ডাক্তার সেজে রোগী দেখলেন নাইট গার্ড, ভয়ে কাঁটা রোগীর পরিবার

Mysepik Webdesk: ডাক্তার ছুটিতে রয়েছে, তাতে কি হয়েছে রোগী দেখা তো আর বন্ধ থাকবে না? সেকারণেই নিজেই ডাক্তার সেজে বসলেন হাসপাতালের নাইট গার্ড। রোগীও দেখলেন, প্রেসক্রিপশনও লিখে দিলেন। তার সঙ্গী ছিল বাড়ির কেয়ারটেকার। চাঞ্চল্যকর ঘটনাটি ঘটেছে মালদার গাজোল গ্রামীণ হাসপাতালে। জানা গিয়েছে, হাসপাতালের মেডিকেল ইন চার্জ ডাক্তার শ্যামসুন্দর হালদার গত ৮ অক্টোবর থেকে ৮ অক্টোবর পর্যন্ত ছুটিতে ছিলেন। সেই কারণে ডাক্তারের চেম্বারও বন্ধ থাকার কথা ছিল। কিন্তু এক মহিলা রোগী এসে অভিযোগ করেন, ডাক্তারের চেম্বার বন্ধ থাকার পরিবর্তে সেখানে চিকিৎসা করছিলেন অন্য এক ‘ডাক্তার’।

আরও পড়ুন: বিজেপির নবান্ন অভিযান ঘিরে হুলুস্থুলু কান্ড, চলল জল কামান ও কাঁদানে গ্যাস

ঘটনাটি প্রথম প্রকাশ্যে আসে পিঙ্কি ভুঁইমালি নামে এক মহিলাকে কেন্দ্র করে। তিনি ওই হাসপাতালে এর আগেও চিকিৎসা করতে গিয়েছিলেন। তখন তিনি ডাক্তার বৃন্দাবন রায় এবং ডাক্তার শ্যামসুন্দর হালদারের কাছে চিকিৎসা করিয়েছিলেন। কিন্তু এবার তাঁর শারীরিক অবস্থার কথা শুনে তাকে ডাঃ অঞ্জন রায়ের কাছে যাওয়ার পরামর্শ দেন এক ব্যক্তি। কিন্তু সন্দেহ তখনই হয়, যখন তিনি ডাঃ অঞ্জন রায়ের কোয়ার্টারে গিয়ে দেখেন, সেখানে ‘অন্য কেউ’ বসে আছে। সেখানেই পিঙ্কিকে পরীক্ষা করে তিনি অপর জনকে বললেন ‘প্রেসক্রিপশন করে দে’। আর এতেই সন্দেহ দানা বাঁধে পিঙ্কির মনে।

আরও পড়ুন: স্কুলের ২০ শতাংশ বেতন হ্রাস নিয়ে বড়োসড়ো সিদ্ধান্ত হাইকোর্টের

শুধু তাই নয়, পিঙ্কিকে বাইরে থেকেও ওষুধ কিনে নিতে বলা হয়। সন্দেহ হওয়ায় তিনি হাসপাতালের আউটডোরে প্রেসক্রিপশন দেখান। প্রেসক্রিপশন দেখাতেই সবাই চমকে ওঠে। যে ডাক্তার ছুটিতে রয়েছে, সে কীভাবে প্রেসক্রিপশন করতে পারে। আসলে ওই মহিলার জরায়ুর টিউমারের সমস্যা রয়েছে আর তাকে দেওয়া হয়েছে গ্যাস অম্বলের ওষুধ। এদিকে ঘটনার কথা জানাজানি হতেই সেখান থেকে পালিয়ে যায় ওই নাইট গার্ড। পুলিশ খুঁজছে ওই নাইট গার্ডকে।

Similar Posts:

Facebook Twitter Email Whatsapp

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *