দেশ চালানোর টাকা নেই তাই অন্য দেশ থেকে ধার করতে হচ্ছে, স্বীকারোক্তি ইমরান খানের

Mysepik Webdesk: দিনে দিনে পাকিস্তানের আর্থিক অবস্থা শোচনীয় হয়ে উঠছে। একথা আমারা অনেকেই জানি। কিন্তু তা বলে দেশ চালানোর মতো টাকা নেই কোষাগারে? একথা বিশ্বাস করা শক্ত হলেও এমনটাই স্বীকার করেছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। মঙ্গলবার একটি অনুষ্ঠানে যোগ দেওয়ার সময় সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখো হয়ে তিনি জানান, “পাকিস্তানের আর্থিক অবস্থা শোচনীয় হয়ে উঠেছে। আর এই কারণে অন্য দেশের কাছ থেকে ঋণ নিতে হচ্ছে।”

আরও পড়ুন: ভয়াবহ সড়ক দুর্ঘটনা পশ্চিম বুলগেরিয়ায়, অগ্নিদগ্ধ হয়ে মৃত্যু ১২ শিশু-সহ ৪৫ জনের

ইসলামাবাদে ফেডারাল বোর্ড অফ রেভিনিউ-র প্রথম ট্র্যাক অ্যান্ড ট্রেস সিস্টেমের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে দিয়েছিলেন ইমরান খান। সেখানে তিনি একথা সংবাদমাধ্যমের সামনে অকপট স্বীকার করেন। তিনি আরও বলেন, “বৈদেশিক ঋণ বৃদ্ধি এবং কর রাজস্ব হ্রাস, এই দুই মাইল কোথাও জাতীয় নিরাপত্তা চরমতম একটি সমস্যা হয়ে দাঁড়িয়েছে এবং সরকারের কোষাগারে জনগণের কল্যাণে ব্যয় করার মতো পর্যাপ্ত অর্থ নেই।”

আরও পড়ুন: রাস্তা তৈরির নামে প্রায় ৩০০ ক্যাঙ্গারু নিধন করতে চলেছে অস্ট্রেলিয়া!

এর জন্য ইমরান খান দায়ী করেন তাঁর দেশের বাসিন্দাদের। তিনি বলেন, “ঔপনিবেশিক যুগ থেকেই পাকিস্তান সরকারকে কর না দেওয়ার একটা প্রবণতা চলে আসছে। অনেকেই ভাবেন তাঁদের টাকা ঠিকমতো তাঁদের উপর খরচ হচ্ছে না। আর এই কারণেই ট্র্যাক অ্যান্ড ট্রেস সিস্টেম লাগু করে চিনি, তামাকজাত দ্রব্য এবং সারের মতো অনেক কিছু গুরুত্বপূর্ণ ক্ষেত্রে উৎপাদন আর বিক্রির নজরদারি করা হবে।” তাঁর মতে এই ব্যাবস্থার ফলে পাকিস্তানের অর্থনৈতিক অবস্থা স্থিতিশীল হবে আর রাজস্ব বৃদ্ধি হবে।

Facebook Twitter Email Whatsapp

এই সংক্রান্ত আরও খবর:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *