Latest News

Popular Posts

ভূত চতুর্দশীতে চোদ্দ শাক কেন খাওয়া হয়? কারণ জানলে অবাক হয়ে যাবেন

ভূত চতুর্দশীতে চোদ্দ শাক কেন খাওয়া হয়? কারণ জানলে অবাক হয়ে যাবেন

Mysepik Webdesk: কার্তিক মাসের অমাবস্যা তিথিতে হয় কালীপুজো। অনেকে আবার এই পুজোকে শ্যামাপূজাও বলে থাকেন। কালীপুজোর ঠিক আগের দিন প্রথা অনুযায়ী অনেকেই ভূত চতুর্দশী পালন করে থাকেন। হিন্দু মতে, ওই দিন দুপুরে চোদ্দ রকমের শাক খাওয়ার নিয়ম রয়েছে। এর পাশাপাশি সন্ধ্যাবেলা জ্বালানো হয় চোদ্দটি প্রদীপ বা মোমবাতি। এর ঠিক পরের দিনই চন্দ্রের তিথি নিয়ম মেনে হয় কালীপুজো। কিন্তু, আমরা অনেকেই জানি না এই নিয়মের কারণ কী।

আরও পড়ুন: ওলা-উবের চালক বার বার আপনার বুকিং বাতিল করছে? রুখে দিন এই পদ্ধতিতে

হিন্দু শাস্ত্র বলছে, ঘোর অমাবস্যার রাতে বিদেহী আত্মারা মর্ত্যলোকে নেমে আসেন। সেই কারণেই চোদ্দ ভুবনের অধীশ্বরী দেবীর উদ্দেশ্যে চোদ্দ শাক খাওয়া এবং চোদ্দটি প্রদীপ জ্বালানোর নিয়ম রয়েছে। আবার একাংশের মতে, ভূত চতুর্দশীর দিনটি ১৪ পুরুষের জন্যে উৎসর্গ করা হয়। এই বিশেষ দিনে পূর্বপুরুষরা মর্ত্যে আসেন। এই ১৪ পুরুষ মূলত জল, মাটি, বাতাস ও অগ্নির সঙ্গে মিশে রয়েছেন। আর সেই জন্যেই মাটির মধ্যে জন্মানো ১৪ টি শাক খেয়ে ১৪ পুরুষদের উৎসর্গ করা হয় ভূত চতুর্দশীর দিনটি।

আরও পড়ুন: রান্নাঘর থেকে মাছের আঁশটে গন্ধ দূর করার সহজ উপায়

এখানেই শেষ নয়, পূরাণ মতে ভূত চতুর্দশীর রাতে শিবভক্ত বলি মর্ত্যে নেমে আসেন মর্তবাসীদের পুজো নিতে। তিনি একই নন, তাঁর সঙ্গে মর্তে নেমে আসেন তাঁর অনুচর ভূতেরাও। চতুর্দশী তিথির ভরা অমাবস্যার দিনে যাতে তাঁদের অনুচরেরা ঘরে ঢুকে না আসে, তার জন্য এই ব্যবস্থা করা হয়। বহু প্রাচীনকাল থেকে চলে আসছে এই রীতি। নিয়ম অনুসারে যে ১৪ রকমের শাক এই দিনে খাওয়া হয়, সেগুলি হল ওল, কেঁউ, বেতো, সর্ষে, কালকাসুন্দে, জয়ন্তী, নিম, হেলঞ্চা, শাঞ্চে, গুলঞ্চ, পলতা, ভাঁটপাতা, শুলফা ও শুষনী।

টাটকা খবর বাংলায় পড়তে লগইন করুন www.mysepik.com-এ। পড়ুন, আপডেটেড খবর। প্রতিমুহূর্তে খবরের আপডেট পেতে আমাদের ফেসবুক পেজটি লাইক করুন। https://www.facebook.com/mysepik

Related Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *