লজ্জায় আত্মহত্যা নয়, ধর্ষিতার গায়ে আগুন লাগিয়ে দিয়েছিল ধর্ষকের কাকা

Mysepik Webdesk: একাধিকবার হুমকি দেওয়া সত্ত্বেও ভাইপোর বিরুদ্ধে ধর্ষণ মামলা প্রত্যাহার করতে রাজি হননি উত্তরপ্রদেশের বুলন্দশহরের নিগৃহীতা তরুণী। আর সেই কারণেই ধর্ষিতার গায়ে পেট্রল ঢেলে আগুন জ্বালিয়ে দিয়েছিল অভিযুক্তের কাকা। সাংঘাতিক আহত অবস্থায় মঙ্গলবার সকালে দিল্লির হাসপাতালে ভর্তি করা হলেও শেষরক্ষা হয়নি। ঐদিন রাতেই মারা যায় তরুণী। প্রথমের দিকে প্রাথমিক তদন্তে পুলিশ অগ্নিদগ্ধের ঘটনাটি মানসিক অবসাদে আত্মহত্যার ঘটনা বলে চালিয়ে দিলেও পরে মৃত তরুণীর বাবার অভিযোগের ভিত্তিতে ফের শুরু হয়েছে খুনের তদন্ত।

আরও পড়ুন: আর্থিক ক্ষতির হাত থেকে বাঁচতে লক্ষ্মী বিলাস ব্যাঙ্ক মিলতে চলেছে ডিবিএস ব্যাঙ্কের সঙ্গে

CBI to probe Bulandshahr gang-rape case | Deccan Herald

ইতিমধ্যেই এই নারকীয় ঘটনাকে কেন্দ্র করে প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে উত্তরপ্রদেশে মেয়েদের নিরাপত্তা নিয়ে। গ্রেফতার করা হয়েছে মূল অভিযুক্ত-সহ তিন জনকে। মৃত তরুণীর বাবার অভিযোগ, গণধর্ষণের মামলাটি প্রত্যাহার করার জন্য বারবার নিগৃহীতাকে চাপ দেওয়া হচ্ছিল ধর্ষকের পরিবারের পক্ষ থেকে। কিন্তু সেই চাপের মুখে নতিস্বীকার না করায় অভিযুক্তের কাকা তাদের বাড়িতে চড়াও হয়ে তার মেয়ের গায়ে পেট্রল ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেয়। তরুণীর মৃত্যুর পর উত্তরপ্রদেশ পুলিশ এই ঘটনায় নতুন করে আরও সাত জনের বিরুদ্ধে ভারতীয় দণ্ডবিধির সংশ্লিষ্ট ধারায় এফআইআর রুজু করেছে।

আরও পড়ুন: কালাজাদু করতে গিয়ে ৬ বছরের শিশুকে ধর্ষণ, বের করে নেওয়া হল ফুসফুস

Bulandshahr gang-rape case: UP Police clams 'vital leads'; close to nabbing  Bawaria gang head Salim? | India News | Zee News

গত ১৫ অগস্ট গ্রামের আমবাগান পাহারা দিতে আসা তিন জনের বিরুদ্ধে ধর্ষণের মামলা দায়ের করেছিলেন ওই তরুণী। তরুণীর অভিযোগের প্রেক্ষিতে মূল অভিযুক্তদের গ্রেফতারও করা হয়। অভিযুক্তরা এখনও জেলে রয়েছে। গত কয়েকদিন ধরে অভিযুক্তকে ছাড়াতে তার কাকা ও বন্ধুরা মেয়েটির ওপর ক্রমাগত চাপ সৃষ্টি করছিল। কিন্তু সেই চাপের মুখে নতিস্বীকার না করায় এই ঘটনা ঘটিয়েছে তারা।

Facebook Twitter Email Whatsapp

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *