বিষ্ণুপুর দলমাদল সর্বজনীন দুর্গোৎসবের এবারের থিম শতবর্ষে সত্যজিৎ

তিরুপতি চক্রবর্তী

বাঁকুড়ার বিষ্ণুপুর শহরের একটি দুর্গাপুজোর কথা বলব। বিষ্ণুপুর শহরের একটি বারোয়ারি দলমাদল সর্বজনীন দুর্গোৎসব কমিটি, ছিন্নমস্তা মন্দিরের পাশে বা বিখ্যাত কামান  দলমাদল দেখতে দেখতে আপনি এসে পড়বেন এই মণ্ডপে। ১৮ বছরে তাদের এই মাতৃ আরাধনা। কিন্তু এই অল্প সময়ে তারা জেলার মধ্যে উল্লেখযোগ্য নাম করে নিয়েছে। কারণ তাদের উল্লেখযোগ্য শিল্পভাবনা।

প্রতিবছর তাদের আরাধনা বিশেষ তারিফ পায়। এবারও তার ব্যতিক্রম হয়নি। তাদের এবারের নিবেদন চঞ্চল সূত্রধরের অসাধারণ শৈল্পিক মৃন্ময়ী মূর্তি। পাশাপাশি, এবার তারা হাজির করেছে হাতে আঁকা সত্যজিৎ রায়ের সব সিনেমার পোস্টার।

গোটা মণ্ডপে আপনি হারিয়ে যাবেন পথের পাঁচালী, অপরাজিত, থেকে বিভিন্ন সিনেমার দৃশ্যে; ভয় নেই ফেলুদা রয়েছেন, ঠিক খুঁজে বের করে দেবেন আপনাকে। সৌভিক কালীর অসামান্য নিখুত আাঁকা।  আপনাকে স্মৃতিমেদুর করে তুলবেই। তাদের এবারের নিবেদন, এ শতবর্ষে সত্যজিৎ রায়।

বাংলার আবেগ ভালোবাসা ঐতিহ্যে জড়িয়ে থাকা অস্কার জয়ী পরিচালক সত্যজিৎ রায়কে সম্মান জানিয়ে দলমাদল সর্বজনীন দুর্গোৎসব এর ১৮তম বর্ষ উদ্‌যাপন করছে। মণ্ডপজুড়ে রয়েছে সত্যজিৎ রায়ের অমর সৃষ্টির হাতে আঁকা চিত্র।

দলমাদল সর্বজনীন দুর্গোৎসব চেয়েছে বাঙালিকে বাঙালির আবেগের উৎসবে নস্টালজিক করে তুলেছে। সন্দেশের প্রচ্ছদ আপনাকে মনে করাবে শৈশবের শারদীয়াকে। এই করোনাকালেও তাদের এই প্রচেষ্টা এবারও জেলার সেরা নির্বাচীত হয়েছে।

এই সৌভিক কালীরা এবার একটি গ্রামকে সুন্দরভাবে দেওয়াল চিত্র এঁকে তারা এবার দুর্গাপুজোয় কোভিড যোদ্ধাদের শ্রদ্ধা জানিয়েছন। যা করোনাকালে উচ্চ প্রশংসিত হয় সারারাজ্য ব্যাপী। যামিনী রায়ের জেলার তাঁর অনুরাগী সৌভিক কালীর এক অসামান্য প্রয়াসের খণ্ডচিত্র রইল এ লেখায়।

ছবি সংগৃহীত

Facebook Twitter Email Whatsapp

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *