যাত্রীবাহী বিমান পরিষেবার ক্ষেত্রে বড়োসড়ো সিদ্ধান্ত পরিবহণ মন্ত্রকের

Mysepik Webdesk: করোনাভাইরাসের দ্বিতীয় ঢেউয়ে বেসামাল গোটা দেশ। তবে এখনও পর্যন্ত দেশে যাত্রীবাহী অর্থাৎ অসামরিক বিমান যাতায়াতের ক্ষেত্রে কোনও বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়নি। বিমান পরিষেবা চলেছে স্বাভাবিক ছন্দেই। তবে যাত্রীদের সুরক্ষার কথা মাথায় রেখে বেশ কিছু বিধিনিষেধ আরোপ করছে অসামরিক বিমান পরিবহন মন্ত্রক। মন্ত্রকের পক্ষ থেকে নতুন একটি নির্দেশিকায় জানানো হয়েছে, বিমানে দু’ঘণ্টার কমে কোনও যাত্রী পরিবহন করলে সেক্ষেত্রে যাত্রীদের কোনও খাবার দেওয়া হবে না।

আরও পড়ুন: সেন্সরশিপ এবার টুইটারেও

নির্দেশিকায় আরও জানানো হয়েছে দু’ঘন্টার বেশি ভ্রমণের ক্ষেত্রে যাত্রীদের খাওয়ার দেওয়া যেতে পারে তবে তা অবশ্যই হতে হবে প্যাকেটজাত খাবার। শুধু তাই নয়, চা, কফির ক্ষেত্রেও তা হবে প্যাকেটজাত। এছাড়া ওই সব খাবার অবশ্যই বন্ধ পাত্রে পরিবেশন করতে হবে। এই নিয়মের কোনও ব্যতিক্ৰম হবে না। নিয়মগুলি সঠিকভাবে পালন হচ্ছে কিনা, তার ওপর নিয়মিত নজরদারি চালাবে মন্ত্রক।

আরও পড়ুন: করোনামুক্ত হয়ে হাসপাতাল থেকে ছাড়া পেলেন মনমোহন সিংহ

এই প্রসঙ্গে অসামরিক বিমান মন্ত্রকের এক করতে জানান, “কোভিড পরিস্থিতির জন্য ভারতে যে ভয়াবহ অবনতি হয়েছে, তা নিয়ে কোনও সন্দেহ নেই। তবে এখনই বিমান পরিষেবা বন্ধ করার বিষয়ে কোনও চিন্তাভাবনা করা হয়নি। তবে আগামী দিনে পরিস্থিতি আরও খারাপ হলে এই বিষয় নিয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।” তিনি আরও বলেন, “মন্ত্রক চাইছে, যাত্রীরা যত বেশিক্ষন সম্ভব মাস্ক পড়ে থাকুন, সেই জন্যই এই নির্দেশিকা কড়া ভাবে কার্যকর করতে বলা হয়েছে। এমনকী, খাবার খাওয়ার জিনিসপত্রও একবারের বেশি ব্যবহার করা যাবে না। চা, কফি, মদের মতো পানীয় দিলেও তা বন্ধ পাত্রে পরিবেশন করতে হবে। এই নিয়মের অন্যথা করা যাবে না। এই সব নিয়ম সঠিক ভাবে পালন করা হচ্ছে কিনা, তা নিয়মিত নজরদারি করবে মন্ত্রক। আমাদের মূল উদ্দেশ্য, বিমান যাত্রার মধ্যে যথাসম্ভব ছোঁয়াছুঁয়ি এড়িয়ে চলা। সে জন্যই এই নির্দেশিকা কড়া ভাবে মেনে চলতে বলা হয়েছে।”

এই সংক্রান্ত আরও খবর:

Facebook Twitter Email Whatsapp

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *