সোজা ম্যাচ কঠিন করে জিতলেন নাইটরা, ফাইনালের আগে যা চিন্তায় রাখবে কলকাতাকে

Mysepik Webdesk: দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ার ম্যাচে কলকাতা নাইট রাইডার্স ৩ উইকেটে দিল্লি ক্যাপিটালসকে হারিয়ে আইপিএল ফাইনালে উঠেছে। কেকেআর টস জিতে দিল্লিকে প্রথমে ব্যাট করতে পাঠায়। দিল্লি নির্ধারিত ২০ ওভারে করে ৫ উইকেটে মাত্র ১৩৫ রান। কলকাতা ১৯.৫ ওভারে ৭ উইকেটে ১৩৬ রানের লক্ষ্য পূরণ করে। এই পরাজয়ের সঙ্গে ঋষভ পন্থের নেতৃত্বাধীন দিল্লি ক্যাপিটালসের টানা দু’বার ফাইনালে ওঠার স্বপ্ন কেবল স্বপ্নই রয়ে গেল। অন্যদিকে, কেকেআর তৃতীয়বার ফাইনালে উঠল।

আরও পড়ুন: ‘জীবনের এক অনন্য অভিজ্ঞতা’, ‘গোলন্দাজ’-এ এক ব্রিটিশ মিলিটারি ফুটবলারের ভূমিকায় অভিনয় করা খেলোয়াড় ডগলাসের পোস্ট

একটা সময় মনে হচ্ছিল কেকেআর খুব সহজেই জয় পেয়ে যাবে। কারণ তাদের রান ছিল ১৫.৫ ওভারে ১ উইকেটে ১২৩। জেতার জন্য তখন কলকাতার দরকার ২৫ বলে মাত্র ১৩। কিন্তু এখান থেকে দিল্লি জোরালোভাবে ফিরে আসে। ৭ রানের মধ্যে কেকেআরের ৬ উইকেট পড়ে যায়। দীনেশ কার্তিক, অধিনায়ক ইয়েন মর্গান এবং শাকিব আল হাসান এই তিন ব্যাটার শূন্য রানে আউট হন। শেষ ওভারে কলকাতার দরকার ছিল ৭ রান। দিল্লি দলনায়ক এই সময় বোলিংয়ের দায়িত্ব দেন অশ্বিনকে।

আরও পড়ুন: ফর্মের তুঙ্গে রোনাল্ডো, জিতল পর্তুগাল

শেষ ওভারের প্রথম বলে রাহুল ত্রিপাঠি একটি সিঙ্গেল নেন। তখন কেকেআরের প্রয়োজন ছিল ৫ বলে ৬ রান। দ্বিতীয় বলে শাকিব আল হাসান কোনও রান করতে পারেননি। তৃতীয় বলে অশ্বিনের বলে এলবিডব্লিউ হন শাকিব। সেই সময় কেকেআরের দরকার ছিল ৩ বলে ৬ রান। চতুর্থ বলে সুনীল নারাইনও (০) আউট হয়ে যান অশ্বিনের বলে। কেকেআরের দরকার ছিল ২ বলে ৬ রান। অশ্বিনের পঞ্চম বলে স্ট্রাইকে ফিরে আসা রাহুল ত্রিপাঠি লং অফে একটি দুর্দান্ত ছক্কা মেরে কেকেআরকে জয়ের স্বাদ দেন।

আরও পড়ুন: টি-২০ বিশ্বকাপে মেন্টর হিসাবে ধোনির ভূমিকা কেমন হবে, ব্যাখ্যায় আকাশ চোপড়া

লক্ষ্য তাড়া করে, কলকাতা দুর্দান্ত শুরু করেছিল। শুভমান গিল এবং ভেঙ্কটেশ আইয়ার প্রথম উইকেটে ১২.২ ওভারে ৯৬ রান যোগ করেন। এক পর্যায়ে মনে হয়েছিল এই জুটিই ম্যাচ শেষ করে মাঠ ছাড়বে। কিন্তু এই পার্টনারশিপ ভাঙেন কাগিসো রাবাদা আইয়ারকে (৫৫) আউট করে। এর পরে, এনরিকে নর্জের বলে নীতীশ রানা (১৩) প্যাভিলিয়নে ফেরেন। পরের ওভারে আবেশ খান শুভমান গিলকে (৪৬) আউট করে দিল্লিকে তৃতীয় সাফল্য এনে দেন। এরপর তো ম্যাচটি রুদ্ধশ্বাস মুহূর্তে পরিণত হয়। তবে, সহজ ম্যাচ এমন কঠিনভাবে জিততে হল কলকাতাকে। ফাইনালে চেন্নাই সুপার কিংসের বিরুদ্ধে নামার আগে যা নিঃসন্দেহে চিন্তায় রাখবে নাইটদের।

Facebook Twitter Email Whatsapp

এই সংক্রান্ত আরও খবর:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *