যাত্রী নিরাপত্তা সুনিশ্চিত করতে এবার লোকাল ট্রেনের কামরায় বসছে সিসিটিভি

local train cctv

Mysepik Webdesk: যাত্রী নিরাপত্তার বিষয়টা আরও আঁটোসাঁটো করতে এবার লোকাল ট্রেনের কামরায় বসতে চলেছে সিটিটিভি ক্যামেরা। ইতিমধ্যেই পূর্ব রেলের তরফ থেকে টেন্ডার ডাকা হয়েছে। পাশাপাশি দক্ষিণ-পূর্ব রেলের লোকাল ট্রেনগুলিতে সিসিটিভি বসানোর কাজও শুরু হয়ে গিয়েছে। ট্রেনের কামরায় চুরি, ছিনতাই, শ্লীলতাহানির মতো অপ্রীতিকর ঘটনা ঠেকাতেই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। করোনার আবহে বর্তমানে লোকাল ট্রেন বন্ধ থাকায় সেই সুযোগে জোরকদমে চলছে সিসিটিভি বসানোর কাজ।

আরও পড়ুন: এবার থেকে প্রতিদিন হাওড়া থেকে মুম্বই ও আমদাবাদের ট্রেন ছাড়বে

জানা গিয়েছে, ট্রেনের কামরায় কীভাবে সিসিটিভি বসানো হবে, তার নকশা তৈরি করছে চেন্নাইয়ের ইন্টিগ্রেটেড কোচ ফ্যাক্টরি। আর সেই নকশা মেনেই ইএমইউ লোকাল ট্রেনে সিসিটিভি বসানোর নির্দেশ দিয়েছে রেল বোর্ড। জানা গিয়েছে, প্রতিটি কামরায় গড়ে ৫-৬টি উচ্চক্ষমতার আইপি ডোম সারভেইল্যান্স ক্যামেরা বসানো হচ্ছে। এর ফলে মোটরমান ও গার্ড ট্রেনের কামরার ভেতর কী হচ্ছে, তা সহজেই দেখতে পাবেন। এছাড়াও যাত্রাপথে ট্রেনের কামরার ভেতরের ভিডিও স্বয়ংক্রিয়ভাবে রেকর্ডিংও হয়ে যাবে। কোনও অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটলে সেই ফুটেজ দেখে অপরাধীকে সনাক্ত করা শহর হবে। এছাড়াও মূল সার্ভারটি থাকবে রেলের দফতরে।

আরও পড়ুন: ‘হাতরাসের ঘটনা বীভৎস’, মন্তব্য শীর্ষ আদালতের

সিসিটিভির পাশাপাশি লেডিজ স্পেশাল ট্রেনে অথবা সাধারণ ইএমইউ লোকালে মহিলা কামরার বাইরে লালবাতির সাইরেন থাকবে। বিপদ চেন টানলে সেই লালবাতি জ্বলে উঠবে এবং সাইরেন বাজবে। এর ফলে মোটরম্যান এবং গার্ড বিপদ সঙ্কেত পেয়ে যাবেন। প্রয়োজনে তাঁরা রেলের সিকিউরিটি কন্ট্রোলকে বিপদের কথা জানাতে পারবেন। এছাড়াও জিপিএস-এর সাহায্যে কামরায় বসানো এলইডি স্ক্রিনে স্টেশনের নাম-সহ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ তথ্য জানতে পারবেন যাত্রীরা।

Facebook Twitter Email Whatsapp

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *