পশ্চিমবঙ্গ ফুটবল সিজন বুক ২০১৯-২০ প্রকাশিত

Book

Mysepik Webdesk: বঙ্গীয় ফুটবল এখন ঘটনাময়। প্রথমে আই লিগে মহামেডানের যোগ্যতা-অর্জন, তারপর  আই লিগ ট্রফি নিয়ে শহর পরিক্রমায় মোহনবাগানের সমর্থকদের বিপুল উপস্থিতি ও উচ্ছ্বাস। এর মধ্যে প্রায় প্রতিদিনই এসসি ইস্টবেঙ্গলের পক্ষ থেকে নতুন বিদেশি ফুটবলারদের নাম ঘোষণা করে সমর্থকদের নিশ্চিন্ত করা চলছে। চতুর্থীর ঢাকে যেদিন কাঠি পড়ল, সেদিন মহামডানের নতুন কোচ হিসাবে আবদুল আজিজ বোলার নাম ভেসে উঠল, আবার সেদিনই এসসি ইস্টবেঙ্গল প্রকাশ করল আগামী মরশুমের ভারতীয় ফুটবলারের নামের তালিকা।

আরও পড়ুন: মহিলা বিশ্বকাপ আয়োজন নিয়ে ভারত উদ্বেগে থাকলেও দর্শকদের মাঠে প্রবেশ নিয়ে আশায় বালা দেবী

আর এই চতুর্থীর সকালেই, শারদ ফুটবলের আবহে রানিকুঠিতে নিজের আবাসনে প্রাক্তন ফুটবল তারকা শ্যাম থাপা প্রকাশ করলেন প্রশান্ত গুপ্তর লেখা বই ‘পশ্চিমবঙ্গ ফুটবল সিজন বুক ২০১৯-২০’। সম্প্রতি এই লেখকের ইস্টবেঙ্গল ক্লাব সম্বন্ধীয় কয়েকটা বই প্রকাশিত হয়েছে, তার মধ্যে অন্যতম ছিল বিগত দু’মরশুমের ইস্টবেঙ্গলের সিজন বুক। এই সিজন বুক দু’টোতে পাওয়া গেছে, ইস্টবেঙ্গল ক্লাবের গোটা মরশুমের ফুটবল, ক্রিকেট ও অ্যাথলেটিক্সের সব ম্যাচ ও ইভেন্টের স্কোর, অন্যান্য তথ্য ও গোটা মরশুমের খবর।

আরও পড়ুন: ট্রফি পাওয়ার দিনে অন্য রকম উদ্‌যাপন আই লিগ জয়ের

‘পশ্চিমবঙ্গ ফুটবল সিজন বুক ২০১৯-২০’ থেকে ফুটবলপ্রেমীরা কী পাবেন? প্রশান্ত গুপ্তকে প্রশ্নটা করতেই বললেন, “দেখুন,  আমাদের রাজ্যের চলমান ফুটবল বিষয়ক সব ধরনের তথ্য সংগ্রহ করা একটা দুরূহ কাজ। রাজ্য ফুটবলের নিয়ামক সংস্থার ওয়েবসাইট বহুদিন আগে বন্ধ হয়ে গেছে। দৈনিক সংবাদপত্রগুলো তিন প্রধান ও এটিকে ছাড়া অন্য কোনও ফুটবল ম্যাচের স্কোর বা ফুটবলবিষয়ক তথ্য ও সংবাদকে বিশেষ গুরুত্ব দেয়নি। এআইএফএফ-এর ওয়েবসাইটেও ভালো আর্কাইভ নেই। এই মরশুমের আই লিগ শুরু হলে সেই ওয়েবসাইট থেকে গত মরশুমের আই লিগের তথ্য অন্তর্হিত হবে। তাই এই ওয়েবসাইট থেকে জাতীয় স্তরের প্রতিযোগিতায় পশ্চিমবঙ্গের ফুটবলের চলতি মরশুমের তথ্য কোনওরকমে হস্তগত করা সম্ভব হলেও মরশুম ‘বিগত’ হলে সেই সম্ভাবনাটুকুও বিলীন হয়ে যায়। আর চলতি মরশুমের বিভিন্নরকম তথ্য অন্য মাধ্যমে কম-বেশি পাওয়া গেলেও তা বিক্ষিপ্তভাবে ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকে বিভিন্ন মাধ্যমে।

আরও পড়ুন: কন্যার পোস্টে মোহনবাগান পাগল পিতার তর্পণ

আমার এই বইয়ে ২০১৯-২০ মরশুমের পশ্চিমবঙ্গীয় ফুটবলের সব ধরনের তথ্যকে সংঘবদ্ধ করে এক ছাতার তলায় নিয়ে আসার চেষ্টা করেছি। এই বইয়ে পশ্চিমবঙ্গের সব গুরুত্বপূর্ণ ফুটবল প্রতিযোগিতার ম্যাচের স্কোর রয়েছে। স্কুল, কলেজ, সংবামাধ্যম ও জেলার প্রতিযোগিতাগুলোকেও এই বইয়ে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। আইএসএল, আই লিগ, দ্বিতীয় ডিভিশন লিগ, জাতীয় মহিলা লিগ, এলিট লিগ, জুনিয়র লিগ ও সাব জুনিয়র লিগে অংশগ্রহণ করা বাংলার ক্লাবগুলোর প্রতিটা ম্যাচের স্কোর এখানে দেওয়া হয়েছে। এছাড়া সন্তোষ ট্রফির মতো রাজ্য ফুটবলের নিয়ামক সংস্থাভিত্তিক ফুটবল প্রতিযোগিতায় আইএফএ-র ম্যাচের স্কোর রয়েছে।   বিদেশি ফুটবল প্রতিযোগিতায় পশ্চিমবঙ্গের ক্লাবের ম্যাচের স্কোরও এখানে দেওয়া হয়েছে। এই বইয়ের শেষ অধ্যায় ‘মরসুমী ডায়েরি’। সেখানে রয়েছে গোটা মরশুমের  বাংলার ফুটবলের নানা ধরনের খবরের সংকলন। প্রচেষ্টা অভিনব। এখন দেখা যাক, নেটপাগল বাংলার ফুটবলপ্রেমীদের কতটা আকৃষ্ট করতে পারে এই বই।

Facebook Twitter Email Whatsapp

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *