১৬ জুন রাজ্যে শেষ হচ্ছে বিধিনিষেধের বেড়াজাল, এমন জল্পনার মাঝে দেখে নিন কী কী ক্ষেত্রে পাওয়া যেতে পারে ছাড়

Mysepik Webdesk: দেশজুড়ে করোনাভাইরাসের দ্বিতীয় ঢেউ আছড়ে পড়ার পর একাধিক রাজ্যে জারি হয়েছে লকডাউন। এই রাজ্যেও লাগু হয়েছিল একাধিক বিধিনিষেধ। বন্ধ করে দেওয়া হয়েছিল হোটেল-রেস্তোরাঁ। রাশ টানা হয়েছিল বাস, ট্যাক্সি, লোকাল ট্রেনের মতো একাধিক গণপরিবহন ব্যবস্থার ওপর। তবে ধীরে ধীরে গোটা দেশে করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসতেই এবার সেই বিধিনিষেধের বাঁধন ধাপে ধাপে আলগা করে দেওয়ার প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। এই রাজ্যেও প্রথম পর্যায়ে ৩০ মে পর্যন্ত কার্যত লকডাউন প্রক্রিয়া জারি রাখা হয়েছিল। পরে সেই বিধিনিষেধের সময়সীমা বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সেই সময়সীমা শেষ হচ্ছে আগামী ১৫ জুন। এবার কী সেই বিধিনিষেধ তুলে নেওয়া হবে? স্বাভাবিকভাবেই এই প্রশ্ন এখন সবার মুখে মুখে।

আরও পড়ুন: লোকাল ট্রেন চালাতে রাজ্য সরকারকে আবেদন পূর্ব রেলের

বিশেষজ্ঞদের একাংশের ধারণা, একটানা একমাস ধরে রাজ্যে করোনা বিধিনিষেধ জারি রাখার সুফল মিলেছে। অনেকটাই কমেছে দৈনিক করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। কিছুদিন আগে পর্যন্ত এরাজ্যে যেখানে দৈনিক করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ২০ হাজারের ওপরে ছিল, সেই সংখ্যাটা কমে পাঁচ হাজারেরও নিচে পৌঁছে গিয়েছে। পাশাপাশি অনেকটাই বেড়েছে দৈনিক সুস্থ হওয়ার সংখ্যা। এই পরিস্থিতিতে মনে করা হচ্ছে, একেবারেই তুলে দেওয়া হবে না করোনা বিধিনিষেধ, তবে তা ধাপে ধাপে তোলা হবে। অর্থাৎ আরও কিছুটা ছাড়ের ঘোষণা করতে পারেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

আরও পড়ুন: গেরুয়া শিবিরে ‘ভাঙন’ ধরাতে মুকুল রায় ফোনে কথা বললেন বিজেপির সাংসদ-বিধায়কদের সঙ্গে!

করোনা নিয়ন্ত্রণে এখনও রাজ্যে বন্ধ রাখা হয়েছে জিম, সুইমিং পুল, সিনেমাহলগুলি। এই পর্যায়ে সম্ভবত করোনাবিধি মেনে সেগুলি খুলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিতে পারেন মুখ্যমন্ত্রী। তবে সেক্ষেত্রে বজায় রাখতে হবে বিধিনিষেধ। বিশেষ করে সিনেমাহলগুলিকে ৫০ শতাংশ দর্শকের উপস্থিতিতে খোলার অনুমতি দেওয়া হতে পারে। পাশাপাশি স্বাস্থ্যবিধি মেনে খোলার অনুমতি দেওয়া হতে পারে রাজ্যের জিম, সুইমিং পুলগুলিকে। তবে সরকারি সূত্রের খবর, কলকাতা শহরে করোনা অনেকটাই নিয়ন্ত্রণে আসলেও এখনও পর্যন্ত উত্তর ২৪ পরগনার পরিস্থিতি যথেষ্ট উদ্বেগে রেখেছে রাজ্যের স্বাস্থ্য দপ্তরকে। সেক্ষেত্রে সম্ভবত এখনই লোকাল ট্রেন এবং মেট্রো রেল চালু করার অনুমতি দেবেন না মুখ্যমন্ত্রী। তবে বিধিনিষেধের ওপর ঠিক কতটা ছাড় দিতে চলেছেন মুখ্যমন্ত্রী, তা অবশ্য জানা যাবে সোমবারই।

Facebook Twitter Email Whatsapp

এই সংক্রান্ত আরও খবর:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *