শিবরাত্রি উপলক্ষে আজ জমজমাট কুম্ভনগরী হরিদ্বার, শুরু হল শাহী স্নান

Mysepik Webdesk: কুম্ভনগরী হরিদ্বারে আজ শাহী স্নান শুরু হয়েছে। আজ মহাশিবরাত্রি উপলক্ষে সাতজন সাধু শাহী স্নান করছেন। প্রথমে জুনা আখড়ার সাধুগণ স্নান করেন। এর পরে, আওহানা আখড়ার সাধুগণ এবং তারপরে কিন্নর আখড়া একটি রাজকীয় স্নান করেন। কিন্নর অ্যারেনা হরিদ্বার কুম্ভটিতে প্রথমবারের মতো যোগদান করেছে।

এখন নিরঞ্জনি আখড়ার সাধুগণ স্নানের জন্য হর কি পৌরীতে পৌঁছেছেন। এর পরে আনন্দ আখড়ার সাধুদের পালা। এর আগে, উত্তরাখণ্ড পুলিশের ব্যান্ড ‘নমো শিবায়’ সুর বাজিয়ে সাধুদের স্বাগত জানায়। আজ কেবল সাধুরাই হর কি পৌরীতে স্নান করছেন। এই কারণে অনেকগুলি ঘাট খালি করা হয়েছে। সন্ধ্যা সাড়ে ছ’টার পরে, সাধারণ মানুষ হর কি পৌরীতে স্নান করতে পারবেন।

এবার করোনার কারণে সরকার কুম্ভের সময়কাল চার মাস থেকে কমিয়ে এক মাস করেছে। সরকারের বিজ্ঞপ্তি অনুসারে, কুম্ভ ১ এপ্রিল থেকে ৩০ এপ্রিল পর্যন্ত অনুষ্ঠিত হবে। তবে আখড়ার ঐতিহ্য অনুসারে মহাশিবরাত্রি দিন থেকে প্রথম শাহী স্নান শুরু হল।

১২, ১৪ ও ২৭ তারিখে অনুষ্ঠিত আসন্ন শাহী স্নানের দিনগুলিতে আখড়ার নিয়মের কিছু পরিবর্তন হবে। আসন্ন স্নানের মধ্যে নিরঞ্জনি আখড়া প্রথম স্নান করবে। অ্যারেনা কাউন্সিলের সভায় এই পর্যায়ক্রমে সমস্ত আখড়াকে প্রস্তুত করা হয়েছে। প্রত্যেকেই তাদের আলাদা আলাদা স্নানের সময়ও সময় স্থির করেছে।

শাহী স্নানকে মধ্যনজরে রেখে হরিদ্বারে মেলা প্রশাসন ও জেলা প্রশাসনের সঙ্গে হাজার হাজার পুলিশ ও আধা সামরিক বাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে। বড় বাণিজ্যিক ট্রাক এবং ভারী যানবাহন শহরে নিষিদ্ধ করা হয়েছে এবং অনেক রুটেরও পরিবর্তন করা হয়েছে।

হরিদ্বারের মেলা আধিকারিক দীপক রাওয়াত, জেলা ম্যাজিস্ট্রেট সি রবি শংকর ও কুম্ভ মেলা পুলিশ ইন্সপেক্টর সঞ্জয় গুনজায়াল বুধবার মহাশিবরাত্রি উৎসব ও শাহী স্নান যাতে সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করানো যায়, সেই কারণে মেলা নিয়ন্ত্রক সভাঘরে এক সভার আয়োজন করেন। এখানে কর্মকর্তারা নির্দেশিকাও জারি করেন। এই সভায় করোনা সম্পর্কে কেন্দ্র এবং রাজ্য সরকার কর্তৃক জারি করা স্ট্যান্ডার্ড অপারেটিং প্রসিডিওর অনুসরণ করার কথা বলা হয়েছে।

যাঁরা কোভিড নেগেটিভ রিপোর্ট আনবেন, তাঁদেরই মেলা ক্যাম্পাসে ঢুকতে দেওয়া হবে। সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে ধর্মশালা, হোটেল, হাসপাতাল, লজ ইত্যাদিতে তীর্থযাত্রীদেরও করোনা টেস্ট করা হবে। এর জন্য, স্বাস্থ্য বিভাগের ২০টি দল গঠন করা হয়েছে। নিরাপত্তার জন্য প্রত্যেক দলের সঙ্গে দুই পুলিশ সদস্য মোতায়েন করা হবে।

Facebook Twitter Email Whatsapp

এই সংক্রান্ত আরও খবর:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *