তালিবান যুগ ফিরে এলো আফগানিস্তানে, দেশত্যাগ প্রেসিডেন্ট আশরাফ গনির

Mysepik Webdesk: তালিবান যুগ ফিরে এলো আফগানিস্তানে। তালিবানের কাছে নতি স্বীকার করেছে আফগান সরকার। টোলো নিউজের তথ্য অনুযায়ী, ক্ষমতা হস্তান্তরের পর দেশটির প্রেসিডেন্ট আশরাফ গনি দেশত্যাগ করেছেন। তিনি তাজিকিস্তানের চলে গেছেন। তাঁর সঙ্গে দেশ ছেড়েছেন ভাইস প্রেসিডেন্ট আমিরউল্লাহ সালেহ-ও। একশো দিনেরও বেশি সংঘর্ষের পর আফগানিস্তান দখল করেছে তালিবান। এই তালিবানরা কাবুল দখলের পর গনি সরকার তালিবানদের সামনে আত্মসমর্পণ করেছে বলে মনে পড়ছে আন্তর্জাতিক বিশেষজ্ঞ মহল। এরপর আজ, রবিবার ক্ষমতা হস্তান্তরের পুরো প্রক্রিয়াটি চলে। ক্ষমতা হস্তান্তরের জন্য আফগান প্রেসিডেন্ট আশরাফ গনির সঙ্গে আলোচনার জন্য এসেছিলেন তালিবানের ২ নম্বর নেতা মোল্লা বরাদার। এএফপি সংবাদ সংস্থার মতে, একজন তালেবান মুখপাত্র বলেছেন যে, “তালিবান আগামী কয়েক দিনের মধ্যে শান্তিপূর্ণভাবে আফগানিস্তানের ক্ষমতা হস্তান্তর করতে চায়।” উল্লেখ্য যে, গত দশ দিনে আফগানিস্তানের বেশিরভাগ প্রধান শহরের নিয়ন্ত্রণ তালিবান দখল করার পর আফগানিস্তানের প্রেসিডেন্ট প্রবল চাপে ছিলেন। এই চাপ থেকেই তিনি এই পদত্যাগের সিদ্ধান্ত নিয়ে দেশত্যাগ করেছেন।

আরও পড়ুন: অশান্ত সময়ে ফিরছে আফগানিস্তান!

এদিকে, তালিবানের তরফ থেকে একটি বিবৃতি জারি করে বলা হয়েছে যে, তাদের যোদ্ধারা আনুষ্ঠানিকভাবে কাবুলের এলাকায় প্রবেশ করেছে এবং দফতর দখল করেছে। অন্যদিকে, গতকাল, শনিবার আশরাফ গনি জানিয়েছিলেন, তিনি কাবুলকে রক্ষা করার জন্য আফগান বাহিনীকে একত্রিত করছেন। গত ২০ বছরে দেশের যা অগ্রগতি হয়েছে, তা তিনি কোনও মতেই হারাতে চান না। তবে, শেষ রাতের পর দেখা যায় একেবারে অন্য চিত্র। তালিবান অতি দ্রুত অগ্রসর হতে থাকে কাবুলের দিকে। প্রথমে উত্তরের মাজার-ই-শরীফ দখল করে নেয় তারা। তারপর কোনও প্রতিরোধ ছাড়াই জালালাবাদ এবং অন্যান্য শহরও নিজেদের আয়ত্তে নিয়ে নেয় তালিবানরা।

AFP via Getty Images

তালিবানরা তাদের ক্ষমতা এতটাই বাড়িয়েছিল যে, প্রেসিডেন্ট গনির কাছে আর কোনও উপায় ছিল না। এমনকী অবস্থা বেগতিক দেখে আমেরিকা যুক্তরাষ্ট্রও তাঁকে পদত্যাগ করে অন্তর্বর্তীকালীন প্রশাসন নিয়োগ করার কথা জানায়। এদিকে কাবুলের বেশ কয়েকটি এলাকায় চুরি ও লুটপাটের খবর চাউর হওয়ার পর তালিবানের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, তাদের যোদ্ধারা দুর্বৃত্তদের দমন করতে শহরে প্রবেশ করেছে। তালিবান তাদের যোদ্ধাদের নির্দেশ দিয়েছে, সাধারণ মানুষকে হয়রানি না করার জন্য। কারোর বাড়ি দখল না করার কথাও তারা জানিয়েছে। এর আগে তালিবানের পক্ষ থেকে বলা হয়েছিল যে, তারা কাবুলের সব মানুষের জানমালের নিরাপত্তার নিশ্চয়তা দেবে। তাদের তরফে আরও জানানো হয়েছিল, যারা শহর ছেড়ে চলে যেতে চায় তাদের বাধা দেওয়া উচিত নয়। অন্যদিকে, কাবুল বিমানবন্দরে এয়ার ইন্ডিয়ার বিমানের নিরাপত্তা এবং বোর্ডিং প্রক্রিয়া চলছে। এয়ার ইন্ডিয়ার বিমান ১২৯ জন যাত্রী নিয়ে কাবুল থেকে দিল্লি আসছে বলে খবর।

Facebook Twitter Email Whatsapp

এই সংক্রান্ত আরও খবর:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *