মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বাড়ির পাশে আদিগঙ্গায় নেমে নজিরবিহীন প্রতিবাদ অনুমোদনহীন মাদ্রাসা শিক্ষকদের

Teachers

Mysepik Webdesk: মঙ্গলবার সকালে এক নজিরবিহীন প্রতিবাদের সাক্ষী হয়ে থাকল মহানগর। এদিন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কালীঘাটের বাড়ির পাশে আদিগঙ্গায় নেমে ৬-৭ জন বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন। তাঁদের হাতে ছিল প্ল্যাকার্ড এবং মুখে স্লোগান। তাঁদের অভিযোগ মাসের পর মাস তাঁরা বেতন পাচ্ছেন না। তাই তাঁদের এই প্রতিবাদ। শিক্ষামিত্র-সহ একাধিক পার্শ্বশিক্ষক ছিলেন সেখানে।

আরও পড়ুন: ডিওয়াইএফআই-এর নেতা মইদুল ইসলাম মিদ্দার মৃত্যুতে রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে একরাশ ক্ষোভ উগরে দিলেন দিলীপ ঘোষ

এদিন সকাল ১১টা নাগাদ হঠাৎ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বাড়ির পিছনে আদিগঙ্গায় নেমে পড়েন শিক্ষামিত্র ও অনুমোদনহীন মাদ্রাসা শিক্ষকদের পাঁচজন প্রতিনিধি। তাঁদের মধ্যে একজন মহিলাও ছিলেন। একবুক জলে প্ল্যাকার্ড হাতে তাঁরা দাঁড়িয়ে থাকেন। আজকে অতর্কিতে এই বিক্ষোভ দেখাতে তাঁরা যে প্রস্তুতি নিয়েই এসেছিলেন তা বোঝা যায় প্ল্যাস্টিকে মোড়া প্ল্যাকার্ডগুলি দেখেই।

আরও পড়ুন: ভরদুপুরে বউবাজারের বহুতলে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ড

খবর পেয়েই ঘটনাস্থলে ছুতে আসে পুলিশ। বেশ কিছুক্ষণ ধরে পুলিশের তরফে বিক্ষোভকারীদের জল থেকে উঠে আসার জন্য আবেদন নিবেদন করা হয়। কিন্তু বিক্ষোভকারীরা। প্রথমে শুনতে চাননি। তাঁদের দাবি, মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করাতে হবে। শেষ পর্যন্ত পুলিশের একজন আধিকারিক নেমে পড়েন জলে। বুঝিয়ে-সুজিয়ে বিক্ষোভকারীদের জল থেকে উঠতে রাজি করানো হয়। দড়ির সাহায্যে আদি গঙ্গা থেকে উঠে আসেন তাঁরা। এদিন প্রায় ২০-২৫ মিনিট জলে নেমে বিক্ষোভ দেখান তাঁরা। কোন দাবিতে এই অভিনব পদ্ধতিতে বিক্ষোভ? জানা গিয়েছে, রাজ্যের অনুমোদনহীন মাদ্রাসাগুলিকে কেন সরকারি অনুমোদন দেওয়া হচ্ছে না, সেই প্রশ্ন তোলা হয়েছিল অনুমোদনহীন মাদ্রাসার শিক্ষকদের তরফে। পাশাপাশি, মাদ্রাসাগুলিকে অনুমোদন দেওয়ার দাবিও তুলেছিলেন। অন্যদিকে, শিক্ষামিত্রদের অভিযোগ দীর্ঘদিন ধরে তাঁদের বকেয়া বেতন দেয়নি সরকার। ভাতাও বাড়ানো হয়নি।

Facebook Twitter Email Whatsapp

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *