শেষ হল মোহনবাগানের বহু প্রতীক্ষিত বার্ষিক সাধারণ সভা

Mohunbagan

Mysepik Webdesk: প্রচুর পুলিশি নিরাপত্তা সঙ্গে বাউন্সার। এদিন মাঝদুপুর থেকেই গোষ্ঠ পাল সরণিতে সাজোসাজো রব। করোনা পরিস্থিতি পেরিয়ে শতাব্দী প্রাচীন মোহনবাগান অ্যাথলেটিক ক্লাবের বহু আলোচিত বার্ষিক সাধারণ সভা শুরুর ঘণ্টাখানেক আগে থেকেই দেখা গেল ধীরে ধীরে অনেক ক্লাবসদস্য ক্লাব গেটের দিকে এগিয়ে যাচ্ছেন। অনেকের কাছে এই অবকাশ একদিকে যেমন ক্লাবের এজিএম আবার বার্ষিক পুনর্মিলন উৎসবও বটে।

আরও পড়ুন: ২৩ ফেব্রুয়ারি বিশ্বের বৃহত্তম ক্রিকেট স্টেডিয়াম উদ্বোধন করবেন রাষ্ট্রপতি এবং স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

এবারের মোহনবাগান ক্লাবের এজিএম অন্যমাত্রা পেয়েছে সোশ্যাল মিডিয়া জুড়ে ‘রিমুভ এটিকে’ ক্যাম্পেনের জন্য। এমনকী সোশ্যাল মিডিয়া বাদ দিয়েও কিছু ফ্যান ক্লাবের তরফে কলকাতা এবং শহরতলির বেশ কিছু স্থানে তাঁদের দাবির সমর্থনে ফ্লেক্স এবং পোস্টার লাগানো হয়েছে। আজ ক্লাব প্রাঙ্গণে বিক্ষোভের ডাক দেওয়া হয়েছে।

ক্লাব কর্তাদের তরফে এই প্রসঙ্গে কোনও বিবৃতি না দেওয়া হলেও ওয়াকিবহাল মহল মনে করছে, ক্লাবের বার্ষিক সভায় যাতে কোনও অপ্রীতিকর পরিস্থিতির মুখোমুখি না হতে হয় সেইজন্য এই ব্যবস্থা। এই দিনের সভার শুরুতে গত একবছরে যে সমস্ত কৃতী ক্রীড়াবিদ গত হয়েছেন, তাঁদের স্মরণে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়। তবে মিটিং শুরু হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে বাইরে একদল সমর্থক বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করে।

ক্লাব সভাপতি স্বপন সাধন বসু (টুটু) বসুর অনুপস্থিতিতে সহ-সভাপতি অসিত চ্যাটার্জি সভার সভাপতি হিসেবে মনোনীত হন। প্রথমে সভায় গত এজিএমের প্রস্তাবগুলি পাস করা হয়। অর্থসচিব দেবাশিস দত্ত গত আর্থিক বছরের হিসেব পেশ করে বলেন, “কোভিডের জন্য এই বছর মেম্বার রিনিউওয়াল অনেক কম হয়েছে। তাই আগামী বছর থেকে সদস্যরা অনলাইনে তাঁদের কার্ড রিনিউওয়াল করার সুযোগ পাবেন।”

আরও পড়ুন: মোহনবাগানের বার্ষিক সাধারণ সভায় বিদেশ থেকে ভয়েস কলে সদস্য সমর্থকদের আন্দোলনে আহ্বান: ময়দানে হঠাৎ চাঞ্চল্য

‘রিমুভ এটিকে’ প্রশ্নে অশোক দে-র প্রশ্নে তীব্র উত্তেজনার সৃষ্টি হয়। শুরু হয় বাদানুবাদ। পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে ক্লাবসদস্য মৃন্ময় দে বলেন, “সভ্য সদস্যদের তরফে সঞ্জীব গোয়েঙ্কাকে স্বাগত। কিন্তু ‘এটিকে’ মেনে নিতে মোহনবাগান সদস্যদের কোথাও বুকে লাগছে।” প্রবীণ মোহনবাগান সদস্য বাপ্পা রায়চৌধুরি বলেন, “যাঁরা সমালোচনা করছেন তাঁরা যেন প্রয়োজনীয় অর্থের সংস্থান করেন। তাহলেই যেন ক্লাব কর্তাদের তাঁরা সমালোচনা করেন। এই বক্তব্যে সদস্যদের তরফে তীব্র অসন্তোষ প্রকাশ হয়।

এদিন সারাক্ষণ ক্লাবের প্রচুর মোহনবাগান সমর্থক বিক্ষোভ দেখান। জবাবি ভাষণ দিতে গিয়ে আবেগপ্রবণ হয়ে পড়েন সচিব সৃঞ্জয় বসু। তিনি বলেন, “আমরা অত্যন্ত কঠিন পরিস্থিতির মধ্যে আমাদের ক্লাবকে আইএসএলে নিয়ে যেতে সক্ষম হয়েছি। এটিকে-র সঙ্গে সংযুক্তির ক্ষেত্রে কিছু ইস্যু হয়তো রয়েছে। সেগুলিকে সমাধানের জন্য আমাদের ধৈর্য ধরতে হবে, সময় দিতে হবে। মনে রাখা প্রয়োজন, আমরা আদতে সবাই মোহনবাগান সমর্থক। তাই ক্লাবের অসম্মান হলে সবার মতো আমারও কষ্ট হয়।”

এদিন সভার শেষ পর্বে বিখ্যাত হকি খেলোয়াড় গুরবক্স সিংকে মোহনবাগান রত্ন তুলে দেওয়া হয়। আগামী বছর মোহনবাগান সদস্যরা অনলাইনের মাধ্যমে সদস্য কার্ড রিনিউয়াল করার সুযোগ পাবেন। এই ঘোষণায় প্রবীণ সদস্যদের মুখে দেখা যায় চওড়া হাসি।

Facebook Twitter Email Whatsapp

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *