Latest News

Popular Posts

সিপিআই(এম)-এর নতুন রাজ্য সম্পাদক হলেন মহম্মদ সেলিম

সিপিআই(এম)-এর নতুন রাজ্য সম্পাদক হলেন মহম্মদ সেলিম

Mysepik Webdesk: সিপিআই(এম)-এর নতুন রাজ্য সম্পাদক হলেন মহম্মদ সেলিম। দলের রাজ্য কমিটির বৈঠকে এই ঘোষণা করা হয়েছে। প্রাক্তন মন্ত্রী ও প্রাক্তন সাংসদ মহম্মদ সেলিম রাজ্যের সংখ্যালঘু মুখেদের অন্যতম। উল্লেখ্য, এই প্রথম কোনও সংখ্যালঘু মুখ বঙ্গ সিপিআই(এম)-এর শীর্ষ পদে। এহেন সেলিম ইংরেজি, হিন্দি ও বাংলাভাষায় সমানভাবে দক্ষ। মহম্মদ সেলিম ছাড়াও এবার রাজ্য কমিটিতে স্থান পেয়েছেন মীনাক্ষী মুখোপাধ্যায়, সুশান্ত ঘোষ, শতরূপ ঘোষ, মধুজা সেন রায়, আত্রেয়ী গুহ, পার্থ মুখার্জি, সুদীপ সেনগুপ্ত, প্রতিকুর রহমান, তরুণ বন্দ্যোপাধ্যায়রা। এর আগে ড. সূর্যকান্ত মিশ্র সিপিআই(এম)-এর রাজ্য সম্পাদক ছিলেন। তবে এবার সিপিআই(এম) রাজ্য কমিটির বৈঠকে এই তাঁর স্থলাভিষিক্ত হলেন সেলিম। তাই পশ্চিমবঙ্গের কমান্ডের দায়িত্ব এবার থেকে সামলাবেন মহম্মদ সেলিম। তাছাড়াও ভরসা রাখা হয়েছে তরুণ নেতৃত্বের ওপরও। ৮০ সদস্যের কমিটিতে ১৫ জন নতুন মুখ-সহ ১৪ জন মহিলাও রয়েছেন। রেড ভলান্টিয়ার্সদের গ্রহণযোগ্যতা দলকে নতুন করে উজ্জীবিত করেছে। তাঁদের সামনে রেখেই এগোতে চাইছে বাংলার সিপিএম। প্রাক্তন সিপিআই(এম) রাজ্য সম্পাদক ড. সূর্যকান্ত মিশ্র, বামফ্রন্টের সভাপতি বিমান বসু এবং নেপাল দেবকে নতুন রাজ্য কমিটিতে অন্তর্ভুক্ত করা হয়নি। লক্ষ্য একটাই, মানুষের কাছে নিজেদের প্রাসঙ্গিক করে তোলা।

আরও পড়ুন: ইউক্রেন ফেরত বাংলার পড়ুয়াদের সঙ্গে সাক্ষাৎ করলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

১৯৫৬ সালের ৫ জুন জন্মানো মহম্মদ সেলিম ২০১৫ সালে ২১তম বিশাখাপত্তনম পার্টি কংগ্রেসে ভারতের কমিউনিস্ট পার্টি (মার্কসবাদী)-র পলিটব্যুরোর সদস্য নির্বাচিত হন। তিনি ভারতের ১৮তম লোকসভায় রায়গঞ্জ লোকসভা কেন্দ্র থেকে সাংসদ নির্বাচিত হয়েছিলেন। এর আগে ১৪তম লোকসভায় তিনি কলকাতা উত্তর-পূর্ব লোকসভা কেন্দ্র থেকে সাংসদ ছিলেন। মহম্মদ সেলিম মৌলানা আজাদ কলেজ থেকে দর্শন নিয়ে পড়াশোনা করেছেন। এখানে পড়াশোনা শেষ করে তিনি যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতকোত্তর ডিগ্রি লাভ করেন। সেলিম কলেজ জীবনে ছাত্র রাজনীতিতে যোগ দেন। যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র আন্দোলনের সময় তিনি তাঁর পরবর্তী রাজনৈতিক কর্মজীবনের সহকর্মী নীলোৎপল বসু এবং মানব মুখার্জির সঙ্গে দেখা করেছিলেন।

আরও পড়ুন: মেট্রোর পর বেলজিয়ামের আদলে এবার কলকাতায় গঙ্গার নীচ দিয়ে ছুটবে গাড়ি

তিনি ১৯৯১ থেকে ২০০১ সাল পর্যন্ত দশ বছর ভারতের কমিউনিস্ট পার্টি (মার্কসবাদী)-র যুব শাখা ডেমোক্রেটিক ইয়ুথ ফেডারেশন অফ ইন্ডিয়ার সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। ১৯৯০ সালে তিনি ভারতীয় আইনসভার উচ্চকক্ষ রাজ্যসভার সদস্য নির্বাচিত এবং পরপর দুই মেয়াদে রাজ্যসভার সদস্য নির্বাচিত হন। ১৯৯০ থেকে ২০০১ পর্যন্ত মহম্মদ সেলিম মোট ১১ বছর রাজ্যসভার সদস্য ছিলেন। ২০০১ সালের বিধানসভা নির্বাচনে জয়ী হওয়ার পর তিনি ষষ্ঠ বামফ্রন্ট সরকারে মন্ত্রী হন। ২০০৪ সালের লোকসভা নির্বাচনে মহম্মদ সেলিম কলকাতা উত্তর-পূর্ব লোকসভা কেন্দ্র থেকে লোকসভার সদস্য নির্বাচিত হন। ২০০৯ সালে সেলিম কলকাতা উত্তর লোকসভা কেন্দ্র থেকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছিলেন এবং সর্বভারতীয় তৃণমূল কংগ্রেসের প্রার্থী সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছে পরাজিত হয়েছিলেন। ২০১৪ সালে মহম্মদ সেলিম রায়গঞ্জ লোকসভা কেন্দ্র থেকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছিলেন এবং ১৬তম লোকসভার সদস্য হন। ২০১৯ লোকসভা নির্বাচনে তিনি রায়গঞ্জ কেন্দ্র থেকে আবার প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছিলেন। যদিও সেবার তৃতীয় স্থানে ছিলেন তিনি। ২০২১ সালের পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভা নির্বাচনে তিনি চণ্ডীতলা বিধানসভা কেন্দ্র থেকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করলেও আবারও তৃতীয় হন।

টাটকা খবর বাংলায় পড়তে লগইন করুন www.mysepik.com-এ। পড়ুন, আপডেটেড খবর। প্রতিমুহূর্তে খবরের আপডেট পেতে আমাদের ফেসবুক পেজটি লাইক করুন।

Related Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *