সৌদি আরবে শেখানো হচ্ছে রামায়ণ-মহাভারত

Mysepik Webdesk: রামায়ণ ও মহাভারত পড়ানো হচ্ছে ইসলামি রাষ্ট্র সৌদি আরবে। মুসলিম দেশটি শিক্ষাব্যবস্থার জন্য একটি নতুন ‘ভিশন-২০৩০’ চালু করেছে, যেখানে শিক্ষার্থীদের সাংস্কৃতিক কোর্সের অধীনে অন্যান্য দেশের ইতিহাস ও সংস্কৃতি শেখানো হচ্ছে।

আরও পড়ুন:সমস্ত সোশ্যাল মিডিয়া নিষিদ্ধ হয়ে গেল পাকিস্তানে

এতে কোর্স হিসাবে রামায়ণ এবং মহাভারত অন্তর্ভুক্ত। যাতে সৌদি বিশ্বব্যাপী উন্নয়নের প্রতিযোগিতায় নিজেকে খাড়া করতে পারে। সৌদির ‘ভিশন-২০৩০’ অনুসারে, ইংরেজি ভাষাকে একটি প্রয়োজনীয় ভাষা হিসাবে অন্তর্ভুক্ত করা হবে, কারণ ইংরেজি যোগাযোগের একটি গুরুত্বপূর্ণ মাধ্যম হিসাবে বিবেচিত হয়।

সৌদির এই ভিশনকে নউফ-আল-মারওয়াই নামের একটি টুইটার ইউজার স্ক্রিনশট শেয়ার করে স্পষ্ট করে দিয়েছেন। তিনি লিখেছেন, “সৌদি আরবের নতুন ভিশন-২০৩০ এবং পাঠ্যক্রমটি সকলকে সঙ্গে নিয়ে চলা, উদার এবং সহনশীল ভবিষ্যৎ গঠনে সহায়তা করবে। আজ আমার ছেলের স্কুলের পরীক্ষার সোশ্যাল স্টাডিসে হিন্দু ধর্ম, বৌদ্ধ ধর্ম, রামায়ণ, কর্ম, মহাভারত এবং ধর্ম অন্তর্ভুক্ত রয়েছে। আমি তার পড়াশোনায় সাহায্য করতে পেরে আনন্দিত।”

আরও পড়ুন: করোনা রুখতে নিতে হতে পারে তৃতীয় ডোজও

https://twitter.com/NoufMarwaai/status/1382694702852538379?s=20

সৌদির শিক্ষা পাঠ্যক্রমের পরিচয়ে বলা হয়েছে যে, শিক্ষিত ও দক্ষ জনশক্তি তৈরির মাধ্যমে সৌদি আরব বৈশ্বিক অর্থনীতির প্রতিযোগিতায় যোগ দেবে। বিভিন্ন দেশ ও জনগণের মধ্যে সাংস্কৃতিক সংলাপের আদান-প্রদান বিশ্বব্যাপী শান্তি ও মানবকল্যাণে সহায়ক। তাই মূলত বিদেশি ভাষা, মূলত ইংরেজি শেখা আবশ্যিক।

এতে বলা হয়েছে যে, দুনিয়াভর উন্নয়ন এবং সমৃদ্ধির জন্য সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ এটি। সৌদি আরবের যুবরাজ মহম্মদ বিন সালমান আবদুল আজিজ ‘২০৩০ সালের সৌদি ভিশন’ অনুসরণ করেছেন। এর অনেক দিক রয়েছে তবে এর মূল লক্ষ্য হল এমন একটি শিক্ষাব্যবস্থা তৈরি করা, যা সরকার এবং বিভিন্ন ব্যবসার মধ্যকার সমস্যাগুলি কাটিয়ে উঠতে পারে। এছাড়াও, ‘ভিশন-২০৩০’এর মাধ্যমে সৌদি বৈশ্বিক অর্থনীতির ক্ষেত্রে বিনিয়োগের পরিবেশ তৈরি করতে চাইছে।

সৌদির ভিশন-২০৩০’এর প্রধান উদ্দেশ্য হল তেল থেকে প্রাপ্ত রাজস্বের নির্ভরতা হ্রাস করার জন্য অ্যাকাডেমিক ব্যবস্থায় একটি পরিবর্তন আনা। যা পরিবর্তনও হচ্ছে। তাই সৌদি সরকার তাদের অর্থনীতির পুনর্গঠনের জন্য বেশ কয়েকটি পদক্ষেপ নিয়েছে।

প্রিন্স মহম্মদ বিন সালমান ঘোষিত ভিশন-২০৩০ এই পরিবর্তনগুলির মধ্যে একটি। সৌদি যুবরাজের মতে, দেশে বড় অর্থনৈতিক পরিবর্তন করা হবে। বিশেষজ্ঞদের ধারণা, ১৯৩২ সালে সৌদি নির্মাণের পর এটি সবচেয়ে বড় পরিবর্তন হতে যাচ্ছে।

Facebook Twitter Email Whatsapp

এই সংক্রান্ত আরও খবর:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *