ফের বেলাগাম তৃণমূল সাংসদ, ‘রক্তচোষা’ রাজ্যপালকে জেলে পোরার হুঁশিয়ারি কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়ের

Mysepik Webdesk: কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে রাজ্যপাল জগদীপ ধনকরের সম্পর্কটা আদায়-কাঁচকলায় পরিণত হয়েছে ইদানীং। ধনকরের বিরুদ্ধে এদিন ফের চাঁচাছোলা ভাষায় সরব হলেন কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি নারদ মামলায় গ্রেফতারির জন্য রাজ্যপালকে দায়ী করেছেন। কেবল তাই নয়, এই কারণে রাজ্যপালের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ দায়ের করবার নিদান দিয়েছেন তৃণমূলের এই সংসদ। রাজ্যপালের মেয়াদ শেষে তাঁর বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা নেওয়ার ইঙ্গিত দিয়েছেন কল্যাণবাবু।

আরও পড়ুন: ১০৪ বছরের প্রথা ভেঙে এই প্রথমবার ভারত সেবাশ্রমে রান্না হল মাছ-মাংস, কিন্তু কেন?

এদিন বিস্ফোরক ভাষায় কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, “এই যে নাটকটা প্রস্তুত করা হয়েছে তার মূল কাণ্ডারি রাজ্যপাল। সমস্ত ফোন কলের তদন্ত করা হলে দেখা যাবে গ্রেফতারির পিছনে তিনিই রয়েছেন। তিনি হেভিওয়েটদের গ্রেফতার করিয়েছেন। আমি এই বিষয়ে পুরোপুরি নিশ্চিত। ভোরবেলা চার নেতাকে গ্রেফতার করিয়েছেন তিনিই।” কল্যাণবাবু আরও বলেন, “বাংলার ক্ষতি বুঝেসুঝেই রাজ্যপাল করে চলেছেন। এমন আর কোনও রাজ্যপাল করেন না।”

আরও পড়ুন: ‘হাসপাতালে শোভনকে জোর করে আটকে রাখা হচ্ছে’, বিস্ফোরক বৈশাখী

গত সোমবার রাজ্যপালকে ‘রক্তচোষা’ বলা কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছেন, “রাজ্যপালের বিরুদ্ধে যে আইনি পদক্ষেপ নেওয়া যায় না এ কথা আমরা জানি। তবে উনি সারাজীবন রাজ্যপাল থাকবেন না। যখন উনি রাজ্যপাল থাকবেন না, তৃণমূল কর্মীদের বলছি তাঁর বিরুদ্ধে থানায় মামলা করতে, বলা তো যায় না, হয়তো তাঁর স্থান হবে প্রেসিডেন্সি জেলেই।” কল্যাণের মন্তব্যের পরে পাল্টা সরব হয়ে টুইটারে রাজ্যপাল লিখেছেন, “একজন অভিজ্ঞ সংসদ এবং আইনজীবী হলেন কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়। আমি তাঁর এমন মন্তব্যে অবাক। বাংলার সংস্কৃতিমনস্ক মানুষ এর বিচার করবে।” অন্যদিকে, বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ কড়া প্রতিক্রিয়া জানিয়ে বলেছেন, “কল্যাণবাবু উন্মাদের মতো কথা বলছেন। তাঁর কোনও গুরুত্বই নেই দলে।”

Facebook Twitter Email Whatsapp

এই সংক্রান্ত আরও খবর:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *