দেশকে করোনামুক্ত করতে চারদিন ধরে শুরু ‘টিকা উৎসব’

Mysepik Webdesk: দেশজুড়ে বেড়েই চলেছে করোনার প্রকোপ। আর সেই করোনাকে নিয়ন্ত্রণ করতে নেওয়া হয়েছে একাধিক পদক্ষেপ। ইতিমধ্যেই গত কয়েকদিন ধরে একাধিক রাজ্যে শুরু হয়েছে নাইট কার্ফু। তবুও বাগে আনা যাচ্ছে না করোনা সংক্রমণ। মহারাষ্ট্র, ছত্তীসগড়, ঝাড়খণ্ড, তামিলনাড়ু, পাঞ্জাবের মতো রাজ্যগুলিতে তুলনামূলক অনেকটাই বৃদ্ধি পাচ্ছে দৈনিক সংক্রমণ। শুধু তাই নয়, কলকাতা-সহ গোটা পশ্চিমবঙ্গেই প্রতিদিন বাড়ছে দৈনিক আক্রান্তের সংখ্যা, যা স্বাভাবিকভাবেই চিন্তার ভাঁজ ফেলেছে কেন্দ্রের কপালে। তবে কেন্দ্রের আশ্বাস এই পরিস্থিতি সামাল দেওয়া সম্ভব একমাত্র গণটিকাকরণ প্রক্রিয়ার মাধ্যমেই।

আরও পড়ুন: উদ্বেগ: করোনায় ক্রমে ঊর্ধ্বমুখী পশ্চিমবঙ্গ, দেশে শীর্ষে মহারাষ্ট্র

দেশজুড়ে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ আছড়ে পড়ায় সেই ঢেউকে প্রতিহত করতে বৃহস্পতিবার দেশের প্রতিটি রাজ্য ও কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলের মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে একটি বৈঠকে বসেছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। সেই বৈঠকেই তিনি জানিয়েছিলেন, ১১ থেকে দেশজুড়ে চালু হবে টিকা উৎসব। উৎসব চলবে ১৪ এপ্রিল পর্যন্ত। করোনার প্রভাব রুখতে এই টিকা উৎসবে প্রত্যেক দেশবাসীকে তিনি এগিয়ে আসার জন্য আবেদন জানিয়েছিলেন। তিনি জানান, “গত এক বছরের বেশি সময় ধরে আমরা পূর্ণ উৎসাহ নিয়ে কোনও উৎসবই পালন করতে পারিনি। কোনও উৎসব পালন করা হলেও তা হয়েছে একাধিক বিধিনিষেধ মেনেই। এই পৃথিবী আর আগের মতো নেই। কোনও উৎসবই আর আগের মতো খোলামোলাভাবে পালন করা সম্ভব হচ্ছে না। তবে আজ থেকে চারদিনব্যাপী যে উৎসব চলবে, তা আপনি খোলামেলাভাবেই পালন করতে পারবেন।”

আরও পড়ুন: ৫ এপ্রিল থেকে ৭১টি অসংরক্ষিত ট্রেন পরিষেবা শুরু করছে ভারতীয় রেল

ওই বৈঠকে তিনি জানান, যেভাবে দেশজুড়ে করোনার প্রকোপ বেড়ে চলেছেন, তাতে যত শীঘ্রই সম্ভব দেশজুড়ে করোনার টিকাকরণ শেষ করে ফেলতে হবে। ৪৫ বছরের বেশি বয়সী প্রত্যেক মানুষকে টিকা দিতে হবে। যদিও আগে কেন্দ্রীয় সরকারের পক্ষ থেকে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল, শুধুমাত্র ৬০ বছরের বেশি বয়সী মানুষদের টিকা দেওয়া হবে। কিন্তু দ্বিতীয় পর্যায়ে করোনার ঢেউ আছড়ে পড়ায় অবশ্য সেই সিদ্ধান্তের বদল ঘটানো হয়েছে। জানানো হয়েছে, ৪৫ বছরের বেশি বয়সী বেশিরভাগ মানুষকেই এবার টিকা দিতে হবে। এই টিকাকরণ অভিযানের মাধ্যমেই বহু মানুষের টিকাকরণ সম্ভব বলে মনে করেন প্রধানমন্ত্রী।

Facebook Twitter Email Whatsapp

এই সংক্রান্ত আরও খবর:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *