Latest News

Popular Posts

নতুন বছরে গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠতে পারে এই বিশেষ প্রযুক্তিগুলি

নতুন বছরে গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠতে পারে এই বিশেষ প্রযুক্তিগুলি

Mysepik Webdesk: ২০২২ সালে প্রযুক্তিগতভাবে উন্নত বেশ কিছু নতুন গ্যাজেট দেখতে পাওয়া যাবে, যার আভাস আগেই পাওয়া গিয়েছে। গত ৫ থেকে ৮ জানুয়ারি পর্যন্ত আমেরিকার লাস ভেগাসে হয়ে যাওয়া বিশ্বের সবচেয়ে বড় ইলেকট্রনিক প্রদর্শনী কনজ্যুমার ইলেকট্রনিক শো থেকে জানা গিয়েছে চলতি বছরে ঠিক কোন কোন প্রযুক্তিগুলি আমাদের দৈনন্দিন জীবনের অংশ হতে চলেছে। ‘সিইএস’ মেলা নামে পরিচিত ওই শো থেকে ২০২২ সালে প্রযুক্তি কোন পথে এগুবে তার একটা ধারণা পাওয়া গেছে। আসুন জেনে নেওয়া যাক ওই প্রযুক্তিগুলি কী কী হতে চলেছে।

আরও পড়ুন: কে সিভানের জায়গায় ইসরোর প্রধান হলেন এস সোমনাথ

মেটাভার্স: থ্রিডি ভার্চুয়াল জগতের মাধ্যমে সোশ্যাল কানেকশন তৈরি করাই হল মেটাভার্স। ফেসবুকের প্রতিষ্ঠান সংস্থা ‘মেটা’ এই বিশেষ ভার্চুয়াল জগৎ সৃষ্টি করতে চলেছে। এতে যে কেউ অংশ নিয়ে ভার্চুয়াল জগতের ভিন্ন এক অভিজ্ঞতা অর্জন করতে পারবে। নতুন বছরে শুধু ফেসবুকই নয়, অন্য আরও প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানও এ ধরনের মেটাভার্স তৈরির প্রতিযোগিতায় নামবে। ভার্চুয়াল রিয়েলিটি সফটওয়্যাার তৈরি প্রতিষ্ঠান ভিআর ডিরেক্টের সিইও রলফ ইলেনবার্গারের মতে তেমনটাই হতে চলেছে। গুগল, মাইক্রোফট, অ্যাপেল কোম্পানিগুলো তাদের নিজস্ব হেডসেট, অপারেটিং সিস্টেম তৈরি করবে মেটাভার্সের জন্য। শুধু বড় কোম্পানিই না, স্টার্টআপ অর্থাৎ নতুন গড়ে উঠা অনেক কোম্পানিও এই মেটাভার্স জগৎ তৈরির লড়াইয়ে নামবে।

আরও পড়ুন: ক্যামেরায় ধরা পড়ল এলিয়েনের ছবি! চাঞ্চল্য

স্মার্ট হোম: স্মার্টফোনের মতোই নতুন বছরে আপনার বাড়িও হয়ে উঠতে পারে একটি স্মার্টহোম।টেক কোম্পানি যেমন, অ্যাপেল, আমাজন, গুগল ও স্যামসাং একজোট হয়ে ‘ম্যাটার’ নামে স্মার্টহোম তৈরির একটি ব্লু-প্রিন্ট তৈরি করেছে। এর লক্ষ্য হল ভবিষ্যতে আমরা স্মার্ট হোমের জন্য যতো গ্যাজেট কিনবো, সেগুলো একটি আরেকটির সঙ্গে মানিয়ে নিয়ে একসঙ্গে কাজ করতে সক্ষম হবে।

ইলেকট্রিক গাড়ি: বেশ কয়েক বছর আগে থেকেই ইলেকট্রিক গাড়ি নির্মাণের উদ্যোগ নিয়েছে অনেক কোম্পানি। সে ধারাবাহিকতায় চলতি বছরে ফোর্ড, জেনারেল মোটরস, মার্সেডিজ বেঞ্জ, ভক্সওয়াগনের মতো বড় বড়ো কোম্পানিগুলিও কম দামে ইলেকট্রিক গাড়ি এনে বাজারজাত করবে। ইলেকট্রিক গাড়ির বিশাল বাজার ধরতে যাচ্ছে টেসলা কোম্পানি। লুসিড ও রিভিয়ানের মতো নতুন কোম্পানিও প্রতিযোগিতায় শামিল হতে চলেছে।

আরও পড়ুন: সমুদ্রগর্ভে তলিয়ে গিয়েছে পৃথিবীর অষ্টম মহাদেশ!

গ্যাজেট মেরামত: ফোন, ল্যাপটপ, ট্যাবলেটের মতো আমরা যেসব গ্যাজেট বর্তমানে ব্যবহার করি, সেগুলোতে সমস্যা দেখা দিলে তা সারানো যথেষ্ট কঠিন কাজ। তবে চলতি বছরে গ্যাজেট মেরামত আরও সহজ হতে চলেছে। এতো বছর অ্যাপেল তাদের গ্যাজেট সারানোর ক্ষেত্রে গোপনীয়তা বজায় রেখেছিল। তবে, এ বছর তাদের প্রোডাক্ট মেরামত করতে ‘সেলফ সার্ভিস’ রিপেয়ার প্রোগ্রাম চালু করতে যাচ্ছে কোম্পানিটি। এতে করে আইফোন ও ম্যাক কম্পিউটার সারাতে পারবে যে কেউ। মাইক্রোসফটও একই সুযোগ দেবে।

পরিধানযোগ্য ডিভাইস: কয়েক বছর আগে থেকেই বড় কয়েকটি কোম্পানি স্মার্টওয়াচ তৈরি করে আসছে। একটু দামি হলেও সেসব স্মার্টওয়াচ কবজিতে পরে যে কেউ তার হৃদযন্ত্রের স্পন্দন, ঘুম, ক্যালরি এসব পরিমাপ করতে পারে। চলতি বছরে আরো কম দামে স্মার্ট গয়নাও আসতে চলেছে বাজারে। যেমন- আঙুলে স্মার্ট আংটি পরে বা হাতে স্মার্ট ব্রেসলেট পরে হৃদস্পন্দন ও রক্তচাপ জানা যাবে।

টাটকা খবর বাংলায় পড়তে লগইন করুন www.mysepik.com-এ। পড়ুন, আপডেটেড খবর। প্রতিমুহূর্তে খবরের আপডেট পেতে আমাদের ফেসবুক পেজটি লাইক করুন। https://www.facebook.com/mysepik

Related Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *