেলিয়া তাঁর ভিসা বাতিল করেছে। এরপর জকোভিচকে মেলবোর্নের পার্ক ইন হোটেলে রাখা হয়েছে। এই হোটেলটিকে অভিবাসন মামলায় আটকে থাকা মানুষের কারাগারও বলা হয়। অর্থাৎ এখানে এমন লোকদের রাখা হয়েছে যারা ভিসা, পাসপোর্ট সংক্রান্ত বিষয়ে আটকে পড়েছেন বা আশ্রয়ের আশায় অস্ট্রেলিয়ায় প্রবেশ করেছেন। এককথায় শরণার্থীদের সঙ্গে রাখা হয়েছে জোকোভিচকে।

আরও পড়ুন: অ্যাশেজ: উত্তেজনায় ভরা ড্র ম্যাচে চার বছর পর আন্তর্জাতিক টেস্ট উইকেট নিলেন স্টিভ স্মিথ

এখন হোটেল পার্কে বিভিন্ন দেশের ৩২ জন লোক অবরুদ্ধ। এর মধ্যে কয়েকজন আবার প্রশাসনের অনুমতি ছাড়া বাইরে বেরোতে পারেন না। সবসময় পাহারার মধ্যে এঁদের থাকতে হয় একটি ছোট ঘরে। কখনও কখনও যে খাবার তাঁদের খেতে দেওয়া হয়, সেখানে পাওয়া যায় পোকামাকড়। আবার যে কামরায় তাঁদের থাকতে দেওয়া হয়, তাও বেশ অপরিচ্ছন্ন। এমনই অভিযোগ এখানে আটক লোকজনরা বহুবার করেছেন।

অস্ট্রেলিয়ান ওপেন জোকোভিচের কাছে খুবই লাকি। তিনি এখনও পর্যন্ত ৯ বার অস্ট্রেলিয়ান ওপেন-সহ মোট ২০ বার গ্র্যান্ড স্ল্যাম জিতেছেন ‘জোকার’। গতবারও চ্যাম্পিয়ন হয়েছিলেন তিনি। জোকোভিচও সবসময় এই টুর্নামেন্ট খেলতে চান। তবে, জোকোভিচ ভ্যাকসিন নেবেন না বলে জেদ ধরেছেন। তাঁকে একপ্রকার ‘ভ্যাকসিন বিরোধী’ও বলছেন অনেকেই। অন্যদিকে, অস্ট্রেলিয়ার কঠোর ভ্যাকসিন বিধি অস্ট্রেলিয়া ওপেনে তাঁর বিজয়ী হওয়ার পথে বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছে।

আরও পড়ুন: করোনার দাপটে স্থগিত হয়ে গেল এটিকে মোহনবাগান-ওড়িশা এফসির ম্যাচ

টিকা না নিলেও খেলার ব্যাপারে তাঁর অধিকার রয়েছে বলে অনড় জোকোভিচ। একইসঙ্গে অস্ট্রেলিয়া সরকার বলেছে, কোনও এক ব্যক্তির জন্য নিয়ম পরিবর্তন করা যাবে না। এটা গোটা দেশকে মহামারি থেকে রক্ষা করার ব্যাপার। এমনিতেও যাঁদের টিকাকরণ হয়নি, অস্ট্রেলিয়ায় প্রবেশ নিষিদ্ধ। এছাড়াও দেশটিতে কোয়ারেন্টাইনের নিয়মগুলিও খুব কঠোর।

বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে জোকোভিচ এই বিষয়ে সমর্থন এবং বিরোধিতা দুটোই পাচ্ছেন। সমর্থকরা বলছেন, কোনও নিয়মই এত কঠোর হওয়া উচিত নয়। জোকোভিচের যদি করোনা না থাকে এবং তিনি অন্যদের জন্য বিপদ না হন, তাহলে তাঁর খেলার সুযোগ পাওয়া উচিত। এদিকে জোকোভিচ জানিয়েছেন, তিনি আগেও করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। তাই তাঁর জন্য ভ্যাকসিন প্রয়োজন হবে না। তবে আরও একদল বলছে, জোকোভিচের মতো মানুষরা অ্যান্টি-ভ্যাকসিন প্রচারের অংশ। করোনাকে হারাতে ভ্যাকসিন প্রয়োজন। তাই সেলিব্রেটিরা এ-ধরনের প্রতিবাদ করলে সমাজের কাছে ভুল বার্তা যাবে।

তবে, জেলের মতো হোটেলে জোকোভিচকে রাখার বিরোধিতা করছেন অনেকেই। এই বিষয়ে তাঁরা প্রতিবাদ করছেন। শত হলেও একজন টেনিস খেলোয়াড়ের সঙ্গে ভাল আচরণ করা উচিত বলেও দাবি তাঁদের। এদিকে, জোকোভিচ হোটেলে যে ত্রুটি রয়েছে, সেই অভিযোগ করেছিলেন। এমনকী তিনি ভাড়া করা অ্যাপার্টমেন্টে যাওয়ার অনুমতি চেয়েছিলেন। তবে অস্ট্রেলিয়ার কর্তৃপক্ষ সেই দাবি নাকচ করে দিয়েছে।

জোকোভিচ ফোন এবং ইন্টারনেটের মাধ্যমে তাঁর আইনজীবীদের সঙ্গে যোগাযোগ করছেন। সূত্রের খবর, ভ্যাকসিন না নিয়ে যাতে খেলতে পারেন, সেই দাবি নিয়ে একটি অস্ট্রেলিয়ান আদালতের কাছে যেতে চলেছেন জোকোভিচ। এমন পরিস্থিতিতে আগামী কয়েকদিন এই হোটেলেই থাকতে হতে পারে তাঁকে। তবে আদালত যদি তাঁকে অন্য কোথাও যাওয়ার নির্দেশ দেন, তাহলে বিষয়টি আলাদা।

টাটকা খবর বাংলায় পড়তে লগইন করুন www.mysepik.com-এ। পড়ুন, আপডেটেড খবর। প্রতিমুহূর্তে খবরের আপডেট পেতে আমাদের ফেসবুক পেজটি লাইক করুন। https://www.facebook.com/mysepik

Related Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *