বিজেপি বাংলায় ক্ষমতায় এলে আদিবাসী সম্প্রদায়ের জন্য বিশ্ববিদ্যালয়, উচ্চশিক্ষায় পড়ুয়াদের অর্থ, প্রতিশ্রুতি শাহের

Amit Shah

Mysepik Webdesk: এদিন ঝাড়গ্রাম সভায় উপস্থিত হতে পারলেন না অমিত শাহ। কারণ হেলিকপ্টারে যান্ত্রিক ত্রুটি দেখা দিয়েছিল। তাই খড়গপুর থেকে মোবাইলের মাধ্যমে ভিডিয়ো কনফারেন্সের মাধ্যমে ভাষণ দেন তিনি। এদিন ভোট জিতলে বিজেপি সরকার বাংলার জন্য কি কি করবে তার কিছু আগাম ঘোষণা করলেন। সেই সঙ্গে আগাগোড়া মমতা-সরকারকে দুষলেন। যদিও তৃণমূল কংগ্রেসের দাবি, ঝাড়গ্রামের সভায় লোক হয়নি। তাই মুখে বাঁচাতে সভায় না যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন অমিত শাহ।

আরও পড়ুন: সিঙ্গুরে বিজেপি প্রার্থীর নাম ঘোষণা হওয়ার পরই বিক্ষোভ শুরু

সোমবার সকাল ১১টা থেকে জামদা সার্কাস ময়দানে শাহের জনসভা করার কথা ছিল। কিন্তু হেলিকপ্টারে যান্ত্রিক ত্রুটির জন্য জনসভায় পৌঁছতে না পারায় ক্ষমা প্রার্থনা করে বক্তব্য শুরু করেন অমিত শাহ। যদিও ঝাড়গ্রামের ভার্চুয়ালি ভাষণ শুরু হতেই ১টা বেজে যায়। তবে অমিত শাহ মাত্র সাত-আট মিনিটের মধ্যেই ভাষণ শেষ করেন। তিনি বলেন, “প্রচারের জন্য আমি ওখানে যেতাম। কিন্তু দুর্ভাগ্যজনকভাবে আমার হেলিকপ্টারে গোলযোগ হয়েছে। তাই আমি আপনাদের সঙ্গে দেখা করতে যেতে পারিনি।” সেই সঙ্গে আদিবাসী সমাজের জন্য বিজেপি সরকার কী করেছে সে কথা মনে করিয়ে দিয়ে তিনি বলেন, বাংলাতে আদিবাসীরা যে-যে সুবিধা পেতে পারতেন তার কিছুই পাচ্ছেন না, কারণ এই তোলাবাজ, গুন্ডারাজ তৃণমূল সরকার। এই সরকারের জন্যই বাংলায় বিকাশ থমকে। বাংলাকে এগিয়ে নিয়ে যেতে বিজেপির সরকার দরকার।

আরও পড়ুন: প্রথম ও দ্বিতীয় দফার পর আরও ৩৪ আসনে প্রার্থী ঘোষণা কংগ্রেসের

এদিন ঝাড়গ্রামে সংক্ষিপ্ত ভাষণ দিলেও প্রতিশ্রুতির বন্যা বইয়ে দেন শাহ। প্রথমেই তিনি বলেন রাজ্যে বিজেপি ক্ষমতায় এলে আদিবাসী সম্প্রদায়ের জন্য পণ্ডিত রঘুনাথ মুর্মুর নামে একটি আদিবাসী বিশ্ববিদ্যাল তৈরি করা হবে।যেখানে আদিবাসী অঞ্চলের আদিবাসী ছেলেমেয়েদের শিক্ষার ব্যবস্থা থাকবে। আর্থিক সহায়তাও করা হবে। শুধু তাই নয়, প্রত্যেকটি তহশিলে একটি করে মডেল স্কুল করার কথাও ঘোষণা করেন। সেই সঙ্গে ‘ফরেস্ট রাইট অ্যাক্ট’ পুরোপুরি লাগু হবে যাতে আদিবাসী মানুষজন উপকৃত হন। ‘স্ট্যান্ড আপ ইন্ডিয়া’ প্রকল্পের আওতায় আদিবাসীদের ‘আত্মনির্ভর’ হতে ১,০০০ কোটি টাকা বরাদ্দ করবে। লোধা, মুন্ডা, শবর প্রভৃতি জনজাতিদের জন্য আলাদা আলাদা করে আর্থিক তহবিল গড়ে তোলার আশ্বাসও দেন তিনি।

সবশেষে অমিত শাহ জনতার কাছে অনুরোধ করেন ঝাড়গ্রাম অঞ্চলের চারটি বিধানসভা আসনের সমস্ত বিজেপি প্রার্থীকে এবারে বিধানসভা ভোট জেতানোর।

Facebook Twitter Email Whatsapp

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *