১ ফেব্রুয়ারিকে ফিলিপাইনে হিজাব দিবস হিসেবে ঘোষণা করল দেশটির আইনসভা

Mysepik Webdesk: ১ ফেব্রুয়ারিকে ফিলিপাইনের আইনসভা হিজাব দিবস হিসাবে ঘোষণা করবার একটি প্রস্তাব পাস করেছে। দেশটির আইনসভার ২০৩ জন সদস্যের প্রত্যেকেই ২৬ জানুয়ারি অধিবেশন এই প্রস্তাবটির পক্ষে ভোট দিয়েছিলেন। বিভিন্ন ধর্মের মানুষের মধ্যে সহনশীলতা সৃষ্টির উদ্দেশ্য নিয়ে এই প্রস্তাবটি পাস করা হয়েছে।

আরও পড়ুন: মায়ানমার ইস্যু: নিষেধাজ্ঞার হুমকি বাইডেনের

প্রস্তাবটির প্রস্তাবক আনাক মিন্দানা এবং পার্টির পক্ষ থেকে আইনসভার সদস্য আমিহিলদা সাঙ্গকোপান প্রস্তাবটিকে সমর্থনের জন্য সকল সদস্যকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন। সাঙ্গকোপান বলেছেন, ”হিজাবি নারীরা বিশ্বজুড়ে নানান চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হন। ফিলিপাইনের কিছু বিশ্ববিদ্যালয় মুসলিম ছাত্রীদের হিজাব পরার নিষেধাজ্ঞাও দিয়েছে। শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বিধি মেনে চলার জন্য কিছু ছাত্রী হিজাব ছাড়তে বাধ্য হয়েছেন। কেউ কেউ আবার শিক্ষা প্রতিষ্ঠান অন্যত্র করবার সিদ্ধান্ত নিতে বাধ্য হয়েছেন। কেউ আবার পড়াশোনাও পর্যন্ত ছেড়ে দিয়েছেন। এটি নারী এবং শিক্ষার্থীদের ধর্মীয় স্বাধীনতার স্পষ্ট লঙ্ঘন।”

আরও পড়ুন: মায়ানমার ইস্যু: আজ রুদ্ধদ্বার বৈঠকে রাষ্ট্রসংঘের নিরাপত্তা পরিষদ

এই প্রস্তাবটি আদতে ফিলিস্তিনি হিজাবি নারীদের বিরুদ্ধে বৈষম্য দূর করবে বলে জানিয়ে সাঙ্গকোপান বলেন, “প্রত্যেক মুসলিম নারীর হিজাব পরা অধিকারের মধ্যে পড়ে। জীবন ধারার অবিচ্ছেদ্য অংশ হিসেবে একে দেখা হয়। পবিত্র ইসলামি ধর্মগ্রন্থে এর বর্ণনা করা হয়েছে। সৌন্দর্য ঢেকে শালীনভাবে যেন মুসলিম নারীরা চলেন সে কথা বলা হয়েছে পবিত্র কুরআনে। আমি মনে করি মুসলিম সম্প্রদায় এই প্রস্তাবকে সম্মান এবং স্বাগত জানাবে।” প্রসঙ্গত উল্লেখযোগ্য, ২০১৩ সালের ১ ফেব্রুয়ারি বিশ্ব হিজাব দিবস হিসাবে পালন শুরু করে ‘ওয়াল্ড হিজাব ডে’ নামক এক সংগঠন। তাদেরও লক্ষ্য ছিল, মুসলিম নারীদের বিষয় সচেতনতা তৈরি করা। এর অনুসরণে গোটা পৃথিবীর হিজাবি মুসলিম নারীরা এই দিনটিকে পালন শুরু করে।

Facebook Twitter Email Whatsapp

এই সংক্রান্ত আরও খবর:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *