মইদুল ইসলাম মিদ্দার মৃত্যু নিয়ে কী জানালেন ফিরহাদ হাকিম

Mysepik Webdesk: নবান্ন অভিযানে অংশগ্রহণ করেছিলেন বাঁকুড়ার ডিওয়াইএফআই-এর যুবনেতা মইদুল ইসলাম মিদ্দা। নবান্ন অভিযানের সময় পুলিশের আক্রমণের শিকার হন মইদুল। পুলিশের লাঠির আঘাতে তাঁর পেশির ওপর চাপ পড়ে এবং তার ইউরিন দিয়ে রক্ত বের হতে শুরু করে। কিডনিও মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়। তাঁকে কলকাতার একটি নার্সিংহোমে ভর্তি করা হলেও শেষরক্ষা হয়নি। ধীরে ধীরে তাঁর শারীরিক অবস্থার অবনতি হচ্ছিল। এদিন সকালে তাঁর জীবনাবসান হয়। এই ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে বাংলাজুড়ে এক অস্থির পরিবেশ সৃষ্টি হয়। অভিযোগের আঙুল ওঠে পুলিশের দিকে।

আরও পড়ুন: ৯০ পার করেও শান্তি নেই, আরও বাড়ল পেট্রল-ডিজেলের দাম

মইদুল ইসলাম মিদ্দার মৃত্যু নিয়ে এদিন ফিরহাদ হাকিমকে প্রশ্ন করা হলে তিনি জানান, বিষয়টি সম্পর্কে তিনি এখনও পর্যন্ত অবহিত নন। তবে বিষয়টি সম্পর্কে জানা হলে পার্টির তরফ থেকে বিষয়টি সম্পর্কে স্টেটমেন্ট দেওয়া হবে। এর পাশাপাশি তিনি বিজেপিকেও একহাত নেন। তিনি জানিয়েছেন “তৃণমূল কংগ্রেস বিজেপিকে ফলো করে না। বরং বিজেপি তৃণমূলের কন্যাশ্রী প্রকল্প তৃণমূলের অনুকরণে তৈরি করেছে। কিন্তু তাও সম্পূর্ণ তৈরি করতে পারেনি।” অন্যদিকে তিনি জানিয়েছেন রাজ্যে ৫ টাকার বিনিময়ে ডিম ভাত প্রকল্প গড়ে তোলা হয়েছে। তা নিয়ে বিজেপি কটুক্তি করতেই পারে। আসলে বিজেপি নিজে কিছু করবে না তাই অন্য কিছু করলে তা নিয়ে ব্যাঙ্গ করতে ছারে না।”

আরও পড়ুন: চিত্তরঞ্জন সেবা সদন হাসপাতালে মাতৃমা ভবনের উদ্বোধন করলেন মুখ্যমন্ত্রী

তিনি আরও বলেন, “দিলীপবাবুরা গুন্ডা এবং অত্যাচারী। মানুষের প্রয়োজনে কখনোই কিছু করে না। বরং বড় বড় শিল্পপতিদের সঙ্গে সব সময় হাত মেলান। তাই যখন রাজ্যজুড়ে ন্যায্য মূল্যে ওষুধের দাম ঠিক করে দেওয়া হয়, তখন বিজেপির সমস্যা হয়। তার কারণ তারা বড় বড় ওষুধ ব্যবসায়ীদের সঙ্গে তাদের বিজনেস তাদের নানা রকম যোগসাজশ চলতে থাকে। আর সেটা বাধাপ্রাপ্ত হলেই তাদের সমস্যার সৃষ্টি হয়।”

Facebook Twitter Email Whatsapp

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *