তৃণমূল দলটাই এখন বিজেপি হয়ে গেছে, ব্রিগেডে তীব্র শ্লেষ সূর্যকান্ত মিশ্রের

Surjya Kanta Mishra

Mysepik Webdesk: এদিনের মহানগরের জনস্রোত ছিল ব্রিগেডমুখী। সড়কপথ কিংবা রেলপথ, সর্বত্রই চোখে পড়ছিল বাম-কংগ্রেস সমর্থকদের। রাস্তার মোড়ে মোড়ে দুই দলের কর্মী -সমর্থকদের ভিড় ছিল ঈর্ষণীয়। হাওড়া থেকে বাবুঘাটগামী লঞ্চেও ভিড় জমিয়েছিলেন মানুষ। সকাল সকাল কংগ্রেস নেতা ঋজু বসু করলেন তাৎপর্যপূর্ণ মন্তব্য। তিনি বললেন, “এবারের ব্রিগেড যেমন বনলতা সেনের ব্রিগেড তেমনই টুম্পারও। মানুষের সহজাত উচ্ছ্বাসের বহিঃপ্রকাশ হল এই ব্রিগেড।” এরপর ব্রিগেডের পথে রওনা দেন চলচ্চিত্র পরিচালক তরুণ মজুমদার কিংবা নখে বিশেষ ধরনের পেন্টিং করে হাতে কাস্তে-হাতুড়ি-তারা পতাকা নিয়ে অভিনেত্রী শ্রীলেখা মিত্র।

আরও পড়ুন: বাম ব্রিগেডেও টলিউড তারকারা

বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে সভামঞ্চে উপস্থিত হন সীতারাম ইয়েচুরি, বিমান বসুরা। এদিনের ব্রিগেডের সমাবেশকে অভূতপূর্ব আখ্যা দিয়ে বিমান বসু বলেন, এমন সমাবেশ অতীতে কেউ দেখেননি। তিনি আরও বলেন, যাঁরা বলেন দূরবিন দিয়ে বামেদের দেখতে হয়, তাঁরা এই সমাবেশের খবর নিন। এই সমাবেশের পর বিজেপি-তৃণমূল একদিকে থাকবে, অন্যদিকে থাকব আমরা সবাই। বামপন্থী নেতা সূর্যকান্ত মিশ্র তীব্র শ্লেষাত্মক বাক্যবন্ধনী ব্যবহার করে বলেন, “মুখ্যমন্ত্রী শুরু করেছিলেন দিদিকে বলো দিয়ে কিন্তু এখন গোটা দলটাই বিজেপি হয়ে গিয়েছে।”

আরও পড়ুন: হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ের মধ্যেই তৃণমূলের জয়ের ইঙ্গিত

তিনি আরও বলেন, “আসন ভাগাভাগি করে কেবল নয়, মানুষের কাছে আমাদের পৌঁছতে হবে, লড়াই করতে হবে, সমালোচনা মাথা পেতে নিতে হবে। আমরা কাজ করতে চাই। বিকল্পও চাই। আমাদের লড়াই খেটে খাওয়া মানুষের জন্য লড়াই। যাঁরা বৈষম্যের শিকার, তাঁদের নিয়ে লড়াই।” সিপিআইএমের রাজ্য সম্পাদকের কথায়― “এখন রাজনীতিতে তরজা গান চলছে, যাতে মোরগ-মোরগ লড়াই হয়, তারা চিবিয়ে খেতে পারে হাড়গোড়। তাদের এমন কৌশল শোষণ এবং বঞ্চনাকে চাপা দেওয়ার জন্য। তাদের বিরুদ্ধেই আমাদের লড়াই।”

Facebook Twitter Email Whatsapp

এই সংক্রান্ত আরও খবর:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *