আগামীকাল খুলছে স্কুল-কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়, যাবতীয় পরিস্থিতি খতিয়ে দেখতে নির্দেশ শিক্ষা দফতরের

Mysepik Webdesk: করোনা অতিমারীর জেরে প্রায় দু-বছর বন্ধ রাখা হয়েছিল রাজ্যের স্কুল, কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়গুলি। তবে, করোনার ভয়াভহতা কাটিয়ে ধীরে ধীরে স্বাভাবিক জীবনে ফিরতে মরিয়া গোটা বিশ্ব। এ রাজ্যেও অনেকটাই নিয়ন্ত্রণে এসেছে সংক্রমণ। চালু করে দেওয়া হয়েছে লোকাল ট্রেন। খুলে দেওয়া হয়েছে সিনেমাহল, রেস্তোরাঁ। রাজ্যের স্কুল, কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়গুলি আগামীকাল অর্থাৎ ১৬ নভেম্বর থেকে খুলে দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। এই পরিস্থিতিতে খোলার জন্য কীভাবে প্রস্তুত হচ্ছে স্কুলগুলি, তা সরজমিনে পরিদর্শন করার নির্দেশ দিল স্কুল শিক্ষা দফতর।

আরও পড়ুন: নন্দীগ্রাম মামলা পিছোতে আবেদন শুভেন্দু অধিকারীর

রাজ্যের প্রতিটি জেলাতেই বিদ্যালয় পরিদর্শকদের এই নির্দেশ দিয়েছেন শিক্ষা সচিব। পাশাপাশি জেলা শাসকদেরও পরিদর্শন করার কথা বলা হয়েছে স্কুল শিক্ষা দফতরের তরফে। সেক্ষেত্রে স্কুল খোলার প্রস্তুতিতে কোনও খামতি দেখলে স্কুলগুলিকে সতর্ক করতে হবে। দীর্ঘদিন বন্ধ থাকার ফলে স্কুলের পরিকাঠামো ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য ঠিক কতটা সুবিধেজনক অবস্থায় রয়েছে, তা নিয়ে যথেষ্ট সন্দেহ রয়েছে। ফলে, এখনও কাটেনি দুশ্চিন্তা। শেষমূহুর্তে জোরকদমে চলছে স্কুলগুলির সংস্কার ও সাফাইয়ের কাজ।

আরও পড়ুন: শোভাযাত্রায় বাধা, নিয়ম মেনে দেবীর বিসর্জন

স্কুল খুললেও আপাতত প্রথম পর্যায়ে নবম শ্রেণী থেকে একাদশ শ্রেণীর ছাত্র-ছাত্রীরাই শুধুমাত্র স্কুলে যেতে পারবে। নিচু ক্লাসের ছাত্র-ছাত্রীরা আগের মতোই অনলাইন ক্লাস করবে। পরে পরিস্থিতি বুঝে ধাপে ধাপে তাদের স্কুলে আসার অনুমতি দেওয়া হবে। তবে, করোনার ভয় এখনও রয়েছে। এই পরিস্থিতিতে ছাত্র-ছাত্রীদের স্কুলে আসার ক্ষেত্রে রয়েছে একাধিক নিয়মাবলী। শিক্ষা দফতরের পক্ষ থেকে সেই গাইডলাইনও প্রকাশ করা হয়েছে। গাইডলাইনে বলা হয়েছে, প্রত্যেক ছাত্র ছাত্রীকে মাস্ক পরে স্কুলে আসতে হবে। এছাড়াও প্রতিটি স্কুলে একটি শয্যাযুক্ত আইসোলেশন রুম রাখতে হবে। স্কুল চলাকালীন আচমকা যদি কেউ অসুস্থ হয়ে পড়ে, তাকে যেন সেখানে স্থানান্তরিত করা যায়।

Facebook Twitter Email Whatsapp

এই সংক্রান্ত আরও খবর:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *