স্বাস্থ্যসাথীর রোগী ফেরালেই লাইসেন্স বাতিল

Mysepik Webdesk: কার্ড থাকা কোনও রোগী ফেরালে সেই হাসপাতালের লাইসেন্স বাতিল করে দেওয়া হবে। একথা আগেই জানিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী। এবার স্বাস্থ্যদপ্তরের পক্ষ থেকে জারি করা নোটিসের মাধ্যমে ওই একই বার্তা পৌঁছে দেওয়া হল রাজ্যের হাসপাতালগুলোকে। ওই নির্দেশিকায় জানানো হয়েছে, রোগী ভর্তি নেওয়া না নেওয়া হাসপাতাল নার্সিংহোমগুলির ওপর নির্ভর করে না। স্বাস্থ্যসাথী কার্ড থাকা প্রতিটি রোগীকে ভর্তি নিতেই হবে। ফেরালে যথাযথ ব্যবস্থা নেবে সরকার।

আরও পড়ুন: রাজ্যে এবার শুরু হতে চলেছে সরকারি কর্মীদের টিকাকরণ

West Bengal govt health scheme expanded to include all

ওই ঘোষণায় রাজ্যের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, হাসপাতালগুলো থেকে রোগী ফেরানোর কোনও ঘটনা প্রমাণিত হলে সেক্ষেত্রে ওই হাসপাতাল কিংবা নার্সিংহোমগুলির ক্লিনিক্যাল এস্টাব্লিশমেন্ট লাইসেন্স বাতিল করা হবে। শুধু তাই নয়, সেক্ষেত্রে লাইসেন্স একবার বাতিল হয়ে গেলে সেই লাইসেন্স পুনর্নবীকরণেরও সুযোগ দেওয়া হবে না।

আরও পড়ুন: রানাঘাটে মতুয়া মহা সম্মেলনে মমতা বালা ঠাকুর

Bengal CM Mamata Banerjee stands in queue to collect Swasthya Sathi health  scheme card - बंगाल: स्‍वास्‍थ्‍य साथी स्‍मार्ट कार्ड लेने के लिए आम लोगों  के साथ लाइन में लगीं CM ममता

প্রসঙ্গত, কয়েকদিন আগেই রাজ্যের মুখ্যসচিব আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায় রাজ্যের বেশ কয়েকটি হাসপাতালে কর্মকর্তাদের সঙ্গে একটি বৈঠকে বসেছিলেন। সেই বৈঠকে স্বাস্থ্যসাথী কার্ড থাকা সত্ত্বেও রোগী ফেরানোর ঘটনা নিয়ে আলোচনা হয়। সেই বৈঠকেই চিকিৎসা পরিষেবা সুনিশ্চিত করতে প্রায় ৩৩ টি প্যাকেজে দরবৃদ্ধি করে স্বাস্থ্যদপ্তর। উল্লেখ্য, এখনও পর্যন্ত রাজ্যের ২ কোটিরও বেশি পরিবার স্বাস্থ্যসাথী পরিষেবার আওতায় এসেছে। গত ডিসেম্বরের পর আরও ৭৬ লক্ষ পরিবার প্রকল্পের আওতায় এসেছে। দৈনিক অন্তত ৩৭০০ মানুষ এই পরিষেবার সুযোগ পাচ্ছেন। আর এর ফলে সরকারের খরচ হচ্ছে গড়ে সাত কোটি টাকা।

Facebook Twitter Email Whatsapp

এই সংক্রান্ত আরও খবর:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *