স্থানীয় ক্ষোভের লাগাম টানতে শেষ মুহূর্তে চার কেন্দ্রে প্রার্থী বদল করল তৃণমূল কংগ্রেস

TMC Rally

Mysepik Webdesk: গত ৫ মার্চ রাজ্যজুড়ে প্রার্থী ঘোষণা করেছিলেন তৃণমূল কংগ্রেস সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তাতে কিছু কিছু কেন্দ্রে স্থানীয়দের মধ্যে ক্ষোভের সঞ্চার হতে থাকে। ফলে একপ্রকার বাধ্য হয়েই শেষ মুহূর্তে চার কেন্দ্রে প্রার্থী বদল করল তৃণমূল কংগ্রেস। তাঁদের মধ্যে দু’জন বিদায়ী বিধায়ককে সরিয়ে দেওয়া হল। আবার এক বিদায়ী বিধায়ককে টিকিট দেওয়া হল।

আরও পড়ুন: এবারে রাজ্যের নিরাপত্তা উপদেষ্টা সুরজিত্ কর পুরকায়স্থকে ডেকে পাঠাল ইডি

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যে প্রার্থী তালিকা প্রকাশ করেছিলেন তাতে আমডাঙা থেকে টিকিট পেয়েছিলেন মুস্তাক মোর্তাজা। কিন্তু স্থানীয়রা ভূমিপুত্রকে প্রার্থী করার দাবি জানিয়ে সন্তোষপুর মোড়ের কাছে ৩৪ নম্বর জাতীয় সড়ক অবরোধ করে। প্রায় ঘণ্টাদুয়েক বিক্ষোভ চলে। তারপরেও তাদের ক্ষোভ কমেনি। অবশেষে শুক্রবার সেই কেন্দ্র থেকে ওই কেন্দ্রের বিদায়ী বিধায়ক রফিকুল রেহমানকে টিকিট দেওয়া হয়েছে।

আরও পড়ুন: “না আমি কখনওই কোনও মতে বিজেপিতে দাঁড়াচ্ছি না” দিল্লিতে নাম ঘোষণার পরই জানালেন সোমেন-জায়া

বীরভূমের তৃণমূল জেলা সভাপতি অনুব্রত মণ্ডলের গড়ের বিধানসভা কেন্দ্র দুবরাজপুর থেকে এবারে প্রার্থী করা হয়েছিল অসীমা ধীবরকে। কিন্তু খয়রাশোল পঞ্চায়েত সমিতির সহ-সভানেত্রীকে তৃণমূলের জেলা নেতৃত্বের একেবারেই পসন্দ ছিল না। দলীয় কর্মীদের মধ্যেও ক্ষোভের সঞ্চার হয়। ফলে দুবরাজপুর কেন্দ্র থেকে অসীমা ধীবরের পরিবর্তে দেবব্রত সাহাকে প্রার্থী করেছে তৃণমূল।

অন্যদিকে, উত্তর ২৪ পরগনার অশোকনগর থেকে বিদায়ী বিধায়ককে ধীমান রায়ের পরিবর্তে নারায়ণ গোস্বামীকে প্রার্থী করেছে তৃণমূল। এছাড়া নদিয়ার কল্যাণী কেন্দ্রে বিদায়ী বিধায়ক রমেন্দ্রনাথ বিশ্বাসকে সরিয়ে অনিরুদ্ধ বিশ্বাসকে প্রার্থী তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। তৃণমূল সূত্রে খবর, প্রার্থী ঘিরে অসন্তোষের জেরেই প্রার্থী রদবদল করা হয়েছে।

এই সংক্রান্ত আরও খবর:

Facebook Twitter Email Whatsapp

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *