কড়া নজরে রাখা হয়েছে ট্রাম্পকে, ওয়াশিংটন জুড়ে চলছে কারফিউ

Mysepik Webdesk: মার্কিন পার্লামেন্টের ঘটে গেছে অনাকাঙ্ক্ষিত এক ঘটনা। ৬ জানুয়ারিকে আমেরিকার গণতন্ত্রের ইতিহাসে ‘কালো দিন’ বলে উল্লেখ করা হয়েছে। ডোনাল্ড ট্রাম্পকে সমর্থনকারী রিপাবলিকান দলের কিছু সদস্য ক্যাপিটল হিলে ঢুকে গুলি চালিয়ে রীতিমতো চাঞ্চল্য তৈরি করেছিল। চারজন মারা গিয়েছিল এই ঘটনায়। গোটা বিশ্ব নিন্দা জানিয়েছে এই ঘটনায়। তাছাড়াও ট্রাম্পের মেয়াদ শেষ হওয়ার আগেই অপসারণের জন্য সরব হয়েছিলেন তাঁরই দল রিপাবলিকানের অন্যান্য শুভবুদ্ধিসম্পন্ন সদস্য। তবে ঘটনার জেরে হার স্বীকার করেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। তিনি ঘোষণা করেন, আগামী ২০ জনুয়ারি নিয়ম মেনে হোয়াইট হাউজ ছাড়বেন তিনি।

আরও পড়ুন: কাশ্মীর ইস্যুতে ভারতকে সমর্থন ফ্রান্সের

এদিকে ঘটনার জেরে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের রাজধানী ওয়াশিংটন ডিসিতে চলছে কারফিউ। খবর পাওয়া গেছে যে, গোটা শহরকে ঘিরে রেখেছে ন্যাশনাল গার্ড। তা ছাড়াও রয়েছে নগর পুলিশও। ইতিমধ্যেই ট্রাম্পের অপসারণের জন্য প্রস্তুত করা হয়েছে অভিশংসন প্রস্তাবের খসড়া। তাঁর বিরুদ্ধে সহিংসতাকে উসকানি দেওয়ার অভিযোগ আনা হয়েছে। উল্লেখ্য যে, ডোনাল্ড ট্রাম্পকে কড়া নজরদারির মধ্যে রাখা হয়েছে।

আরও পড়ুন: হার স্বীকার ট্রাম্পের, বাইডেন অবশেষে পেলেন জয়ের সার্টিফিকেট

সেই কারণেই ওয়াশিংটনে জারি হয়েছে কারফিউ। রাজপথ শান্ত। পুলিশের উপস্থিতিও বেশ ভালোভাবেই টের পাওয়া যাচ্ছে। প্রতি সাত ফুট অন্তর অন্তর ন্যাশনাল গার্ডের সদস্যরা ঘিরে রেখেছেন ক্যাপিটাল হিল। অন্যান্য ছ’টি রাজ্য থেকে তলব করা হয়েছে ন্যাশনাল গার্ড। সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য যে, চালু হয়েছে মার্কিন সংবিধানের ২৫তম সংশোধনী। এই ধারা চালু করে ডোনাল্ড ট্রাম্পকে রাষ্ট্রপতি হিসেবে দায়িত্ব পালনে ব্যর্থ বলে ঘোষণার আহ্বান জানানো হয়েছে। উল্লেখ্য যে, সংবিধানের এই প্রক্রিয়ার জন্য ভাইস প্রেসিডেন্টের সঙ্গে এগিয়ে আসতে হবে কমপক্ষে আরও আট জনকে।

Facebook Twitter Email Whatsapp

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *