দীর্ঘ অপেক্ষার অবসান, আর মাত্র পাঁচ সপ্তাহের মধ্যেই এ রাজ্যে আসছে করোনার ভ্যাকসিন

Mysepik Webdesk: শীঘ্রই আসছে করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিন। সেইমতো ভ্যাকসিন বন্টনের জন্য আগে থেকেই কেন্দ্রের তরফ থেকে রাজ্যগুলিকে জানিয়ে রাখা হয়েছিল। তবে ঠিক কবে থেকে রাজ্যগুলিকে সেই ভ্যাকসিন বিতরণ করা হবে, তা নিশ্চিতভাবে জানানো হয়নি। জানা গিয়েছে, টিকাকরণের গোটা কাজটা হবে ‘কো-উইন’ নাম একটি অনলাইন ওয়েবসাইটের মাধ্যমে। এদিকে সিরাম ইনস্টিটিউট অফ ইন্ডিয়ার সিইও আদার পুনাওয়ালা জানিয়েছেন, জানুয়ারিতেই অক্সফোর্ড ভ্যাকসিন ভারতের বাজারে চলে আসবে। স্বাভাবিকভাবেই রাজ্যগুলিতে ইতিমধ্যেই প্রস্তুতি শুরু হয়ে গিয়েছে।

আরও পড়ুন: দু’দিনের সফরে বঙ্গে অমিত শাহ, সভা করবেন মেদিনীপুরে

Coronavirus: How soon can we expect a working vaccine? - BBC News

এ রাজ্যেও ভ্যাকসিন বন্টনের জন্য নবান্নে একাধিক উচ্ছ পর্যায়ে বৈঠক হয়েছে। গঠিত হয়েছে স্টেট স্টিয়ারিং কমিটি, রাজ্য টাস্ক ফোর্স এবং জেলা টাস্ক ফোর্সও। প্রয়োজনীয় প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়েছে স্বাস্থ্যকর্মীদের। রাজ্যজুড়ে প্রায় ২০ হাজার কর্মী এই ভ্যাকসিন দেওয়ার কাজ করবেন। সেক্ষেত্রে কেন্দ্রের নির্দেশ অনুযায়ী চারজনের এক-একটি দল এক-একটি ক্যাম্প-সাইটে ভ্যাকসিন দেবে। সেখানে মানুষের ভিড় এড়াতে একজন করে নিরাপত্তাকর্মী মোতায়েন রাখা হবে। প্রত্যেককে ভ্যাকসিন দেওয়ার পর আধঘন্টা পর্যন্ত অবজারভেশনে রাখা হবে। কেউ অসুস্থ হয়ে পড়লে তাঁর চিকিৎসার জন্য রাখা হবে আলাদা করে বেডের ব্যবস্থাও।

আরও পড়ুন: বঙ্গে জাঁকিয়ে ঠান্ডা, কতদিন থাকবে এই শীতের দাপট?

Russia claims 91.4% efficacy rate in new Covid-19 vaccine data | World  News,The Indian Express

‘কো-উইন’ নাম যে প্রত্যালের মাধ্যমে ভ্যাকসিন দেওয়ার বিষয়টি নিয়ন্ত্রণ করা হবে সেখানে প্রত্যেক প্রাপকের বিস্তারিত তথ্য নথিভুক্ত থাকবে। প্রথম পর্যায়ে টিকা প্রদানের জন্য প্রায় ৬ লক্ষ স্বাস্থ্যকর্মীর বিস্তারিত তথ্য সেই পোর্টালে তোলা হচ্ছে। কারণে ভ্যাকসিন নেওয়ার ক্ষেত্রে তারাই অগ্রাধিকার পেতে চলেছে। এরপর থাকছে পুলিশকর্মীদের তালিকা। সেক্ষেত্রে রাজ্যের সমস্ত পুলিশ বিভাগকে তাদের কর্মীদের তালিকা জমা দেওয়ার কথা বলা হয়েছে। তৃতীয় পর্যায়ে থাকছে ষাটোর্ধ্ব কো-মর্বিড ব্যক্তিদের তথ্য যেগুলি পোর্টালে তোলা হবে টিকাকরণের জন্য।

Facebook Twitter Email Whatsapp

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *