আমাদের ভুললে চলবে না যে লকডাউন চলে গেলেও ভাইরাস যায়নি: প্রধানমন্ত্রী

Narendra modi

Mysepik Webdesk: শুরু হয়ে গিয়েছে পুজোর উৎসবের মরসুম। এই অবস্থায় জনতার উদ্দেশ্যে ভাষণ দিতে গিয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী দেশবাসীকে সাবধান করে দিয়ে জানালেন, পুজোর সময় কোনও ঢিলেমি দেয় যাবে না, কারণ দেশ থেকে এখনও করোনাভাইরাস বিদায় নেয় নি। যদিও ভারতে আক্রান্তের গ্রাফ নিম্নমুখী, তবুও করোনার প্রতিষেধক না আসার কারণে তিনি উৎসবের মরসুমে মানুষকে সাবধানে থাকতে অনুরোধ করলেন।

আরও পড়ুন: ভারতীয় সীমায় ঢুকে পড়া চিন সেনাকে ফেরত পাঠাল ভারত

গতকাল প্রধানমন্ত্রী জানালেন, “করোনা সতর্কতায় কোনও ঢিলেমি দেওয়া যাবে না। ভ্যাকসিন না আসা পর্যন্ত প্রত্যেককে সতর্ক থাকতে হবে। লকডাউন উঠে গেলেও দেশে করোনার প্রভাব এখনও আছে। সুতরাং করোনাকে অবহেলা করলে চলবে না। উৎসবের সময়ে আরও যে মানুষকে সতর্ক থাকতে হবে ৷ করোনায় বিপদ নেই ভাববেন না। বহু মানুষ করোনা নিয়ে সতর্ক নন। অনেকেই স্বাস্থ্যবিধি মানছেন না। স্বাস্থ্যবিধি না মেনে পরিবারের বিপদ ডাকছেন। উৎসবের সময় বাজারে ভিড় লক্ষ করা যাচ্ছে। কিন্তু আমাদের ভুললে চলবে না যে লকডাউন চলে গেলেও ভাইরাস যায়নি। শারীরিক দূরত্ব মেনে চলুন। বারবার সাবান দিয়ে হাত ধুতে হবে। সচেতনতার বার্তা দিতে সকলে এগিয়ে আসুন। করোনা পরিস্থিতি ভাল করতে হবে।”

আরও পড়ুন: গোয়ার উপমুখ্যমন্ত্রী চন্দ্রকান্ত কাভলেকরের ফোন থেকে ছড়াল পর্ন ক্লিপ, বিড়ম্বনায় সরকার

ভারতে করোনা আক্রান্তের পরিসংখ্যান দেওয়ার পাশাপাশি বিশ্বের অন্যান্য দেশগুলির সঙ্গে ভারতের তুলনা টেনে প্রধানমন্ত্রী আরও জানান, “ভারতে ১০ লক্ষে সাড়ে ৫ হাজার করোনা আক্রান্ত। ভারতে করোনায় ১০ লক্ষে ৮৩ জনের মৃত্যু হয়েছে। ইউরোপ-সহ অন্যান্য মহাদেশের দেশগুলির তুলনায় যা কম। আমেরিকা,ব্রাজিলের থেকে ভারতের পরিস্থিতি ভাল। করোনা আক্রান্তদের জন্য ৯০ লক্ষ বেড রয়েছে। দেশে ১২ হাজার কোয়ারেন্টাইন সেন্টারের ব্যবস্থা করা হয়েছে। করোনা পরীক্ষায় ২ হাজার ল্যাব তৈরি করা হয়েছে। করোনার বিরুদ্ধে এখনও পুরোপুরি সাফল্য মেলেনি। বিজ্ঞানীরা ভ্যাকসিনের জন্য লড়াই করছেন। কোভিড টিকা তৈরির কাজে পুরোদমে চলছে। ভ্যাকসিন এলেই তা দেশের সব মানুষের কাছে কীভাবে পৌঁছে দেওয়া হবে, তার পরিকল্পনা রয়েছে সরকারের। দেশবাসীকে উৎসবের অনেক শুভেচ্ছা।

Similar Posts:

Facebook Twitter Email Whatsapp

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *