বিশ্বকাপে ভারতের স্বপ্নভঙ্গ কেন হল?

Mysepik Webdesk: শনিবার স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে টানা পঞ্চম জয় পেয়েছে পাকিস্তান। পাক দল তি-২০ বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে পৌঁছেছে গ্রুপ শীর্ষে থেকে ১০ পয়েন্ট নিয়ে। বাবর আজমের দলকে বিশ্বকাপ জয়ের অন্যতম দাবিদার হিসেবে ধরা হচ্ছে এখন। অন্যদিকে, আফগানিস্তানের বিরুদ্ধে নিউজিল্যান্ডের জয়ের সঙ্গে সঙ্গে ভারতের সেমিফাইনালে ওঠার স্বপ্ন স্বপ্নই থেকে গেল। আইপিএলের পরই বিশ্বকাপে অংশ নিয়েছিলেন ভারতীয় ক্রিকেটাররা। এর ফলে ভারতের প্রস্তুতি দুর্দান্ত হবে বলে মনে করা হচ্ছিল। কিন্তু আবারও প্রমাণ হল আইপিএলের অভিজ্ঞতা বিশ্বকাপে খুব একটা কাজ করে না।

আরও পড়ুন: দীর্ঘ ৮ বছর পর আন্তর্জাতিক ম্যাচ হতে চলেছে জয়পুরে

টিম ইন্ডিয়া গত এক বছরে মাত্র ১২টি টি-২০ আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলে বিশ্বকাপের মতো মঞ্চে মাঠে নেমেছিল। এর মধ্যে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে খেলা ৩টি টি-২০ ম্যাচে বিরাট কোহলি এবং রোহিত শর্মার মতো তারকারা অনুপস্থিত ছিলেন ইংল্যান্ডে সিরিজ খেলার কারণে। বিপরীতে, পাকিস্তান এই সময়ের মধ্যে ২৬টি টি-২০ ম্যাচ খেলেছে। দক্ষিণ আফ্রিকা ২৪টি, নিউজিল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়া ২১টি এবং ইংল্যান্ড ১৭টি টি-২০ ম্যাচে অংশ নিয়েছিল। টি-২০ বিশ্বকাপের গ্রুপ স্টেজের ম্যাচ শুরু হয়েছে ১৭ অক্টোবর থেকে। এর মাত্র দু’দিন আগে অনুষ্ঠিত হয়েছে আইপিএল ফাইনাল। সুতরাং দেখা যাচ্ছে যে, বিশ্বকাপের বাদ্যি যেখানে বেজে গেছে, সেখানে ভারতের বিশ্বকাপ দলের গুরুত্বপূর্ণ খেলোয়াড়রা আইপিলে ঘাম ঝরাতে ব্যস্ত।

আরও পড়ুন: ভারতের বিদায় নিশ্চিত করে বিশ্বকাপ সেমিতে নিউজিল্যান্ড

মুম্বই ইন্ডিয়ান্স তাদের শেষ ম্যাচ খেলেছিল ৮ অক্টোবর। এই দলে রোহিত শর্মা, জসপ্রীত বুমরাহ-সহ ভারতীয় দলের ৬ জন খেলোয়াড় উপস্থিত ছিলেন। অর্থাৎ বিশ্বকাপ শুরু হতে চলেছে এবং প্রায় গোটা ভারতীয় দলই আইপিএলে ঘাম ঝরিয়েছে। তাছাড়াও আইপিএলের ফাইনাল-সহ এলিমিনেটর ম্যাচগুলির কথা ধরলে সেখানেও ছিলেন ভারতীয় দলের ছয় তারকা— অধিনায়ক বিরাট কোহলি, রবীন্দ্র জাদেজা, শার্দূল ঠাকুর, ঋষভ পন্থ, বরুণ চক্রবর্তী এবং রবিচন্দ্রন অশ্বিন। অনেকেই ভেবেছিলেন আইপিএলে খেলার সুবিধা বিশ্বকাপে পাবে টিম ইন্ডিয়া। সেরকম কিছুই হয়নি। টিম ইন্ডিয়াকে অতিরিক্ত আত্মবিশ্বাসী দেখিয়েছিল। এই অতিরিক্ত আত্মবিশ্বাসই টিম ইন্ডিয়ার স্বপ্নভঙ্গের অন্যতম কারণ।  

Facebook Twitter Email Whatsapp

এই সংক্রান্ত আরও খবর:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *