বর্ষীয়ান সাংবাদিক এবং রাজ্যসভার প্রাক্তন সাংসদ চন্দন মিত্রের জীবনাবসান

Mysepik Webdesk: প্রয়াত হলেন বর্ষীয়ান সাংবাদিক ও রাজ্যসভার সাংসদ চন্দন বসু। তাঁর বয়স হয়েছিল ৬৫ বছর। বেশ কিছুদিন ধরে অসুস্থ ছিলেন তিনি। এই মৃত্যুসংবাদ টুইটারে জানান তাঁর পুত্র কুশন মিত্র। তিনি লেখেন, “বাবা গভীর রাতে প্রয়াত হয়েছেন। বেশ কিছুদিন ধরে ভুগছিলেন তিনি।”

আরও পড়ুন: দুই সন্তানকে নিয়ে দিল্লি যাওয়া সম্ভব নয়, ইডিকে ই-মেলের মাধ্যমে জানালেন অভিষেকপত্নী

চন্দন মিত্রর মৃত্যুতে শোকপ্রকাশ করেছেন তাঁর বাল্যবন্ধু তথা বিজেপির সাংসদ স্বপন দাশগুপ্ত। মর্মাহত স্বপনবাবু টুইটে লিখেছেন― “আমার প্রিয় বন্ধু, পায়োনিওর পত্রিকার সম্পাদক ও প্রাক্তন সাংসদ চন্দন মিত্রকে আজ হারালাম। আমরা দু’জনই লা মার্টিনিয়রে পড়তাম। এরপর সেন্ট স্টিফেনস এবং অক্সফোর্ডে পড়েছি। একইসঙ্গে আমরা সাংবাদিকতা শুরু করি। অযোধ্যা এবং গেরুয়া তরঙ্গের উত্তেজনা উভয়ে ভাগ করে নিয়েছি।”

আরও একটা টুইটে স্বপন দাশগুপ্ত ১৯৭২-এ স্কুল ট্রিপের দু’জনের ছবি পোস্ট করে লিখেছেন, “আমার প্রিয় বন্ধু, যেখানেই থাকো খুশি থেকো। ওম শান্তি।”

বিজেপির জন্য দু’বার সাংসদ হয়েছিলেন চন্দন মিত্র। রাজ্যসভায় নির্বাচিত হন ২০০৩-এ। মধ্যপ্রদেশ থেকে ২০১০-এ সাংসদ ছিলেন তিনি। এরপর রাজনৈতিক পতাকা বদলান তিনি। ২০১৮-এ আসেন তৃণমূল কংগ্রেসে। চলতি বছরের জুনেই ইস্তফা দিয়েছিলেন তিনি। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি এহেন সাংবাদিক এবং রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বের জীবনাবসানে শোকপ্রকাশ করে টুইট করেন, “দূরদর্শিতা এবং বুদ্ধিমত্তার জন্য চন্দন মিত্র চিরস্মরণীয় থাকবেন। সাংবাদিকতা ও রাজনীতি― উভয় জগতেই তিনি মান্য ছিলেন। তাঁর মৃত্যুতে শোকাহত। তাঁর পরিবারকে সমবেদনা জানাই। ওম শান্তি।”

আরও পড়ুন: প্রয়াণ বর্ষীয়ান সাহিত্যিক বুদ্ধদেব গুহর

চন্দন মিত্রর জন্ম হাওড়ায়, ১৯৫৫-র ১২ ডিসেম্বর। স্টেটসম্যান হাউজে সাংবাদিক হিসাবে তাঁর যাত্রা শুরু হয়। কিছুদিন অধ্যাপনাও করেছিলেন হংসরাজ কলেজে। দ্য সানডে অবজারভার, টাইমস অব ইন্ডিয়ার মতো প্রথম শ্রেণির সংবাদমাধ্যমেও দায়িত্ব সামলেছেন তিনি।

পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী চন্দন মিত্রর মৃত্যুতে শোকজ্ঞাপন করে লিখেছেন, “চন্দন মিত্রের মৃত্যুতে শোকাহত। সাংবাদিকতা এবং রাজনৈতিক জগতে অবদানের জন্য তাঁকে স্মরণে রাখা হবে। তাঁর পরিবার-পরিজনকে সমবেদনা জানাই।”

Facebook Twitter Email Whatsapp

এই সংক্রান্ত আরও খবর:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *