শীঘ্রই কলকাতায় আসছে সিঙ্গেল ডোজ ভ্যাকসিন স্পুটনিক লাইট

Mysepik Webdesk: ইতিমধ্যেই ভারতে সিঙ্গেল ডোজ ভ্যাকসিন স্পুটনিক লাইটের তৃতীয় পর্যায়ের ট্রায়ালের অনুমোদন দিয়েছে ড্রাগ কন্ট্রোলার জেনারল অফ ইন্ডিয়া (DGCI)। এই ট্রায়াল পরিচালনা করার দায়িত্ব পেয়েছে ড: রেড্ডি’স ল্যাব। ট্রায়াল শেষ হয়ে গেলেই বাজারে মিলবে স্পুটনিক লাইট, যার একটি মাত্র ডোজই যথেষ্ট করোনার বিরুদ্ধে লড়তে। জানা গিয়েছে, দেশজুড়ে ১০ টি হাসপাতালে সংগঠিত হবে এই ট্রায়াল প্রক্রিয়া। এই ট্রায়ালে অংশ গ্রহণ করছেন ১৭৯ জন স্বেচ্ছাসেবক।

আরও পড়ুন: নির্বাচনী প্রচারে বিধিভঙ্গ, নির্বাচন কমিশনের চিঠি প্রিয়াঙ্কা টিবরেওয়ালকে

ওই ১০টি হাসপাতালের মধ্যে তিনটি রয়েছে কলকাতায়। দক্ষিণ কলকাতার রুবি জেনেরাল হাসপাতালকে বেছে নেওয়া হয়েছে ট্রায়ালের জন্য। এছাড়াও কলকাতার স্কুল অফ ট্রপিকাল মেডিসিন ও এনআরএস মেডিকেল কলেজ এন্ড হাসপাতালে চলবে স্পুটনিক লাইটের তৃতীয় পর্যায়ের ট্রায়াল। অপেক্ষা শুধুমাত্র হাসপাতালগুলির এথিক্স কমিটির অনুমোদনের। অনুমোদন মিললেই শুরু হয়ে যাবে ট্রায়াল প্রক্রিয়া।

আরও পড়ুন: ‘দুয়ারে রেশন’ প্রকল্পে স্থগিতাদেশ নয়, হাই কোর্টে স্বস্তি রাজ্যের

DGCI জানিয়েছে, স্পুটনিক লাইট টিকায় স্পুটনিক-ভি ভ্যাকসিনের যাবতীয় উপাদান রয়েছে। সম্প্রতি একটি গবেষণায় দেখা গিয়েছে, স্পুটনিক লাইটের সিঙ্গল ডোজের টিকা করোনার বিরুদ্ধে লড়াইয়ে ৭৮.৬ থেকে ৮৩.৭ শতাংশ কার্যকরী। এই টিকার কার্যক্ষমতা স্পুটনিক-ভি ভ্যাকসিনের কার্যক্ষমতার চেয়েও বেশি। এই টিকা প্রয়োগের পর হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার ঘটনাও ৮২.১ থেকে ৮৭.৬ শতাংশ কমে গিয়েছে, আর্জেন্টিনায় প্রায় ৪০ হাজার মানুষের উপর পরীক্ষা করার পর এমনটাই জানা গিয়েছে। তাছাড়া এই সিঙ্গেল ডোজের ট্রায়ালের সময় স্বেচ্ছাসেবীকে প্ল্যাসিবো বা স্যালাইন ওয়াটার দেওয়া হবে না, সরাসরি ভ্যাকসিন দেওয়া হবে।

Facebook Twitter Email Whatsapp

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *