কাবুল বিমানবন্দরে বিস্ফোরণের শিকড় পাকিস্তানে, জেনে নিন কীভাবে

Kabul

Mysepik Webdesk: কাবুল বিমানবন্দরে আত্মঘাতী হামলার মূলে রয়েছে পাকিস্তান। আইএসআইএস খোরাসান অর্থাৎ আইএসআইএস-কে এই বিস্ফোরণের দায় স্বীকার করেছে। ১০০ জনেরও বেশি মানুষ এই বিস্ফোরণে প্রাণ হারিয়েছেন। এই সন্ত্রাসী সংগঠনের প্রধান মাওলবী আবদুল্লাহ ওরফে আসলাম ফারুকী। ফারুকী একজন পাকিস্তানি নাগরিক। সেখান থেকেই সে খোরাসানের প্রধান হওয়ার যাত্রা শুরু করে। লস্কর এবং তেহরিকের মতো নিষিদ্ধ সংগঠনের সঙ্গেও যুক্ত ছিল এহেন ফারুকী। আফগান এজেন্সি তাকে গ্রেফতার করার সময় সে এই কথা স্বীকার করেছে। অর্থাৎ কাবুল বিমানবন্দরে বিস্ফোরণের শিকড় পাকিস্তানে, জেনে নিন কীভাবে…

আরও পড়ুন: রক্তগঙ্গা কাবুল, জোড়া আত্মঘাতী বিস্ফোরণে কেঁপে উঠল হামিদ কারজাই বিমানবন্দর

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় হামিদ কারজাই আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অর্থাৎ কাবুল বিমানবন্দরে দু’টি আত্মঘাতী হামলা হয়। এর পরে, আইএসআইএস-কে তাদের একজন আত্মঘাতী হামলাকারীর নাম এবং ছবি প্রকাশ করে। তার নাম ছিল আবদুল রহমান আল লাগোরি। তালিবান বলেছে, একই যোদ্ধা বিমানবন্দরে নিরাপত্তা বাহিনীকে ধোকা দিয়ে প্রবেশ করে। এদিকে, ফারুকী জিজ্ঞাসাবাদে স্বীকার করে নিয়েছে যে, সে লস্কর-ই-তৈয়েবার সঙ্গে যুক্ত ছিল। কাবুল এবং জালালাবাদ থেকে হাক্কানি নেটওয়ার্কের সঙ্গে কাজ করে এই লস্কর-ই-তৈয়েবা। আইএসআইএস-কে’তে যোগ দেওয়ার আগে সে তেহরিক-ই-তালিবান পাকিস্তানে যোগ দিয়েছিল। এর পরে জিয়া-উল-হক ওরফে আবু ওমর খোরাসানীর পরে আইএসআইএস-কে’র প্রধান হয় ফারুকী।

আরও পড়ুন: তালিবান আতঙ্কে দেশ-পালানো পপ তারকা আরিয়ানা সোশ্যাল মিডিয়ায় শোনালেন অভিজ্ঞতার কথা

ফারুকী পাকিস্তানের খাইবার পাখতুনখাওয়া প্রদেশের ওরাকজাই জেলার বাসিন্দা। সে মোমাজাই বংশের। আফগান এজেন্সি চারজন পাকিস্তানি নাগরিক-সহ তাকে গ্রেফতার করে। ফারুকী এজেন্সিকে বলেছে যে, আইএসআইএস-কে’র শিকড় পাকিস্তানের রাওয়ালপিন্ডিতে রয়েছে। এর পর তাকে বাগ্রাম কারাগারে পাঠানো হয়। যদিও আফগানিস্তানে তালিবান হুকুমতই এখন শেষ কথা। সেই কারণে ফারুকী অন্যান্য বন্দিদের মতো মুক্তি পায়। উল্লেখ্য যে, ২৭ মার্চ ২০২০ সালে কাবুল গুরুদ্বারেও বিস্ফোরণ ঘটে। এই হামলায় ২৬ আফগান শিখ এবং একজন ভারতীয় শিখ নিহত হয়েছিলেন। এর পর, ২০২০ সালের ৪ এপ্রিল আফগান জাতীয় নিরাপত্তা অধিদপ্তর (এনডিএস) ফারুকীকে নানগারহার প্রদেশ থেকে গ্রেফতার করেছিল। আফগান সংস্থার মতে, ফারুকী এই হামলার সঙ্গে জড়িত ছিল।

Facebook Twitter Email Whatsapp

এই সংক্রান্ত আরও খবর:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *