নাবালিকা মূক-বধির মেয়েকে ধর্ষণ করে মুন্ডু কেটে নিল তুতো দাদা

Child rape

Mysepik Webdesk: তীব্র যন্ত্রনা হলেও শুধু সামান্য গোঙানি ছাড়া মুখ দিয়ে কোনও কথাই বেরচ্ছে না ১২ বছরের নাবালিকা মেয়েটির। কীভাবেই বা বেরবে, কথা বলতে অক্ষম তো। প্রাণ যাওয়ার আগে পর্যন্ত শুধু মুখ বুজে যন্ত্রনা সহ্য করা ছাড়া তার যে আর কোনও উপায় নেই। ন্যায় বিচার হয়তো পাবে, কিন্তু সে তো মৃত্যুর পর। নাবালিকা মূক-বধির মেয়েকে ধর্ষণ করে তারপর মুণ্ডচ্ছেদ করে খুনের অপরাধে গ্রেফতার করা হয়েছে তারই ২৫ বছরের তুতো দাদাকে। নারকীয় ঘটনা বললেও কম বলা হবে। গুজরাটের বানাসকন্ঠা এলাকার ঘটনা।

আরও পড়ুন: করোনা আবহে দেশে ৫ মাসে সাইকেল বিক্রি হয়েছে প্রায় ৪২ লক্ষ!

গত শুক্রবার এলাকা থেকে হটাৎ করে নিখোঁজ হয়ে যায় নাবালিকা মূক-বধির মেয়েটি। শনিবার দান্তিবাড়ার পুলিশ ভাকড় গ্রামের কাছে একটি স্থানীয় জঙ্গল থেকে ওই নাবালিকার মুণ্ডহীন দেহ উদ্ধার করে। গ্রেফতার করা হয়, মেয়েটির এক তুতো দাদাকে। অভিযোগ, ওই মেয়েটিকে শেষবারের মতো দেখা গিয়েছিল তার তুতো দাদার বাইকে চেপে যেতে। পুলিশের দাবি, মেয়েটিকে প্রথমে ধর্ষণ করে পরে খুন করা হয়েছে। পুলিশ দেহটিকে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠিয়েছে।

Facebook Twitter Email Whatsapp

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *