স্বাধীন ভারতে এই প্রথম ফাঁসি হতে চলেছে কোনও মহিলা অপরাধীর

Mysepik Webdesk: ভারত স্বাধীন হওয়ার পর এই প্রথম কোনও মহিলার ফাঁসি হতে চলেছে। ফাঁসি হতে পারে উত্তরপ্রদেশের শবনম আলির (৩৮)। ২০০৮ সালে নিজের প্রেমিকের সঙ্গে মিলে নিজের পরিবারের সাত সদস্যকে নৃশংসভাবে খুন করেছে। ইতিমধ্যেই তার প্রাণভিক্ষার আর্জি খারিজ করে দিয়েছে রাজ্যপাল এবং রাষ্ট্রপতি। খুব শীঘ্রই তাকে মৃত্যুদণ্ড দেওয়া হবে বলে জানা গিয়েছে।

আরও পড়ুন: বিজেপি সরকারে এলে আমফান দুর্নীতিতে যারা টাকা নিয়েছে, তাদের শাস্তি হবে: অমিত শাহ

Image result for shabnam ali

এই মুহূর্তে রামপুর জেলা সংশোধনাগারের আছে শবনম। ওই সংশোধনাগারের জেলার রাকেশ কুমার বর্মা জানিয়েছেন, তার ফাঁসির জন্য যাবতীয় ব্যবস্থা করা হয়ে গিয়েছে। মহিলা অপরাধীর ফাঁসির নিয়ম অনুসারে তাকে মথুরা জেলা সংশোধনাগারে স্থানান্তরিত করার জন্য আমরোহা জেলা প্রশাসনকে আর্জি জানানো হয়েছে। কারণ ভারতের মধ্যে একমাত্র মথুরা জেলেই মহিলাদের ফাঁসি দেওয়ার ব্যবস্থা করা রয়েছে। ফাঁসি দেবেন ফাঁসুড়ে পবন জল্লাদ। ইতিমধ্যেই তিনি মথুরা জেলে গিয়ে সমস্ত ব্যবস্থা সরজমিনে দেখে এসেছেন।

আরও পড়ুন: পেট্রল-ডিজেলের দাম নিয়ে মুখ খুললেন মোদি, কি বললেন তিনি?

Image result for shabnam ali

প্রসঙ্গত, ইংরেজি এবং ভূগোলে স্নাতক হওয়ার পর শবনম গ্রামের একটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পড়াতো। সেই সময়ে সেলিমের সঙ্গে তার প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। সেই সম্পর্কে শবনমের পরিবার আপত্তি জানালে নিজের বাবা, মা, দুই ভাই, দুই বৌদি এবং ১০ মাসের ভাইপোকে প্রথমে নেশার দ্রব্য খাইয়ে পরে খুন করে সে। ২০১০ সালে আমরোহার নিম্ন আদালত। শবনম এবং সেলিমকে মৃত্যুদণ্ডের সাজা দিয়েছিল। পরে ফাঁসি রুখতে এলাহাবাদ হাইকোর্ট এবং সুপ্রিম কোর্টেও আবেদন করেছিল তারা। যদিও গত বছরের জানুয়ারিতে শবনমের রিভিউ পিটিশন খারিজ হয়ে গিয়েছিল।

এই সংক্রান্ত আরও খবর:

Facebook Twitter Email Whatsapp

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *